কক্সবাজারে এক লাখ কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ চলছে

আব্দুল আলীম নোবেল:

কক্সবাজার জেলায় প্রায় এক লাখ কোটি টাকার ৪০ প্রকল্পের কাজ চলমান রয়েছে। এইসব প্রকল্পের কাজ চলছে দ্রুতগতিতে। দেশের সর্ববৃহত প্রকল্পটিও কক্সবাজারে হচ্ছে। ৪০ প্রকল্পের এর বাহিরেও নানা খাতে উন্নয়নমুলক কাজ হচ্ছে এখানে। আওয়ামী সরকার দ্বিতীয় মিয়াদেরও শেষ করতে পারিনি অনেক প্রকল্প। সরকারের হাতে আর বেশি দিন সময় না থাকায় এইসব বড় বড় প্রকল্প গুলির কাজ এই মিয়াদে শেষ করতে পারবে কি না অনেকই সংশয় প্রকাশ করছে। বিশেষত কারণে এই জেলায় সরকারের ব্যাপক উন্নয়নকে সাধুবাদ জনিয়েছে এলাকাবাসী। এই সরকার পূণরায় ক্ষমতায় না আসলে বিশাল অংকের এই প্রকল্পের কাজ শেষ হওয়ার বিষয়ে নেতিবাচক প্রভাব পড়তে পারে এমনও অনেকের ধারণা। কারণ অতীতে বাংলাদেশের রাজনৈতিক প্রক্ষেপট এমন দৃশ জানা আছে সাধারণ মানুষের কাছে।

জেলায় ৪০ প্রকল্প সমূহ হল, কক্সবাজার মহেশখালী ও পেকুয়া উপজেলার ১৩ মৌজার ৮৩.৪৫১০ একর জমির আওতায় জিটিসিএল সংস্থার মহেশখালী আনোয়ারা গ্যাস সঞ্চালন পাইফ লাইন প্রকল্প । যেটি ২০১৩ সালের দিকে কার্যক্রম শুরু হয়েছিল। বর্তমানে দখল হস্থান্তর করা হয়েছে এবং ক্ষতিপূরণ কার্যক্রম শেষে দিকে বলে জানাগেছে। এছাড়া একই উপজেলায় ১৪৯.৭৫ একর জমি নিয়ে আরেকটি মহেশখালী আনোয়া গ্যাস চঞ্চালন প্রকল্পের কাজ চলছে। অপর দিকে দেশে সর্ববৃহত প্রকল্প মহেশখালী মাতারবাড়ি ও ধলঘাটা মৌজার আওতায় ১৪১৪.৬৫ একর জমি নিয়ে কোল পাওয়াও জেরারেশন কোম্পানী বাংলাদেশ লিমিটেড ১২০০ মেগাওয়াট কয়লা ভিত্তিক তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্প। একই উপজেলায় বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড ৫৫৭৯.৬০৩৫ একর জমির আওতায় ৮৩২০ মেগাওয়াট এল এন জি ও কয়লা ভিত্তিক তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্প। কুতুবদিয়া উপজেলার বড়ঘোপ মৌজার ৫.০০ একর জমিতে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ডের জন্য জমি অধিগ্রহরণ। উখিয়া ও টেকনাফ উপজেলায় মেরিন ড্রাইভ সড়ক নির্মাণ প্রকল্প। যেটির কাজ অনেকটা শেষ পর্যায়ে। তবে এখনও জমি অধিগ্রহণের সকল টাকা বুঝিয়ে পায়নি জমি মালিকরা। তবে এই প্রকল্প সমুহ বিভিন্ন দ্বাপে নির্মাণ কাজ করেছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী।

