অর্ধশতাধিক প্রতিষ্ঠানে নেই শহীদ মিনার


শাহিদ মোস্তফা শাহিদ, কক্সবাজার সদর :

কক্সবাজার সদর উপজেলার উপকূলীয় ইউনিয়ন চৌফলদন্ডীতে অধিকাংশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার না থাকায় ৫ হাজারেরও অধিক শিক্ষার্থী শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন থেকে বঞ্চিত রয়েছে। অর্ধশতাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শুধুমাত্র একটি প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার রয়েছে। সেটিও দূরবর্তী এলাকা হওয়ায় কোমলমতি শিক্ষার্থীরা যেতে পারে না। এমনকি কোন মাদ্রাসায়ও প্রতিষ্ঠিত হয়নি শহীদ মিনার। পাশাপাশি বিভিন্ন জাতীয় দিবসে এসব প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা দিন কাটিয়ে দেয় অনেকটা ছুটির আমেজে। এতে করে ইউনিয়নের কয়েক হাজার শিক্ষার্থী মহান স্বাধীনতা দিবস, বিজয় দিবস, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের মত গুরুত্বপূর্ণ দিনগুলোর মৌলিক শিক্ষা ও তাৎপর্য উপলদ্ধিসহ শহীদদের স্মরণে তারা শ্রদ্ধাঞ্জলী নিবেদনের সুযোগ থেকে বঞ্চিত রয়েছে। বিদ্যালয়ের ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলন সম্পর্কে কোন প্রকার ধারণাও নেই। সরকারী বরাদ্ধ না থাকায় প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে শহীদ মিনার নির্মাণ করা হয়নি। পশ্চিম চৌফলদন্ডী উত্তর রাখাইন পাড়ার শিক্ষার্থী ওফ্রু রাখাইন, চেচিং অং, ইসমাইলের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, একুশে ফেব্রুয়ারী সম্পর্কে তারা তেমন কিছুই জানেনা। এমনকি কখনো শহীদ মিনারে ভোর সকালে খালি পায়ে হেটে গিয়ে কোনদিন ফুলও দেননি। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অধিকাংশ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা জানান, তাদের আন্তরিকতা থাকলেও সরকারী বরাদ্ধ না থাকায় শহীদ মিনার তৈরী করা সম্ভব হচ্ছে না। উপজেলা শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা যায়, ইউনিয়নে মাধ্যমিক, প্রাথমিক, কিন্ডার, নূরানী, দাখিল, কোডেক ও মুক্তি পরিচালিত শিশু বিকাশ কেন্দ্রসহ অর্ধ শতাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এর মধ্যে চৌফলদন্ডী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় ও সবুজবাগ স্কুল সংলগ্ন একটি শহীদ মিনার রয়েছে। অবশিষ্ট প্রায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার গড়ে উঠেনি। এসব প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নির্মাণের জন্য ১৭-১৮ অর্থ বছরের উপজেলা উন্নয়ন তহবিলের আওতায় প্রকল্পের আওতায় উপজেলা নির্বাহী বরাবর আবেদন জানিয়েছে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ওয়াজ করিম বাবুল। তিনি জানান, আমাদের ভাষা আন্দোলনের মধ্য দিয়ে মাতৃভাষা বাংলা ও স্বাধীনতা পেয়েছি। শহীদ মিনার শহীদের রক্তে ভেজা বাংলা ভাষা ও স্বাধীনতা ছিনিয়ে আনার প্রতীক। তাই নতুন প্রজন্মের কাছে ভাষা আন্দোলন ও স্বাধীনতা যুদ্ধের ইতিহাস স্মরণ করাতে শহীদ মিনার নির্মাণ অতীব জরুরী। ৩নং ওয়ার্ডের এমইউপি রাশেদুল ইসলাম রাসেল জানান, দক্ষিণ ও উত্তর রাখাইন পাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়, উত্তর রাখাইন পাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়, হাকিমিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, পশ্চিম চৌফলদন্ডী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, সাগরমনি উচ্চ বিদ্যালয়, নোমানিয়া মাইজ পাড়া, পশ্চিম পাড়া ও হোছাইনিয়া, বাজার পাড়া, দক্ষিন পাড়ায় একাধিক নূরানী মাদ্রাসায় ৪ হাজারের ও অধিক শিক্ষার্থী রয়েছে। এ ব্যাপারে জানার জন্য উপজেলা মাধ্যমিক ও প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তারা বিষয়টি দ্রুত পদক্ষেপ নেবেন বলে জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •