আবদুল মজিদ , চকরিয়া :

চকরিয়ায় ফের মোটর সাইকেল চুরির হিড়িক পড়েছে। দিন-রাত প্রার্থক্য বিহীন, প্রকাশ্যে কিংবা অপ্রকাশ্যে মুহুর্তের মধ্যেই চুরি করে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে ব্যবহৃত মোটর সাইকেল। কিন্তু সংশ্লিষ্ট প্রশাসন লোক দেখানো অভিযান চালালেও বাস্তবে এর কোন সুফল ভূক্তভোগীরা পাচ্ছেনা। ফলে আস্কারা পেয়ে যাচ্ছে চিহ্নিত এসব মোটর সাইকেল চোর সিন্ডিকেট।

চকরিয়া উপজেলার পশ্চিম বড়ভেওলা ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের দরবেশকাটা গ্রামের মৃত এখলাছুর রহমানের পুত্র ইফরানুর রহমান (৩৫) জানিয়েছেন, তিনি চলতি মাসের ১ জানুয়ারী হতে চকরিয়া পৌরসভা ৪নং ওয়ার্ডের সবুজবাগ আবাসিক এলাকার হাকিম পয়েন্ট ৫ম তলার ১৪নং প্লট বাসা ভাড়া নেন। তার ব্যবহৃত টিবিএস আরটিআর ১৫০ সি.সি মোটর সাইকেল (নং চট্টমেট্টো ল-১৩-১৭০৮, ইঞ্জিন নং ৪০৯২১৫৪ গাড়ীটি গত ৫ জানুয়ারী দুপুর ১২টার দিকে বাসার নীচে তালাবদ্ধ করে রেখে দুপুরের খাবার খাওয়ার জন্য যান। খাবার খেয়ে নীচে নেবে দেখেন দিনদুপুরেই অভিনব পন্থায় তার মোটর সাইকেলটি চুরি করে নিয়ে গেছে। তিনি জানিয়েছেন, চকরিয়ায় মোটর সাইকেল চোর সিন্ডিকেট এত সক্রিয় ও শক্তিশালী যে, তা মুহুর্তের মধ্যেই অজ্ঞাত স্থানে চলে গেছে। যার কারণে সম্ভাব্য বিভিন্ন স্থানে খোজ নিয়েও কোথাও পাওয়া যায়নি। এনিয়ে তিনি আইনী সহায়তা চেয়ে ৬ জানুয়ারী’১৮ইং চকরিয়া থানায় সাধারণ ডায়েরী নং ৩৩৪ দায়ের করেছেন। তার এখনো আশা কেউ যদি মোটর সাইকেলটির সন্ধান দেন তাকে উপযুক্ত পুরস্কৃত করবেন।

জানাগেছে, এর কয়েকদিন পূর্বে চকরিয়া হাইয়েস মাইক্রোবাস মালিক সমিতির সহসভাপতি কামরুল হাসান কাইছারের ব্যবহৃত মোটর সাইকেলটি চুরি করে নিয়ে গেছে মোটর সাইকেল চোর সিন্ডিকেট। এর পূর্বে থানা সেন্টার থেকে চুরি করে নিয়ে গেছে চকরিয়া থানার উপপরিদর্শক গাজী মো. মাঈন উদ্দিনের ব্যবহৃত মোটর সাইকেলটি। এভাবে জানা-অজানা অন্তত অর্ধ শতাধিক মোটর সাইকেল গত কয়েক মাসে চুরি করেছে এই সিন্ডিকেট। মোটর সাইকেল চুরির হিড়িক পড়লেও সংশ্লিষ্ট প্রশাসন পালন করছে নিরব দর্শকের ভূমিকা। ফলে চরম আতংকের মধ্যে রয়েছে সাধারণ মোটর সাইকেল ব্যবহার কারীরা।

চকরিয়া থানার ওসি (তদন্ত) মো: মিজানুর রহমান জানিয়েছেন, চিহ্নিত মোটর সাইকেল চোর সিন্ডিকেটকে ধরতে এবং চোরাই মোটর সাইকেল উদ্ধারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •