চকরিয়ায় অগ্নিকান্ডে ৭ দোকান পুড়ে ছাই: ২৫লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি

এম.মনছুর আলম, চকরিয়া:

চকরিয়ায় উপকূলীয় বদরখালীতে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে সৃষ্ট অগ্নিকান্ডে ৭টি দোকান পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।এতে অগ্নিকান্ডে আনুমানিক ২৫লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে ধারনা করা হচ্ছে।বৃহস্পতিবার (১৫ফেব্রুয়ারী)ভোর রাত সাড়ে ৩টার দিকে উপজেলার বদরখালী ইউনিয়নের পুরাতন ফেরীঘাট (জীপ ষ্টেশন) এলাকায় এ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে।সংবাদ পেয়ে চকরিয়া ফায়ার সার্ভিসের দমকল বাহিনী দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।এদিকে বদরখালীতে অগ্নিকান্ডের ঘটনার সংবাদ পেয়ে বৃহস্পতিবার সকালের দিকে চকরিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব জাফর আলম ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নূরুদ্দীন মুহাম্মদ শিবলী নোমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।অগ্নিকান্ডে ঘটনার বিষয়ে সত্যতা নিশ্চিত করেছেন বদরখালী ইউপি চেয়ারম্যান খাইরুল বশর।

অগ্নিকান্ডে ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান খাইরুল বশর বলেন, বুধবার রাত্রে পুরাতন ফেরিঘাট এলাকায় দোকান ব্যবসায়ীরা যার যার মতো করে দোকান বন্ধ করে বাড়ি চলে যান।বৃহস্পতিবার ভোর রাত সাড়ে তিনটার দিকে হঠাৎ বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুন সৃষ্টি হয়ে মূহুর্তের মধ্যেই আগুনের লেলিহান শিখায় ৭টি দোকান পুড়ে ছাই হয়ে যায়।পরে ফায়ার সার্ভিসের দমকল বাহিনী পৌছে অন্যান্য দোকান অাগুন নিয়ন্ত্রণ এনে অবশিষ্ট ১৫টি দোকান পুড়ে যাওয়া থেকে রক্ষা করেন।পুড়ে যাওয়া দোকানের মধ্যে ১টি পানের দোকান, ৩টি চায়ের দোকান সম্পূর্ণ পুড়ে ছাই হয়ে যায়।ওই সময় আরো ৩টি কুলিং কর্ণার দোকান পুড়ে যায় বলে জানান।

তিনি আরো বলেন, ইউপি দেয়া তথ্যমতে সৃষ্ট অগ্নিকান্ডে যে সব ব্যাক্তিরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন তারা হলেন,দোকানের মালিক কবির আহমদের ক্ষতি হয়েছে ১০লক্ষ টাকা,জিয়াবুল কুলিং কর্ণারের মালিক জিয়াবুল করিমের ২লক্ষ টাকা,বেলাল কুলিং কর্ণারের মালিক বেলাল উদ্দিনের ২লক্ষ টাকা,করিম পান বিতানের মালিক মো:করিমের ৭০হাজার টাকা,সাকিব ভাত ঘরের মালিক আবদুল মন্নানের ১লক্ষ ৭০হাজার টাকা,বৈশাখী হোটেলের মালিক সিরাজ উদ্দিনের ২লক্ষ টাকা,দোকানের মালিক আজমের ৩লক্ষ টাকা,কামাল কুলিং কর্ণারের মালিক কামাল উদ্দিনের ২লক্ষ টাকা ক্ষতিসাধন হয়েছে।এছাড়াও আশ পাশের বেশ কয়েকটি দোকান আংশিক ক্ষতি হয়েছে বলে তিনি জানায়।

এ ব্যাপারে চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নূরুদ্দীন মুহাম্মদ শিবলী নোমান কাছে জানতে চাইলে তিনি এ প্রতিবেদককে বলেন, বলেন,বুধবার সকালের দিকে উপজেলা বদরখালী ইউনিয়নে অগ্নিকান্ডে পুড়ে যাওয়া দোকান সমূহ উপজেলা চেয়ারম্যান জাফর আলমসহ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়।এ নিয়ে স্থানীয় চেয়ারম্যান খাইরুল বশরকে দ্রুত ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নির্ধারণ করে উপজেলা প্রশাসনকে তাদের তালিকা দেয়ার জন্য বলা হয়েছে।ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ হাতে পেলে তা জেলা প্রশাসনের কাছে পাঠানো হবে বলে তিনি জানান।

কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

জিএম রহিমুল্লাহর জানাজা বুধবার সকাল দশটায় কক্সবাজার কেন্দ্রীয় ঈদগাঁও মাঠে, বাদে জুহর ভারুয়াখালী

যে কারণে বদি মনোনয়ন পাচ্ছেন না জানালেন ওবায়দুল কাদের

বান্দরবানে পর্যটকবাহী বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে নিহত ১

কক্সবাজার সদর উপজেলা চেয়ারম্যান জিএম রহিম উল্লাহ আর নেই

ভিডিও কনফারেন্সে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎ নিচ্ছেন তারেক রহমান

বিএনপি নেতা রফিকুল ইসলাম মিয়ার ৩ বছরের কারাদণ্ড

মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার নিচ্ছে জাতীয় পার্টি

চানাচুর আলম, সিডি আলম, ডিশ আলম থেকে হিরো আলম

ভোটের দিন পর্যবেক্ষকদেরকে মুর্তির মতো থাকতে হবে : নির্বাচন কমিশন সচিব

‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বদিকে মনোনয়ন না দিয়ে নিশ্চিত আসনটি হারাবেন না’

কক্সবাজারে রোহিঙ্গা যুবকের হাতে শিশু ধর্ষিত, ধর্ষক আটক

টেকনাফ ও কুতুবদিয়ায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মারা গেল তিনজন

আমলনামা যাচাই-এ উত্তীর্ণ কারা হচ্ছেন!

টেকনাফে র‌্যাবের সাথে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ২ ইয়াবা ব্যবসায়ী নিহত

মাশরাফির প্রতিদ্বন্দ্বী কারা?

কারা পাচ্ছেন আ. লীগ-বিএনপির মনোনয়ন?

 বিএনপির গুলশান কার্যালয়ে ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন

 তারেক রহমানের ৫৩তম জন্মবার্ষিকী আজ

চকরিয়ায় মুক্তিযোদ্ধাকে মোটরসাইকেল চাপায় হত্যা চেষ্টার অভিযোগ

চকরিয়ায়  ৩৬ শিক্ষার্থীর এসএসসি পরীক্ষা দেয়া অনিশ্চিত