চকরিয়া কেন্দ্রীয় উচ্চ বিদ্যালয়ে অভিভাবক সমাবেশ

শেখ হাসিনার সরকার শিক্ষার্থীদের আলোর পথ দেখাতে কাজ করছেন : জাফর আলম


এম.জিয়াবুল হক,চকরিয়া

“দায়িত্বশীল নাগরিক হব, বৈষম্য ও সহিংসতামুক্ত সমাজ বিনির্মাণ করব” স্লোগানে চকরিয়া উপজেলার ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান চকরিয়া কেন্দ্রীয় উচ্চ বিদ্যালয়ে গতকাল মঙ্গলবার সকালে তরুণ আলো প্রকল্প ইলমা চকরিয়ার সহযোগিতায় বার্ষিক ক্রীড়া,সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা,অভিভাবক সমাবেশ ও পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন চকরিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ জাফর আলম। বিদ্যালয়ের শিক্ষক আবদুল মালেক ও নরেশ রুদ্রের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত অভিভাবক সমাবেশে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন তরুন আলো প্রকল্পের ব্যবস্থাপক মোহাম্মদ ফোরকান। বিশেষ অতিথি ছিলেন কক্সবাজার জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান ও চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামীলীগের সভাপতি জাহেদুল ইসলাম লিটু, বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি আলহাজ সিরাজ উদ্দিন আহমদ, বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্য ও উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক জামাল উদ্দিন জয়নাল, কমিটির সদস্য নাজিম উদ্দিন, সাইফুল ইসলাম, ওয়াহেদ উদ্দিন ইবনু, তরুণ আলোর কর্মকর্তা আদিলুর রহমান, জাহিদুর রহমান,হুমায়ুন কবির প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে চকরিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ জাফর আলম বলেন, বর্তমান তরুণ প্রজন্মের মাঝে দক্ষ নেতৃত্বের বিকাশ ঘটাতে পারলে আগামীর বাংলাদেশে আলোকিত মানুষ দেখতে পাব। আর তরুণরাই আলোকিত মানুষ হয়ে একদিন জাতিকে সোনার বাংলাদেশ উপহার দেবে। কারণ বর্তমান সরকার তরুন প্রজন্মের শিক্ষার্থীদেরকে আলোর পথ দেখাতে কাজ করছেন। সেই লক্ষ্যে সরকার প্রধান জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশের শিক্ষাখাতে অগ্রগতি এবং দক্ষ মানব সম্পদ তৈরীতে সব ধরণের কর্মসুচি হাতে নিয়েছেন।

তিনি বলেন, অভিভাবকদের অসচেতনতার কারণে কিছু কিছু তরুণ পথভ্রষ্ট হয়ে উগ্রবাদ ও সহিংসতার দিকে ধাবিত হচ্ছে। আমাদেরকে সজাগ থাকতে হবে। বিশেষ করে শিক্ষক ও অভিভাবকরা সচেতন এবং দায়িত্ববান ভুমিকা পালন করলে তরুনরা কোনদিন পদভ্রষ্ট হতে পারবেনা। বর্তমান সরকারও এই বিষয়টি বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে, যাতে তরুন প্রজন্মকে সুশিক্ষিার মাধ্যমে সঠিক পথে জীবনের অভিষ্ট লক্ষ্যে পৌছানো সম্ভব হয়। এই কাজটির জন্য প্রতিটি পরিবারের মা বাবাকে তার সন্তানের প্রতি আরো বেশি যতœশীল ও সচেতন হতে হবে।

অনুষ্ঠানের শুরুতে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে উপস্থিত বক্তৃতা, কবিতা আবৃত্তি,দেশাত্ববোধক গান ও পল্লীগীতি, লোকগীতি প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। সবশেষে বার্ষিক পরীক্ষায় সর্বোচ্চ ফলাফল অর্জনকারী শিক্ষার্থীদের কৃতিত্বের জন্য তাদের মা’দের অনুপ্রেরণামূলক সম্মাননা স্বারক প্রদান করা হয়।

সর্বশেষ সংবাদ

কক্সবাজারে আয়কর মেলা, তিনদিনে ৫৯ লাখ টাকা রাজস্ব আদায়

পোকখালীতে চিংড়ি ঘেরে ডাকাতির চেষ্টা, মালিককে কুপিয়ে জখম

মহেশখালীতে ৩দিন ব্যাপী কঠিন চীবর দানোৎসব শুরু

ইন্টারনেট সুবিধার আওতায় কক্সবাজার প্রেসক্লাব

আওয়ামীলীগ ভাওতাবাজিতে চ্যাম্পিয়ন : ড. কামাল

সত্য বলায় এসকে সিনহাকে জোর করে বিদেশ পাঠানো হয়েছে: মির্জা ফখরুল

সাতকানিয়ায় মাদকসহ আটক ২

কক্সবাজারে হোটেল থেকে বন্দী ঢাকার তরুণী উদ্ধার

৩০০ আসনে প্রার্থী চূড়ান্ত ইসলামী আন্দোলনের

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে খেলনা বেলুনের সিলিন্ডার বিস্ফোরণে আহত ৯

চকরিয়া আসছেন পুলিশের আইজি, উদ্বোধন করবেন থানার নতুন ভবন

না ফেরার দেশে গর্জনিয়ার জমিদার পরিবারের দুই মহিয়সী নারী

চকরিয়ায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে যুবকের মৃত্যু

চকরিয়ায় ৪০শতক জমিতে দরিদ্র কৃষকের ক্ষেতে দুবৃর্ত্তের তান্ডব

পিসফুল ইউনাইটেড ক্লাবের অগ্নিদগ্ধে মৃত রায়হানের স্বরণ সভা ও দোয়া মাহফিল 

১০ নম্বরি হলেও নির্বাচন বয়কট করবো না : ড. কামাল

প্রকৃত নেতা মাত্রই পল্টিবাজ : ইমরান খান

ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে অধিনায়ক সাকিব, ফিরেছেন সৌম্য

বিজয় ফুল তৈরী প্রতিযোগিতায় চট্টগ্রাম বিভাগে প্রথম উখিয়ার নওশিন

চকরিয়ার রুবেল বাঁচতে চায়