এম আবুহেনা সাগর, ঈদগাঁও:

ককসবাজার সদর উপজেলার ঈদগাঁওতে এক ছাত্রলীগ নেতার উপর হামলার ঘটনায় দুইজনের বিরুদ্বে মামলা করা হয়েছে সদর মড়েল থানায়।

এজাহার সূত্রে মতে , ১৯ ডিসেম্বর বিকেলে ঈদগাঁওর ভাদীতলার আবদুল গনির পূত্র ও ওর্যাড় ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক ফরিদুল আলম বাড়ী হতে মোটর সাইকেল যোগে ঈদগাঁও বাজারে যাওয়ার পথে ভাদিতলাস্থ জৈনক এক ব্যাক্তির দোকানে সামনে পৌছলে একই এলাকার সৈয়দ নুরের পূত্র মোহাম্মদ রায়হান ও স্ত্রী রাহানু বেগমসহ বেশ কজন অঞাতনামা লোক পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ফরিদের পথরোধ করে। এমনকি তাকে হত্যার লক্ষে ধারালো দা দিয়ে মাথা লক্ষ্য করে স্বজোরে কোপ মারলে ঐ কোপ তার মাথার বাম পার্শ্বে লেগে মারাত্বক রক্তাক্ত ও হাঁড় কাটা জখম হয়।

আবার মোটর সাইকেল ভাংচুর করে প্রায় পচিশ হাজার টাকার ক্ষয়ক্ষতি করে এবং তাকে মামলা মোকাদ্দমা না করার হুমকি দিয়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। তার উপর নাক্কারজনক হামলার ঘটনায় ঐদিনই ফরিদুল আলম বাদী হয়ে রায়হান ও রাহানু বেগমসহ অঞাতনামা কয়েকজনকে আসামী করে ককসবাজার সদর মড়েল থানায় একটি মামলা দায়ের করে।

এ ব্যাপারে উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক আবুহেনা বিশাদ জানান, তৃনমুল ছাত্রলীগ নেতা ফরিদের উপর বর্বরোচিত হামলাকারীদের অবিলম্বে গ্রেফতার করা হউক। প্রসাশন যদি আসামীদের গ্রেফতার করতে ব্যর্থ হয় তাহলে ছাত্রসংগঠন ছাত্রলীগ বৃহত্তর কর্মসুচী ঘোষনা করতে বাধ্য হবে বলেও উল্লেখ করেন।

অন্যদিকে মামলার বাদী জানান, আসামী রায়হান বিদেশে পালিয়ে যাওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিয়েছে, তাকে দ্রত গ্রেফতার করা হোক। অপরদিকে ঈদগাঁও পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনর্চাজ মিনহাজ মাহমুদ ভুইয়া আসামীদের গ্রেফতার অভিযান অব্যাহত আছে বলে জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •