নিজস্ব প্রতিবেদক
বেকারত্ন দূর করতে আত্নকর্মসংস্থান প্রশিক্ষণ নিতে হবে। নিজেকে দক্ষ করা ছাড়া দেশ ও নিজের জন্য কোন কল্যাণ বয়ে আনবেনা। সরকারের উন্নয়নমূখী কর্মসূচির কারণে বেকার জনগোষ্ঠির কর্মসংস্থান বাড়ছে।
রবিবার (২৪ ডিসম্বের) সকালে সামাজিক পর্যায়ে অভিবাসন বিষয়ক বিরোধ নিষ্পত্তি করার জন্য ইপসা-ফেয়ারার লেবার ইন মাইগ্রেশন প্রকল্পের মতবিনিময় সভায় এ অভিমত প্রকাশ করা হয়।
জানানো হয়, অনেক অভিবাসী শ্রমিক জানে না সে কি কাজ করবে? বা কত টাকা বেতন পাবে? এ ব্যাপারে তার কোন ধারণা থাকে না বা জানতে চায় না। তাদের এই অজ্ঞতাকে বিশেষ শ্রেণী পুঁিজ করে সর্বহারা করছে। এ ক্ষেত্রে প্রতারকচক্র থেকে সাবধান হতে হবে। জেবে বোঝে বিদেশ যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিতে হবে। যাওয়ার আগে সংশ্লিষ্ট কাজে প্রশিক্ষণ নিতে হবে। সভায় এডভোকেট সাইফুদ্দিন খালেদ নামে এক ব্যক্তির প্রতারণামূলক অনেক তথ্য ও অভিযোগ ওঠে আসে।
কক্সবাজার সদরের ঝিলংজা হর্টিকালচার কনফারেন্স রুমে সভায় শ্রম অভিবাসনের সাথে সংশ্লিষ্ট সরকারি, বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ,আইনজীবী, সমাজকর্মীসহ বিভিন্ন প্রশিক্ষণ সেন্টারের প্রতিনিধিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। ইপসার উক্ত প্রকল্পের জিএমসি মেম্বার সাজেদা বেগম এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বেসরকারী উন্নয়নসংস্থা নোঙ্গরের নির্বাহী পরিচালক দিদারুল আলম রাশেদ।
তিনি বলেন, আমদানি খরচ বাদ দিলে গার্মেন্টস এর আগেই অভিবাসন আয় হবে বাংলাদেশ সরকারের আয়ের প্রধান উৎস। দক্ষ জনশক্তির অভাবে আমাদের দেশের শ্রমিকরা অন্যান্য দেশের শ্রমিকদের তুলনায় কম মজুরি পায়। প্রতিযোগীতামূলক বিশ্বে টিকে থাকতে হলে দক্ষ জনশক্তির কোন বিকল্প নেই। তাই আমাদের দক্ষ হয়ে বিদেশ যেতে হবে।
বিশেষ অতিথি বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট অইনজীবী এডভোকেট নজরুল ইসলাম খান, সমাজকর্মী আব্দুল্লাহ আল মামুন। অন্যান্যদের মধ্যে সাংবাদিক ইমাম খাইর, আরফাতুল মজিদ, আব্দুল আলিম নোবেলসহ সুশীল সমাজের গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।
অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য ও ফেয়ারার লেবার ইন মাইগ্রেশন প্রকল্পের অর্জন ও শিক্ষনীয় বিষয় দিক তুলে ধরেন, প্রকল্পের এসোসিয়েট রিসার্স এন্ড লার্নিং অফিসার মুহাম্মদ আবু তাহের। তিনি আরো বলেন ইপসা-এফএলএম প্রজেক্ট সঠিক অভিবাসন সর্ম্পকে জনগণকে সচেতন করবে ও অভিবাসন বিষয়ক বিরোধ নিস্পত্তিতে জনগণকে অনুপ্রেরণা জোগাবে । ইতিমধ্যে ঝিলংজা ্ও ঈদগ্ওাতে উক্ত প্রকল্পের কার্যক্রম শুরু হয়েছে।
সভাপতির বক্ত্যবে সাজেদা বেগম বলেন, পৃথিবীর প্রায় ৬৫ টি দেশে বাংলাদেশের এক কোটির উপর মানুষ অভিবাসী শ্রমিক হিসেবে কাজ করছেন। এদের অর্জিত টাকায় পরিচালিত হচ্ছে এদেশের অর্থনীতি। তাই এবিষয়ে সরকারকে আরো উদ্যোগী হতে হবে। উল্লেখ্য, ইপসা-ফেয়ারার লেবার ইন মাইগ্রেশন প্রকল্পটি বান্তবায়নে সহযোগিতা করছে ব্রিটিশ কাউন্সিল ও প্রমোটিং নলেজ ফর একাউন্টবল সিষ্টেম (প্রকাশ)।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •