তাজুল ইসলাম পলাশ, চট্টগ্রাম :

সদ্য প্রয়াত চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সাবেক সিটি মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর কুলখানী উপলক্ষে চট্টগ্রামের ৮০ হাজার নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষের জন্য মেজবানের প্রস্তুতি চলছে।

পারিবারিক সূত্র জানা যায়, আগামীকাল ১৮ ডিসেম্বর সোমবার চট্টগ্রামের ১১ টি স্বনামধন্য কনভেনশন হলে এ মেজবান অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া মহিউদ্দিন চৌধুরীর বাসভবন ২ নং গেইটের চশমা হিলে মহিলাদের জন্য আলাদা ব্যবস্থা করা হবে।

হিন্দু, বৌদ্ধ খ্রীস্টান ও অন্যান্য ধর্মের অনুসারীরে জন্য মেজবানের আয়োজন করা হয়েছে জামাল খান এলাকার রীমা কনভেনশন সেন্টারে। মোট ৮০ হাজার মানুষের মেজবান খাওয়ানো হবে।

যে সব স্থানে মেজবানের আয়োজন করা হয়েছে সেগুলো হলো, চট্টগ্রাম নগরীর পাঁচলাইশ থানার বিপরীতে দি কিং অব চিটাগাং, জিইসি মোড়ের কে স্কয়ার কমিউনিটি সেন্টার, চকবাজারের কিশলয় কমিউনিটি সেন্টার, পাঁচলাইশ আবাসিক এলাকায় অবস্থিত সুইসপার্ক কমিউনিটি সেন্টার, লাভলেইন সড়কের স্মরণিকা কমিউনিটি সেন্টার, মোহাম্মদপুরের এন মোহাম্মদ কনভেনশন হল, বাকলিয়া থানা এলাকার কেবি কনভেনশন হল, কাজীর দেউরি এলাকার ভিআইপি ব্যাংকুইট কমিউনিটি সেন্টার, সাগরিকা স্কয়ার ও ডবলমুরিং থানা এলাকার গোল্ডেন টাচ কমিউনিটি সেন্টারে মেজবানের আয়োজন করা হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে মহিউদ্দিন চৌধুরীর ব্যক্তিগত সহকারী মোহাম্মদ ওসমান গণি জানান, এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর জন্য নগরীর ১১টি কমিউনিটি সেন্টার ও চশমা হিলের বাসভবনে জেয়াফত উপলক্ষে মেজবানের আয়োজন করা হয়েছে। এতে আশি হাজার মানুষের খাবারের আয়োজন করা হয়। তাছাড়া রীমা কমিউনিটি সেন্টারে হিন্দু বৌদ্ধ খ্রীস্টান ও অন্যান্য ধর্মের অনুসারীদের জন্য পৃথক ব্যবস্থা থাকবে। মহিলাদের জন্য চশমা হিলের বাসভবনে ব্যবস্থা করা হবে।

প্রসঙ্গত: গত ১৫ ডিসেম্বর রাতে নগরীর মেহেদিবাগের ম্যক্স হাসপাতালে মারা যান ৩ বার নির্বাচিত সিটি মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী।
গতকাল শুক্রবার বিকেলে লালদিঘী ময়দানে লাখ লাখ মানুষের উপস্থিতিতে জানাজা শেষে সন্ধ্যায় চশমা হিলের পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। মৃত্যু কালে তার বয়স হয়েছিল ৭৩ বছর। তাঁর মৃত্যুতে চট্টগ্রামে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন ও মহানগর আওয়ামীলীগ ৩ দিনের শোক কর্মসূচি পালন করছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •