হাফিজুল ইসলাম চৌধুরী :

৪৬ বছর আগে ১৬ ডিসেম্বর পাকিস্তানি ঘাতক বাহিনী সম্মূখসমরে পরাজিত হয়ে হেঁট মস্তকে দাঁড়িয়ে ছিল বীর বাঙালির কাছে। তাই লাল সবুজের এই উৎসবের দিনে বর্ণিল শোভাযাত্রা বের করেছে নাইক্ষ্যংছড়ির বাইশারি তদন্তকেন্দ্র পুলিশ। গত শনিবার বাঙালির জীবনের সবচেয়ে আনন্দের দিনটি বাইশারির পুলিশ সদস্যরা উদযাপন করেছে ভিন্নভাবে। প্রত্যুষে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পনের পর জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে দিবসের কর্মসূচির সূচনা করেন তাঁরা। লাল-সবুজের জাতীয় পতাকা হাতে নিয়ে, বাদ্যযন্ত্রের তালে তালে দেশের গান বাজিয়ে পুলিশ সদস্যরা- বাইশারির প্রধান প্রধান সড়কে বিজয় শোভাযাত্রা বের করেন। পরে পুলিশ তদন্তকেন্দ্র মিলনায়তনে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে পুলিশ সদস্য ও উপস্থিত লোকজনকে দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী পড়ে শোনান বাইশারি পুলিশ তদন্তকেন্দ্রের দায়িত্বরত উপপরিদর্শক (এসআই) আবু মুসা। এসময় আবু মুসা তাঁর বক্তব্যে বিজয় দিবসকে বাঙালি জাতির জীবনে সবচেয়ে গৌরবোজ্জ্বল অধ্যায় হিসেবে উল্লেখ করেন। তিনি বক্তব্যের শুরুতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ স্বাধীনতা যুদ্ধের সকল বীর সেনানী, শহীদ ও সম্ভ্রমহারা মা-বোনদের প্রতি পরম শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। বিশেষ করে মুক্তিযুদ্ধে নারীদের অপরিসীম আত্মত্যাগের ওপর বিশেষভাবে আলোকপাত করেন। পুলিশের এই আয়োজনে খুশি সর্বমহল।

উল্লেখ্য, সোমবার বিকেলে বাইশারি উচ্চবিদ্যালয় মাঠে বিজয় দিবস উপলক্ষে পুলিশ সদস্যদের আয়োজনে প্রীতি ফুটবল ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •