হাফেজ মুহাম্মদ কাশেম, টেকনাফ
টেকনাফ উপজেলা পরিষদের সংরক্ষিত ২টি মহিলা আসনের তপশীল গোপন করার গুরুতর অভিযোগ উঠেছে। এ ব্যাপারে ২ জন প্রার্থী প্রতিকার ও পুনরায় তপশীল দাবি করে কক্সবাজার জেলা প্রশাসক বরাবরে লিখিত অভিযোগ করেছেন। কক্সবাজার জেলা প্রশাসক আবেদনের প্রেক্ষিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে (ইউএনও) নির্দেশ দিয়েছেন। ১৮ জানুয়ারী বৃহষ্পতিবার বিকালে আবেদনের কপি টেকনাফে পৌঁছেছে। অভিযোগকারীরা হলেন টেকনাফ উপজেলা পরিষদের সংরক্ষিত ১নং মহিলা আসনের প্রার্থী হ্নীলা ইউনিয়নের সংরক্ষিত মহিলা আসনের-৩ মেম্বার মরজিনা আক্তার ছিদ্দিকী এবং টেকনাফ উপজেলা পরিষদের সংরক্ষিত ২নং মহিলা আসনের প্রার্থী সাবরাং ইউনিয়নের সংরক্ষিত মহিলা আসনের-১ মেম্বার আয়েশা বেগম। তাঁরা দু’জন এবং ২নং আসনের বর্তমান মহিলা সদস্য সাবরাং ইউনিয়নের মেম্বার সনজিদা আক্তার টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে উপস্থিত হয়ে কক্সবাজার জেলা প্রশাসকের নির্দেশিত লিখিত অভিযোগের কপি দাখিল করেন।
জানা যায়, টেকনাফ উপজেলার ৬টি ইউনিয়নকে উপজেলা পরিষদের সংরক্ষিত ২টি মহিলা আসনে বিভক্ত করা হয়েছে। হোয়াইক্যং, হ্নীলা ও বাহারছড়া ইউনিয়ন নিয়ে সংরক্ষিত মহিলা আসন-১ এবং টেকনাফ সদর, সাবরাং ও সেন্টমার্টিনদ্বীপ ইউনিয়ন নিয়ে সংরক্ষিত মহিলা আসন-২ নির্ধারণ করা হয়েছে। ১নং আসনের মহিলা সদস্য ছিলেন হ্নীলা ইউনিয়নের মেম্বার রাশেদা বেগম এবং ২নং আসনের মহিলা সদস্য ছিলেন সাবরাং ইউনিয়নের মেম্বার সনজিদা আক্তার। দু’জনই বিগত ইউপি নির্বাচনে জয়ী হতে না পারায় নির্বাচন কমিশণ আসন ২টি শুন্য ঘোষনা করেন।
এরপর বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশণ সচিবালয় ৮ জানুয়ারী তপশীল ঘোষণার প্রেক্ষিতে কক্সবাজার জেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটার্ণিং অফিসার মোঃ মোজাম্মেল হোসেন ৯ জানুয়ারী স্মারক নং-১৭.০২.৩৩০০.০০০.৪০.০০৫.১৮.১৭ মুলে গণ-বিজ্ঞপ্তি জারী করেন। গণ-বিজ্ঞপ্তির তপশীল অনুসারে মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ তারিখ ১৬ জানুয়ারী, মনোনয়নপত্র বাছাই ১৭ জানুয়ারী, প্রার্থীতা প্রত্যাহার ২৪ জানুয়ারী, ভোট গ্রহণ ২৯ জানুয়ারী।
অভিযোগকারী দু’জন মহিলা মেম্বার তাঁদের লিখিত আবেদনে দাবি করেছেন গণ-বিজ্ঞপ্তিটি বহুল প্রচার করতে বলা হলেও কতিপয় ব্যক্তিদের যোগসাজসে তা গোপন রাখা হয়েছে। এমনকি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানদের কাছেও যথাসময়ে গণ-বিজ্ঞপ্তির কপি পৌঁছানো হয়নি। মনোনয়নপত্র দাখিল করার শেষ দিনে সময় শেষ হওয়ার অল্পক্ষণ আগে জানতে পেরেছেন। যার কারণে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেও আনুষাঙ্গিক কাজ সম্পাদন করে জমা দিতে পারেননি। যোগসাজসে গণ-বিজ্ঞপ্তি গোপনকারীরা এ সুযোগে ২ জনকে মনোনয়নপত্র দাখিল করিয়ে বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় নির্বাচিত করার পায়ঁতারা করেছে। তাঁরা ঘোষিত তপশীল স্থগিত করে পুণরায় তপশীল ঘোষণা করার দাবি জানিয়েছেন।
১নং আসনের বর্তমান মহিলা সদস্য হ্নীলা ইউনিয়নের মেম্বার রাশেদা বেগম এবং ২নং আসনের বর্তমান মহিলা সদস্য সাবরাং ইউনিয়নের মেম্বার সনজিদা আক্তার জানান তাঁরা গণ-বিজ্ঞপ্তি সম্পর্কে মোটেও জানেননা।

কক্সবাজার জেলার ২৪টি সংরক্ষিত মহিলা আসন শুন্য :
কক্সবাজার জেলার ৮টি উপজেলায় বর্তমানে ২৪টি সংরক্ষিত উপজেলা পরিষদের মহিলা আসন শুন্য রয়েছে। আসনগুলো হচ্ছে চকরিয়া উপজেলা পরিষদের সংরক্ষিত মহিলা আসন নং-১, ২, ৩, ৪, ৫, ৬। পেকুয়া উপজেলা পরিষদের সংরক্ষিত মহিলা আসন নং-১, ২। কুতুবদিয়া উপজেলা পরিষদের সংরক্ষিত মহিলা আসন নং-১, ২। মহেশখালী উপজেলা পরিষদের সংরক্ষিত মহিলা আসন নং-১, ৩। কক্সবাজার সদর উপজেলা পরিষদের সংরক্ষিত মহিলা আসন নং-১, ২, ৩, ৪। রামু উপজেলা পরিষদের সংরক্ষিত মহিলা আসন নং-১, ২, ৩, ৪। উখিয়া উপজেলা পরিষদের সংরক্ষিত মহিলা আসন নং-১, ২। টেকনাফ উপজেলা পরিষদের সংরক্ষিত মহিলা আসন নং-১, ২।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •