চকরিয়ার রাবার ড্যামের মাটি চাপায় ৬০ হাজার একর চাষাবাদ অনিশ্চিত

মোঃ নিজাম উদ্দিন, চকরিয়া:

চকরিয়া মাতামুহুরী নদীর উপর নির্মিত বাঘগুজারা রাবার ড্যামটি মাটি চাপায় রয়েছে বর্ষকাল থেকে। বোরো মৌসুম শুরু হলেও কৃষকরা চারা রোপণের কাজ শুরু করতে পারেনি এখনো পর্যন্ত। অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে চকরিয়া উপজেলা ও পেকুয়া অংশের ৬০ হাজার একর জমির চাষাবাদ। খবর নিয়ে জানা যায় মাতামুহুরী নদীর সেচ প্রকল্পের আওতায় ২০১৩ সালে প্রায় ৫৩ কোটি টাকা ব্যয়ে পালাকাটা ও বাঘগুজারা অংশে দু’টি রাবার ড্যাম নির্মাণ করা হয়। অনিয়ম দুর্নীতির মধ্য দিয়ে নিম্মমানের উপকরণে নির্মাণ কাজ শেষ করায় বছর পার না হতেই রাবার ড্যামটির নানা ত্রুটি দেখা দেয়। পরে নাম সর্বস্ব ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের সাথে যোগসাজস করে বিনা টেন্ডারে রাবার ড্যামের ত্রুটি মেরামতের নামে কোটি টাকা আত্মসাৎ করা হয়।
অভিযোগে জানা গেছে, গতবছর জানুয়ারীর দিকে বোরো মৌসুমের শুরুতে বাঘগুজারা রাবার ড্যামের রাবার ব্যাগ ছিড়ে গেছে এমন অজুহাত দেখিয়ে কক্সবাজার পানি উন্নয়ন বোর্ড রাবার মেরামতের জন্য সরকারের কাছ থেকে দুই কোটি টাকা বরাদ্দ আনে। পরবর্তীতে বিনা টেন্ডারে একব্যক্তির মাধ্যমে ড্যামের উভয় পাশে পানি আটকানোর জন্য দুটি অস্থায়ী মাটির বাধ নির্মাণ করেন। যা কোন দরকার ছিলনা বলে জানান স্থানীয় সচেতন লোকজন। অবশ্য ওসময় রাবার ড্যামগুলোর মেরামতের কাজ চকরিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব জাফর আলম নিজের পছন্দের লোক দিয়ে করিয়েছে বলে জানায় কক্সবাজার পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকোশলী মোঃ সাবিবুর রহমান। চলতি বছরেও বাঘগোজারা রাবার ড্যামটির ব্যাগ বর্ষায় পলি ও মাটির চাপা পড়ায় সময়মতো ফোলানো যায়নি। এতে মিঠাপানির অভাবে চকরিয়া ও পেকুয়ার কৃষকরা এখনও চাষাবাদের কাজ শুরু করতে পারেনি। অধিকাংশ বীজতলা নষ্ট হয়ে যাচ্ছে পানি সেচের অভাবে। কৃষকদের সাথে কথা বলে জানা যায়, মাঘ মাসের শুরুতেই বোরো চাষে ধান রোপণের কাজ শেষ করতে হয়। এতে ফলন ভালো পাওয়া যায়। তবে কখন নাগাত চাষাবাদে পানি পাবে চিন্তিত রয়েছে কৃষকরা।
সরেজমিনে বাঘগুজারা রাবার ড্যামে গিয়ে দেখা যায় ৪টি স্পাইনের মধ্যে দুইটি স্পাইনের রাবার ব্যাগ মাটি চাপা পড়ে আছে। ৩জন শ্রমিক মাটি সরানোর কাজ করছেন। রাবার ড্যামটির অপারেটর আবদু রহিম বলেন, গত বর্ষার সময় এই রাবার ড্যামটির ৪টি স্পাইনের মধ্যে ৩টি স্পাইনের ব্যাগ মাটি চাপা পড়ে যায়। যার কারণে ব্যাগগুলো ফুলিয়ে নদীর পানি আটকানো সম্ভব হয়নি।
চকরিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ সভাপতি আলহাজ্ব জাফর আলমের সহকারী হাসানুল ইসলাম আদর বলেন, আপনারা রাবার ড্যাম পরিদর্শনে যাওয়ার পর আমাকে তা স্বাভাবিক করে দিতে বলা হয়। আমি মাটি সরিয়ে রাবার ব্যাগগুলো ফুলানোর ব্যবস্থা করে দিয়ে এসেছি। কক্সবাজার পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকোশলী সাবিবুর রহমান জানান, কয়েকদিনের মধ্যে রাবার ড্যামটির ব্যাগ ফোলানো সম্ভব হবে।
cbn
কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

লালদীঘির পাড় পতিতার হাট!

মহেশখালীতে সন্ত্রাসীদের দায়ের কোপে পানচাষি নিহত

টমটমের শহরে টমটম উধাও

সিঙ্গাপুরে যেমন আছেন এরশাদ

রোহিঙ্গা সংকটে ২০১৯ সালে প্রয়োজন ৯২ কোটি ডলার

আফগান সেনা ঘাঁটিতে তালেবান হামলা, নিহত শতাধিক

উপজেলা নির্বাচনে তৃণমূলের মতামতেই প্রার্থী দেবে আ. লীগ

বিনিয়োগ বাড়াতে আসছে নতুন মুদ্রানীতি

কুল চাষে স্বাবলম্বী হচ্ছে চাষীরা

সীমান্তে পাকা স্থাপনা নির্মাণে মিয়ানমারের দুঃখ প্রকাশ

নাইক্ষ্যংছড়ি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা উদ্বোধন

চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব সভাপতি কলিম সরওয়ারকে আমিরাতে সংবর্ধনা

রিহ্যাব শারজাহ মেলায় অংশ নিচ্ছে ৫০ কোম্পানি ও ১০ ব্যাংক

হোপ হসপিটালে পোড়া রোগীদের সার্জারি ক্যাম্প

রামু কলেজে উগ্রবাদ-সহিংসতা প্রতিরোধে বিতর্ক প্রতিযোগিতা ও ওরিয়েন্টেশন

আওয়ামী লীগের সঙ্গে সম্পর্ক নেই ওলামা লীগের

বিয়েতে সৌদি নারীদের পছন্দের শীর্ষে বাংলাদেশি পুরুষরা

চুরি যাওয়া মোবাইল লক করে দেওয়ার সেবা চালু করছে বিটিআরসি

মহেশখালীতে বসতি উচ্ছেদ করে কয়লাবিদ্যুৎ প্রকল্পের রাস্তা নির্মাণ, উৎকন্ঠা

ফেরিওয়ালা