কচ্ছপিয়ায় কর্মসূচির কাজে অনিয়ম, বেতন না পেয়ে অনাহারে দেড়শ পরিবার

মোঃ জয়নাল আবেদীন টুক্কু, নাইক্ষ্যংছড়ি।
কর্মসংস্হান কর্মসূচী (ইজিপিপি) এর আওতায় অতিদরিদ্রের জন্য সরকার ৪০ দিনের কর্মসূচীর প্রকল্প গ্রহন করেন, যা সারা বাংলাদেশের গ্রাম অঞ্চলে এ প্রকল্পের মাধ্যমে সরকার রাস্তাঘাটের উন্নয়ন কাজ করে সফল হলেও কচ্ছপিয়া ইউনিয়নে অনিয়মের কারণে নষ্ট হচ্ছে বর্তমান এ সরকারের ভাবমূর্তি। পাশাপাশি এই কাজ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে এলাকার অতিদরিদ্র মানুষও। সরেজমিনে গিয়ে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গত ১৬ ডিসেম্বর থেকে কচ্ছপিয়া ইউনিয়নে ৪০ দিনের এই কর্মসূচীর কাজ শুরু হয়। সরকারি নিয়ম অনুযায়ী ১ থেকে ৯ ওয়ার্ডের অতিদরিদ্র ২২৪ জন লোক নিয়োগ করা হলেও কাজ করে মাত্র ১৪০ অথবা সর্বোচ্চ ১৫০ জন। এর মাঝে আবার কোন কোন দিন মোটেও কাজ করেনা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আওয়ামীলীগের এক প্রভাবশালী নেতা এই প্রতিবেদককে জানান, রামু উপজেলার কচ্ছপিয়াতে দূর্নীতিবাজ জনপ্রতিনিধিদের পকেট ভারী করতে চলছে এসব অনিয়ম। তিনি আরো জানান, দেড় শত জনের মত মানুষ কাজ করে তিন সপ্তাহ কাজের টাকা না পেয়ে কেউ ধার করে সংসারের ভরণপোষণ চালাছে, আবার কেউ অনাহারে অর্ধাহারে দিন যাপন করছে। এসব বিষয় নিয়ে কর্মসূচীর কাজের এক মাঝির সাথে আলাপ করা হলে তিনি বলেন যত দেরিতে টাকা ওঠায় তত মেম্বার চেয়ারম্যনদের লাভ। কারণ শুনেছি একবার টাকা ওঠালে অনেক অফিসারকে ভাগ দিতে হয় তাই ৪০ দিনে দুইবার ওঠালে তাদের লাভ বেশি হয়। এ জন্য খেটে খাওয়া মানুষ গুলো কষ্ট পাচ্ছে। গত কয়েক দিন ধরে এ প্রতিবেদক সরেজমিনে গেলে এসব অনিয়মের খবরে অভিযুক্ত জনপ্রতিনিধিদের মাঝে তোলপাড় শুরু হয়। ২ ওয়ার্ড মেম্বার জয়নাল আবদীনের ০১৪১৫১৫৬৪১৫ নং মোবাইলে জানতে চাইলে তিনি বলেন বৃষ্টিপাতের আশংকায় লোকজন মঙ্গলবারে কাজে আসেনি, তবে মঙ্গলবারের কাজ বৃহস্পতিবার করে দিবেন বলে এ প্রতিবেদককে জানান। এসব বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের প্রতিনিধি (ট্যাক) অফিসারের দায়িত্বে থাকা উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা জহিরুল ইসলাম থেকে জানতে চাইলে তিনি গত মঙ্গলবার কাজ না করার কথা স্বীকার করে বলেন বুধবার প্রতিটি ওয়ার্ডে গিয়ে দেখতে পায় ১নং ওয়ার্ডে ১৩, দুই নম্বরে ১৮, তিন নম্বারে ২০, চার নম্বরে ১৬, পাঁচ নম্বরে ২৬, ৬ নম্বরে ১১, সাত নম্বরে ১৪, আট নম্বরে ১৮ ও নয় নম্বরে ১১ জনসহ মোট ১৪৭ জন লোক কাজ করেন। গত ২৮ ডিসেম্বর কচ্ছপিয় ১ নং ওয়ার্ডে মাত্র দুইটি স্থানে ৮ জন লোক কাজ করার ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান আবু ইসমাঈল মোঃ নোমানকে মোবাইলে তোলা ছবি দেখানো হলে তিনি সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড মেম্বারের কাছে মোবাইলে খবর নেন। স্থানীয়রা দূর্নীতি ও অনিয়মের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

cbn
কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

জীবনে সফল হতে চান? আজ থেকেই পবিত্র কোরআনের চার পরামর্শ মেনে চলুন

প্রাথমিক-ইবতেদায়ির বৃত্তির ফল মার্চের প্রথম সপ্তাহে

আইসিসির নতুন প্রধান নির্বাহী ভারতীয় মানু সনি

জামায়াতের মনোযোগ সংগঠনে

কী ঘটতে যাচ্ছে ব্রিটেনে?

বদলে গেছে ফারজানা ব্রাউনিয়ার জীবন

আত্মসমর্পণ করতে যাচ্ছে বদির ভাই ও স্বজনেরা

হিফজুল কুরআন প্রতিযোগিতায় দারুল আরক্বমের দুই ছাত্রের কৃতিত্ব

প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা হলেন সালমান এফ রহমান

রাখাইনে আবারো সঙ্ঘাতের শঙ্কা, জাতিসঙ্ঘ দূতের সফর স্থগিত

কী হচ্ছে তাবলীগ জামাতের অভ্যন্তরে? সমস্যার সমাধান ভারতে?

সাংবাদিক আমানুল্লাহ কবীর আর নেই

থেরেসার ব্রেক্সিট চুক্তি পার্লামেন্টে প্রত্যাখ্যান

কেনিয়ায় জঙ্গি হামলায় নিহত ১১

ধুলায় ধূসর রামু কলেজ গেইট, দুর্ভোগ পথচারী ও শিক্ষার্থীদের

পেকুয়া প্রেসক্লাব সভাপতি ছফওয়ানুলকে মিথ্যা মামলায় আসামি,সাংবাদিকদের নিন্দা

প্রবাসের মাটিতে বাংলাদেশের মুখ উজ্জ্বল করেছেন ক্রীড়াবিদ তৌহিদ

চকরিয়া-পেকুয়ার সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে আধুনিক পাঠশালায় পরিণত করা হবে

কালারমারছড়ায় অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্তদের উপজেলা প্রশাসনের ঢেউটিন বিতরণ

ব্যবসায়ীদের সদাচারী হতে বললেন পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন