সিবিএন ডেস্ক:
নাটোরের বাগাতিপাড়ায় কামরুল হাসান নামের এক যুবককে পিটিয়ে উলঙ্গ করেছে উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আলিফ মাহমুদ। ওই যুবকের অপরাধ তিনি ছাত্রলীগ নেতার নির্দেশমতো মাদক সরবরাহ করেননি।

সোমবার সন্ধ্যায় উপজেলার মালঞ্চি পেরাবাড়িয়া বাজারে কামরুল নামে ওই যুবককে ডেকে এনে মারধরের এক পর্যায়ে তাকে উলঙ্গ করা হয়।

চুয়াডাঙ্গায় এসআইয়ের ওপর হামলা
কামরুল পার্শ্ববর্তী লালপুর উপজেলার চকমোব গ্রামের ওমর মণ্ডলের ছেলে।

এদিকে কামরুলকে পিটিয়ে উলঙ্গ করার ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে এলাকায় ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। অভিযুক্ত আলিফ মাহমুদের বিরুদ্ধে থানায় একাধিক অভিযোগ রয়েছে বলে স্থানীয়রা জানান। অলিফ বাগাতিপাড়া উপজেলার মহিলা কলেজের শিক্ষক ফিরোজ আলীর ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, কামরুল টাকার বিনিময়ে উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আলিফ মাহমুদকে মাদকদ্রব্য সরবরাহ করতো। সম্প্রতি তাদের মধ্যে সম্পর্কের অবনতি হয়। এর জেরে সোমবার সন্ধ্যায় কামরুলকে নিজের অফিসে ডেকে আনে আলিফ। এ সময় ফের সে মাদক সরবরাহ করার প্রস্তাব দিলে কামরুল অস্বীকৃতি জানায়। এরই এক পর্যায়ে কামরুলকে উলঙ্গ করে মারধর করতে থাকে ছাত্রলীগ নেতা আলিফ।

কামরুল নিজেকে রক্ষা করতে উলঙ্গ অবস্থায় চিৎকার করে ছুটে বাইরে বেরিয়ে আসেন। এ দৃশ্য দেখে আশপাশের লোকজন একটা চাদর দিলে তিনি তা পরেন।

এ অভিযোগ সম্পর্কে ছাত্রলীগ নেতা আলিফ ঘটনার কথা স্বীকার করে বলেন, “সে শুধু কামরুলের জামাকাপড় খুলে রেখে দেয়, দিগম্বর করেনি। সিগারেট কেনার ৫০০ টাকা চুরি করায় কামরুলকে এ শাস্তি দেয়া হয়েছে।”

বাগাতিপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, “গণমাধ্যমকর্মীদের কাছ থেকে বিষয়টি শুনে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়।”

স্থানীয় সংসদ সদস্য আবুল কালাম আজাদ বলেন, ঘটনাটি তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য পুলিশকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।”

নিউজবাংলাদেশ.কম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •