বার্তা পরিবেশক:
রামুর দক্ষিণ মিঠাছড়ি পানের ছড়ায় দিন দুপুরে অবৈধ অস্ত্র নিয়ে হামলা চালিয়ে শিক্ষকের বসতঘর দখলে নিয়েছে সন্ত্রাসিরা। গতকাল ১৫ জানুয়ারি ভোরে পশ্চিম পানের ছড়া উলু ঘোনা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। রামু থানার পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে এবং স্থানিয় চেয়ারম্যান ঘটনার সত্যতা স্বিকার করেছেন। এ ঘটনায় সন্ত্রাসি হামলার পরিকল্পনাকারি সাবেক মেম্বার ফরিদুল আলমকে প্রধান করে রামু থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন ক্ষতিগ্রস্থ ও হামলার শিকার শিক্ষক কলিম উদ্দিন।

হামলার শিকার লিংক রোড পাবলিক স্কুলের শিক্ষক কলিম উদ্দিন জানান, পশ্চিম পানেরছড়ার তাদেও দীর্ঘদিনের পৈত্রিক ভিটা দখলের অপচেষ্টা চালিয়ে আসছিল একই এলাকার মৃত সুলতান আহমদের পুত্র দ. মিঠাছড়ি ইউনিয়নের সাবেক মেম্বার ফরিদুল আলম। এ নিয়ে স্থানিয় ইউনিয়ন পরিষদে উভয়ের মধ্যে সালিশ ও চলমান । কিন্তু গতকাল ভোরে সবার অজান্তে উক্ত মেম্বার অবৈধ অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে ৮/৯ জন সন্ত্রাসি নিয়ে জায়গা দখল করতে যায়। কলিমের পরিবারের লোকজন ঘুমে থাকায় এবং মা ষাটোর্ধ ফাতেমা বেগম ফজরের নামাজ পড়তে উঠলে তার উপর হামলা চালায়। বাড়ি ভাংচোর করে হামলায় অংশ নেয়া ফরিদ মেম্বারের পুত্র রশিদও স্থানিয় হাকিম, হালিম,হামিদ, নুর আলম, মফিদ ও মিজান। সন্ত্রাসিরা বাড়ির মহিলাদের মারধর করে লুটতরাজ চালিয়েছে বলে ও কলিম জানান।

ঘটনার খবর পেয়ে রামু থানা পুলিশের এ এসআই দেলোয়ার হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। স্থানিয় চেয়ারম্যান মোঃ ইউনুচ ভুট্টো ঘটনার সত্যতা স্বিকার করে বলেন, বিষয়টি আমার পরিষদে ১৯ জানুয়ারি বিচারের তারিখ নির্ধারিত ছিল কিন্তু ফরিদ মেম্বার তা অমান্য করে বাড়ি দখলের যে অপচেষ্টা চালিয়েছে তা কখনো কাম্য নয়। হামলার শিকার পরিবার সন্ত্রাসিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের দাবি জানিয়েছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •