হাফেজ মুহাম্মদ কাশেম, টেকনাফ:
২৯ লক্ষ ৫৭ হাজার ৮০০ টাকা মুল্যের ৯ হাজার ৮২১ পিস ইয়াবা বড়ি, মোবাইল ফোন বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের মুদ্রাসহ মিয়ানমার নাগরিক ২ জন রোহিঙ্গাকে আটক করেছে বিজিবি। ইয়াবাসহ গ্রেপ্তারকৃত রোহিঙ্গারা হলেন মংডু আশিক্কাপাড়া মৃত আবুল হোসেনের পুত্র বাছের (৩০) এবং খায়ংখালী জাফর আহমদের পুত্র রিয়াজুল হক (২৫)। নিষিদ্ধ ঘোষিত মাদক ইয়াবা ট্যাবলেট বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে নিজেদের দখলে রাখা এবং অবৈধভাবে সীমান্ত অতিক্রম করে মিয়ানমার হতে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশের দায়ে ধৃত আসামীদের বিরুদ্ধে টেকনাফ মডেল থানায় পৃথক দুইটি মামলা দায়ের করতঃ জব্দকৃত ইয়াবা ট্যাবলেট, মোবাইল ফোন এবং মিয়ানমারের কিয়াটসহ তাদেরকে টেকনাফ মডেল থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।

টেকনাফ-২ বিজিবি’র অধিনায়কের পক্ষে অতিরিক্ত পরিচালক শরীফুল ইসলাম জোমাদ্দার ২৫ ডিসেম্বর জানান ‘২৪ ডিসেম্বর বিকাল ৫টায় ২ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নের অধীনস্থ টেকনাফ বিওপির হাবিলদার মোঃ আশরাফুল আলমের নেতৃত্বে একটি টহল দল হেচারখাল বরাবর নাফ নদীর কিনারায় নিয়মিত টহলে গমন করে। আনুমানিক রাত ৯টায় টহল দল মিয়ানমার হতে একটি নৌকা হস্তচালিত নৌকা বাংলাদেশের দিকে আসতে দেখে আরও কাছে আসার জন্য অপেক্ষারত থাকে। কিছুক্ষণ পর নৌকাটি হেচারখাল বরাবর নাফ নদীর কিনারায় পৌঁছলে ২ জন ব্যক্তি একটি বালতিসহ নৌকা থেকে নদীর পাড়ে নামার সাথে সাথে টহল দল তাদের চ্যালেঞ্জ করে। এমতাবস্থায় ইয়াবা পাচারকারীরা দৌঁড়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে টহল দল অক্লান্ত পরিশ্রম করে তাদেরকে উল্লেখিত বালতিসহ আটক করতে সক্ষম হয়। পরবর্তীতে তাদের সাথে থাকা বালতিটি তল্লাশী করে বালতির ভেতরে চাউলের নীচে অভিনব পদ্ধতিতে লুকায়িত অবস্থায় ২৯ লক্ষ ৪৬ হাজার ৩০০ তিনশত টাকা মূলমানের ৯ হাজার ৮২১ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, ১১ হাজার টাকা মূল্যমানের ২টি মোবাইল ফোন এবং বাংলাদেশী নগদ ৫০০টাকা ও মিয়ানমারের নগদ ৩ হাজার কিয়াট উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। নিষিদ্ধ ঘোষিত মাদক ইয়াবা ট্যাবলেট বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে নিজেদের দখলে রাখা এবং অবৈধভাবে সীমান্ত অতিক্রম করে মায়ানমার হতে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশের দায়ে ধৃত আসামীদের বিরুদ্ধে টেকনাফ মডেল থানায় পৃথক দুইটি মামলা দায়ের করতঃ জব্দকৃত ইয়াবা ট্যাবলেট, মোবাইল ফোন এবং মায়ানমারের কিয়াটসহ তাদেরকে টেকনাফ মডেল থানায় সোপর্দ করা হয়েছে’।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •