বিজয় দিবসে মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মাননা জানালো টুয়াক

প্রকাশ: ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৭ ১২:৩৫ , আপডেট: ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৭ ১২:৪৯

পড়া যাবে: [rt_reading_time] মিনিটে


জয়বাংলা বাহিনী-৭১ এর কমান্ডার বীর মুক্তিযুদ্ধা কামাল হোসেন চৌধুরীর হাতে সম্মাননা ক্রেস্ট তুলে দিচ্ছেন সাংসদ আশেক উল্লাহ রফিক।

প্রেস বিজ্ঞপ্তি:
দেশের ৪৬ তম বিজয় দিবস বর্ণাঢ্য আয়োজনে উদযাপন করেছে কক্সবাজার পর্যটনসেবীদের শীর্ষ সংগঠন ট্যুর অপারেটস অব কক্সবাজার- টুয়াক। বিজয় দিবস উদযাপনে মূল কর্মসূচী হিসেবে স্বাধীনতা যুদ্ধেল লড়াকু সৈনিক বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মাননা জানিয়েছে সংগঠনটি। এই উপলক্ষ্যে ‘বীর মুক্তিযোদ্ধাদের ও সংগঠকদের সম্মননা এবং মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিচারণ শীর্ষক’ এক অনুষ্ঠানে আয়োজ করা হয়। রাত ৮টায় সাগরপাড়ের টল লাবণীর হলরুমে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। উক্ত অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ২১ জন মুক্তিযোদ্ধা ও নয় জন মুক্তিযুদ্ধের সংগঠককে সম্মাননা দেয়া হয়। সম্মাননা হিসেবে তাঁদের প্রত্যেককে ক্রেস্ট প্রদান করা হয়েছে।

টুয়াকের আহ্বায়ক এমএ হাসিব বাদলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মহেশখালী-কুতুবদিয়া আসনের সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ রফিক। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জয়বাংলা বাহিনী-৭১ কমান্ডার মুক্তিযোদ্ধা কামাল হোসেন চৌধুরী, সাবেক জেলা কমান্ডার মোহাম্মদ আলী, জেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক মুফিজুর রহমান, কক্সবাজার পৌর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নজিবুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক কাজী শামীম আহামদ মোস্তাক, টুয়াকের মধ্যপ্রাচ্য প্রতিনিধি আবুল হোসেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ রফিক বলেন, মুক্তিযোদ্ধারা জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান। তাদেরকে সম্মান করলেই স্বাধীনতা ও বিজয়ের স্বাদ পরিপূর্ণ হবে। তাই মুক্তিযোদ্ধাদের যথাযথ সম্মান জানাতে হবে আমাদের। আর ২০ বছর পর হয়তো এসব বীর সন্তানেরা আর বেঁচে থাকবেন না। তখন চাইলেও তাদেরকে সম্মান জানাতে পারবেন না। তখন আফসোস ছাড়া আর কিছু করা যাবে না।

তিনি আরো বলেন, ‘বীর বাঙালীর শ্রেষ্ঠ সন্তানেরা নিজেদের জীবনকে তুচ্ছ করে বঙ্গবন্ধুর ডাকে সাড়া দিয়ে দেশের জন্য ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন বলেই আমরা আমরা স্বাধীন হতে পেরেছি। বঙ্গবন্ধু না হলে এই অর্জন সম্ভব হতো না। একজন যোগ্য নেতার অভাবে পৃথিবীর অনেক স্থানের মানুষ শত বছর ধরে সংগ্রাম করেও স্বাধীনতা পাচ্ছে না।’

অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন টুয়াকের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আসাফ উদ দৌলা আশেক। উপস্থাপনা করেন ইদ্রিস আলী। বে বেঙ্গল ট্যুরিজমের এমডি তোফায়েল আহামদের সহযোগিতায় এই সম্মাননা দেয়া হয়।  এর আগে সকালে শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও পতাকা উত্তোলন করেন টুয়াকের নেতৃবৃন্দরা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •