মগনামার কাকপাড়ায় সাগরগর্ভে বিলীনের মুখে বিদ্যালয় ও আশ্রয় কেন্দ্র

মো: ফারুক, পেকুয়া:

পেকুয়া উপজেলার মগনামা ইউনিয়নের পাউবো নিয়ন্ত্রিত বেড়িবাঁধের কাক পাড়া পয়েন্টে গত ঘুর্ণিঝড় রোয়ানুর আঘাতে বিলীন হওয়া ৪০ চেইন বেড়িবাঁধ সংস্কার না হওয়ায় আগামী বর্ষা মৌসুমে সাগরের পানিতে আবারো প্লাবিত হবে মগনামাবাসী। বেড়িবাঁধ সংস্কার না হওয়ায় চরম হুমকির মূখে পড়েছে কাকপাড়ার একটি আশ্রয় কেন্দ্র ও সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়। গত বর্ষা মৌসুমেও কাকপাড়ায় বিলীন পাউবোর ওই বেড়িবাঁধের অংশ দিয়ে সাগরের জোয়ারের পানি প্রবেশ করে মগনামার বিভিন্ন জনবসতি ও স্থাপনার ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছিল। সামনের বর্সা মৌসুমের আগেই বেড়িবাঁধ সংস্কার না করলে আবারো সাগরের পানিতে ভাসতে হবে মগনামাবাসীকে। সংষিøষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ঠিকাদারের অবহেলার কারণে কাকপাড়ার ওই বেড়িবাঁধ সংস্কার হচ্ছে না।

মগনামা ইউপি চেয়ারম্যান শরাফত উল্লাহ চৌধুরী ওয়াসিম  ১৮ জানুয়ারী স্থানীয় সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিয়মকালে বলেন, কাক পাড়া এলাকার বেড়িবাঁধের অবস্থা খুবই নাজুক। সামনের বর্ষা মৌসুমে ভাঙ্গা ওই বেড়িবাঁধ পয়েন্ট দিয়ে আবারো সাগরের পানি প্রবেশ করে পুরো মগনামাই প্লাবিত হবে। এতে এই এলাকার একমাত্র ঘুর্ণিঝড় আশ্রয়ন কেন্দ্র ও সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ স্থানীয় বাসিন্দাদের অসংখ্য বসতঘর সাগরবক্ষে চলে যেতেও পারে। তিনি বেড়িবাঁধ নির্মাণের কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে নেওয়ার জন্য পাউবোর উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছে জোরালো দাবী জানিয়েছেন।

স্থানীয় বাসিন্দারা আরো জানান, বিগত বর্ষা মৌসুমে ঘূর্ণিঝড় রোয়ানুর কারণে মগনামার পশ্চিমাংশে পুরো বেড়িবাঁধ বিধ্বস্ত হয়। সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয় কাঁকপাড়া অংশে। সরকারী উচ্চপর্যায়ের প্রতিনিধি ও পাউবোর উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ দফায় দফায় মগনামার কাঁকপাড়া অংশ পরিদর্শন করেছিল। পরে একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্টানকে কাকপাড়ার বিধ্বস্ত অংশ সংস্কারের জন্য পাউবোর পক্ষ থেকে কার্যাদেশ দেওয়া হলেও ঠিকাদারের অবহেলার কারণে এখনো কাজ শুরু করেনি। এ নিয়ে স্থানীয়রা চরম ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

মগনামা ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য শাহেদুল্লা ও জায়েদুল হক বলেন, ওই এলাকায় স্থায়ী বেড়িবাঁধ নির্মাণে সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারকে দুই বছর সময় বেধে দিয়েছেন পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবি)। তাই স্থায়ী বেড়িবাঁধ ঠেকসইভাবে নির্মাণ করতে সময় নিয়ে কাজ করতে হবে তাদের। আগামী বর্সা মৌসুমের আগে বেড়িবাঁধের ওই অংশের কাজ সম্পন্ন না করলে আবারো প্লাবিত হবে মগনামা।

বাাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড কক্সবাজারের সংশ্লিষ্ট এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, মগনামা ইউনিয়নের কাকপাড়া অংশের বিধ্বস্থ বেড়িবাঁধ পয়েন্টে বাঁধ আগামী বর্ষা মৌসুমের আগেই শেষ করা হবে। এ জন্য সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারকে তাগাদা দেওয়া হয়েছে।

কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

প্লিজ ফেসবুক – তুমি মৃত্যুটাকে মিথ্যে প্রমাণ কর!

দুর্নীতির দায়ে সাবেক ইউএনও মামুনুর রশিদের ৮ বছরের কারাদণ্ড

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক কাজি মোঃ আবদুর রহমানকে টুয়াকের বিদায় সংবর্ধনা

সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ধরে রাখার আহবান লুৎফুর রহমান কাজলের

চকরিয়ায় গরু চোর চক্রের সদস্য আটক

শহরের পূজামন্ডপ পরিদর্শনে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার

প্রথম আলো ও ডেইলী স্টারের মালিক লতিফুর রহমানকে দূদকে জিজ্ঞাসবাদ

সমুদ্র সৈকতে দেশের বৃহৎ প্রতিমা বিসর্জন শুক্রবার

পূজামন্ডপ পরিদর্শনে ইশতিয়াক আহমেদ জয়

শারদীয় দুর্গোৎসব উপলক্ষে লুৎফুর রহমান কাজলের শুভেচ্ছা বিনিময়

গর্জনিয়ায় বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ, যুবক কারাগারে

দুর্গোৎসবে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া উপহার বিতরণে অনিয়ম-স্বজনপ্রীতির অভিযোগ

পেকুয়ায় বনবিভাগের ৪ কর্মচারী বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি মামলা

ঈদগাঁওতে ২ গ্রামের সনাতন সম্প্রদায়ের হত দরিদ্ররা উপহার বঞ্চিত!

চট্টগ্রামে ওসি জসিমসহ ৬ পুলিশের বিরুদ্ধে মামলা

আকাশ আলোকিত করতে কৃত্রিম চাঁদ বানাচ্ছে চীন

নৌকা জয়ী হলে উন্নয়ন জোয়ারে ভাসবে গর্জনিয়া কচ্ছপিয়া- এমপি কমল

লামায় দু‘পক্ষের সংঘর্ষে আহত ২

চকরিয়ায় শারদৎসবে মেতে উঠেছে হিন্দু সম্প্রদায়

মাদক কারবারীদের বাসাবাড়ীতে বিশেষ অভিযান: এক জনের ৬ মাসের কারাদণ্ড