মহেশখালী মাতারবাড়ি মৌজার আওতায় ১১৯৭.৮৮ একর জমি নিয়ে নির্মিত হচ্ছে ৭০০ মেগাওয়াটে আল্ট্র সুপার ক্রিটিক্যাল কোল র্ফায়ার্ড নতুন বিদ্যুৎ কেন্দ্র। পেকুয়া উপজেলার মনামা মৌজায় ৩৩৩.৭৩ একর জমির নিয়ে হচ্ছে নৌবাহিনী সাব-মেরিন ঘাঁটি নির্মাণ প্রকল্প। একই উপজেলায় করিয়ারদিয়া মৌজার ১৩৬৮.৮২ একর জমিতে হচ্ছে ইজিসিবির ১২০০ মেগাওয়াটের আরেকটি কয়লা ভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র মির্মাণ প্রকল্প। কক্সবাজার মৌজায় ২৪.৯৫ একর জমির নিয়ে বিমান বন্দ প্রকল্পের কাজ চলছে পুরোদমে। মহেশখালী ধলঘাটা, কালারমারছড়া মৌজায় ৩২.৪০৩০ একর জমিতে ইনস্টেলেশন মুরিং অব সিঙ্গেল পয়েন্ট । একই উপজেলায় ২৪৫.০৮ একর জমিতে আরেকটি ইনস্টেলেশন মুরিং অব সিঙ্গেল পয়েন্ট প্রকল্প। ৬০.৫০ একর জমিতে টেকনাফ উপজেলার সাবরাং মৌজায় সাবরাং ট্যুারিজম এসইজেট স্থাপন প্রকল্প। উখিয়ারঘাট এলাকায় ২.২০৪০ একর জমিতে হচ্ছে বাংলাদেশ-মিয়ানমার মৈত্রী সড়ক(বালুখালী-ঘুমধুম) প্রকল্প।

কক্সবাজার তোতকখালী মৌজার ০.৪০০০ একর জমিতে হচ্ছে বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড এর আওতায় কক্সবাজার-২, ৩৩/১১ কেভি, ১০ এমবিএ বৈদ্যুতিক উপকেন্দ্র নির্মান প্রকল্প। কুতুবদিয়া উপজেলার দক্ষিণ ধুরুং এলাকায় ১.৫০ একর জমিতে নির্মিত হচ্ছে কুতুবদিয়া উপজেলা টেকনিক্যাল স্কুল। কক্সবাজার নোনাছড়িতে ২৯.৮৫ একর জমি নিয়ে বাংলাদেশ

ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের আওতায় ক্রীড়া স্কুর নির্মাণ প্রকল্প। তার পাশাপাশি এলাকা পানিরচড়া মৌজায় ২.৫২৯ একর জমিতে জিটিসিএল গ্যাস সঞ্চালন পাইপ লাইন ফ্যাসিরিটিজ নির্মাণ প্রকল্প। মাতারবাড়ি মৌজায় ৩.৬৯ একর জমিতে হচ্ছে সিপিজিসিএল কর্তৃক ভুমিহীনদের পূর্ণবাসন প্রকল্প। মহেশখালী ঠাকুরতলা মৌজার ৫.০০ একর জমিতে হচ্ছে কোস্ট গার্ড স্টেশন মহেশখালী স্থাপন প্রকল্প। উখিয়া ইনানীতে ০.৩২ একর জমিতে হচ্ছে আরেকটি পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড। টেকনাফ মৌজায় ২ একর জমিতে নির্মিত হচ্ছে টেকনিকেল স্কুল। মহেমখালী ধলঘাটা মৌজায় ৪.৩৭৩০ একর জমিতে মাতারবাড়ি ২এক্স ৬০০ মেগাওয়াট আল্ট্রাসুপার সম্প্রাসরণ প্রকল্প। এছাড়া দোহাজারী রামু ঘুমদুম সিঙ্গেল লাইন মিটার গেজ ট্রাক নির্মাণ প্রকল্প। ৩ প্রকল্প জমির পরিমাণ(৩৬১.৫৪৭১,২৮৪.৯২৭৩,২১৮.৯৯৭১)। মহেশখালী হেতলিয়ায় ৪১.৭৫০০ একর জমিতে হচ্ছে মহেশখালী অর্থনৈতিক অঞ্চল। মাতারবাড়িতে ৭.৬৯৬৫ একর জমিতে আরেকটি ক্রিটিক্যাল কোর ফায়ার্ড পাওয়ার প্লান্ট নির্মাণ প্রকল্প। টেকনাফ-শাহপরীর দ্বীপ সড়ক প্রশস্থকরণ ও শক্তিশালী করণ প্রকল্প। ১.৫৫০০ একর জমিতে নির্মিত হচ্ছে রামু উপজেলা কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র । ১৪.৮৫ একর জমিতে মাতারবাড়ি সংযোগ সড়ক উন্নয়ন প্রকল্প। ০.৩৩ একর জমিতে কুতুবদিয়া উপজেলা ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশন স্থাপন। ০.০৮২৬ একর জমিতে হচ্ছে উখিয়া উপজেলায় মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন নির্মাণ প্রকল্প। পেকুয়া উপজেলায় ৩.০০ একর জমিতে নির্মিত হচ্ছে এল ও এস টাওয়ার স্থাপন প্রকল্প। ২৩.০২৬৬ একর জমিতে নির্মিত হচ্ছে কক্সবাজার খুরুমকুল বাঁকখালী নদীর উপর কস্তুাঘাট ব্রীজ ও সংযোগ সড়ক। টেকনাফ সাবরাং এলাকায় ০.৪০ একর জমিতে নির্মিত হচ্ছে ৩৩/১১ কেভি, ১০ এমবিএ বৈদ্যুতিক উপ-কেন্দ্র। মহেশখালী চকরিয়ার ৪টি মৌজায় মাতারবাড়ি কয়লা নির্ভর বিদ্যুৎ উপ কেন্দ্র(সওজ অংশ) জমির পরিমাণ ১৩.৭৪৯। ৫৪১.৬১ একর জমিতে মহেশখালী ধলঘাটা এলাকায় মহেশখালী অর্থনৈতিক অঞ্চল-৩। সর্বশেষ মহেশখালী চকরিয়ায় ৪টি মৌজায় ১৪.৯২৫ একর জমিতে মাতারবাড়ি কয়লা ভিত্তিক বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্প(সওজ অংশ) এর অধিনে নির্মিতব্য সড়ক ও সেতুর এপ্রোচ সড়ক নির্মাণ প্রকল্প। কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মোঃ আলী হোসেন বলেন, একটি প্রকল্পেও ৫০ হাজার কোটি টাকার কাজ হচ্ছে। বর্তমানে প্রায় একশত হাজার কোটি টাকার কাজ চলমান রয়েছে কক্সবাজারে।

কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

অপরাধ দমনে চট্টগ্রামে আইপি ক্যারা বসাচ্ছে সিএমপি পুলিশ 

বিশ্ব ইজতেমা স্থগিত হয়নি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়

রামুতে ৩৮ হাজার ইয়াবার ট্রাক সহ আটক ২

খুরুস্কুল বাসীকে কাঁদিয়ে চির বিদায় নিল মেধাবী ছাত্র মিশুক

টেকনাফে অভিযানেও থামছে না ৩ ভাইয়ের ইয়াবা বানিজ্য

পেকুয়ায় চাঁদার দাবীতে দোকান সংস্কারে বাধা ও ভাংচুর

গণমাধ্যম ও সাংবাদিকদের সহযোগিতা চেয়েছেন মেয়র মুজিবুর রহমান

চকরিয়ায় সুরাজপুর আলোকশিখা পাঠাগার’র চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা পুরস্কার বিতরণ ও গুণীশিক্ষক সংবর্ধনা

কক্সবাজার ক্রীড়া লেখক সমিতির কমিটি গঠিত

সাংবাদিক বশিরের মাতার জানাযা সম্পন্ন বিভিন্নমহলের শোক

বিজিবি ক্যাম্প এলাকায় সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ডের প্রামান্য চিত্র প্রদর্শন

টেকনাফ সাংবাদিক ফোরাম’র আহবায়ক কমিটি গঠিত

কক্সবাজার-৩ আসনে বিএনপির মনোনয়নপত্র জমা দিলেন অধ্যাপক আজিজ

“দুখরে রোগে ও ভয় পায়!”

নিরাপদ জীবনে ফিরতে চায় ইয়াবা ব্যবসায়ীরা

রোববার থেকে বিএনপির সাক্ষাৎকার শুরু

মিয়ানমারে শতাধিক রোহিঙ্গা গ্রেফতার

বিএনপি নেতা আবু সুফিয়ান (চট্টগ্রাম-৮) আসনে মনোনয়নপত্র নিলেন

কক্সবাজার-২ আসনে কারাবন্দী আবুবকরের পক্ষে মনোনয়ন ফরম জমা

ঈদগাঁওতে ইউনিক পরিবহন ও টমটমের মুখোমুখি সংঘর্ষে আহত ৪