ডেস্ক নিউজ:

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ৫ বছরের দণ্ডপ্রাপ্ত খালেদা জিয়ার আপিল গ্রহণ ও জামিন আবেদনের শুনানি আজ (বৃহস্পতিার) দুপুর ১২টায় অনুষ্ঠিত হবে।

সকালে সাড়ে ১০টার দিকে আদালতের কার্যক্রম শুরু হলে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী অ্যার্টনি জেনারেল মাহবুবে আলম দুপুর ২টার পর শুনানির জন্য আবেদন করেন, পরে আদালত আপিল গ্রহণের ওপর দুপুর ১২টায় শুনানির সময় ঠিক করেন।

এদিকে খালেদা জিয়ার জামিনের জন্য পৃথক আবেদনও আদালতে উপস্থাপন করা হয়েছে। দুপুরে জামিনের শুনানিও একই সঙ্গে অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন তার আইনজীবীরা।

ব্যারিস্টার আতিকুর রহমান ও ব্যারিস্টার ফাইয়াজ জিবরান বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, খালেদা জিয়ার জামিনের জন্য মোট ৮৮০ পৃষ্ঠার জামিন আবেদন করা হয়েছে। জামিন ও আপিল আবেদনের কপি দুদকে সরবরাহ করা হয়েছে।

জানা গেছে, তারা দুইজনসহ মোট চারজন জামিন আবেদনে কন্ডাক্টিং ল’ইয়ার হিসেবে যুক্ত হয়েছেন। বাকি দু’জন হলেন, ব্যারিস্টার কায়সার কামাল ও ব্যারিস্টার নওশাদ জমির।

এর আগে গত মঙ্গলবার খালেদা জিয়ার কারাদণ্ডের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আপলি করেন তার আইনজীবীরা। হাইকোর্টে দায়ের করা আপিলের গ্রহণযোগ্যতার ওপর শুনানির জন্য আজ (বৃহস্পতিবার) দিন ধার্য রয়েছে। মঙ্গলবার হাইকোর্টের বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সহিদুল করিমের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ দিন ঠিক করেন।

আপিল শুনানিতে মোট ৫৩ জন আইনজীবী নিয়োগ দিয়েছেন বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদকে প্রধান করে করা আইনজীবী প্যানেলের ৫৩ সদস্যই ওকালতনামায় স্বাক্ষর করেছেন।

উল্লেখ্য, গত ৮ ফেব্রুয়ারি (বৃহস্পতিবার) ঢাকার বকশীবাজারে স্থাপিত বিশেষ আদালতে বিশেষ জজ ৫ এর বিচারক ড. মো. আখতারুজ্জামান জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়ার ৫ বছর কারাদণ্ডের রায় দেন। একইসঙ্গে দলটির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ অপর পাঁচ আসামির ১০ বছর করে কারাদণ্ড দেন আদালত। সাজা ঘোষণার পর থেকে সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে পুরান ঢাকার নাজিমুদ্দিন রোডের পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারে রাখা হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •