‘বুদ্ধিজীবী হত্যাকারীদের অনেকেই স্বাধীন দেশে পুনর্বাসিত’

এম.মনছুর আলম,চকরিয়া:

চকরিয়া শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

১৪ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তন হলরুম”মোহনায়”উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নুরুদ্দীন মুহাম্মদ শিবলী নোমানের সভাপতিত্বে বুদ্ধিজীবি দিবসের উক্ত আলোচনা সভা অনুষ্টিত হয়।আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন চকরিয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব জাফর আলম বিএ(অনার্স)এম এ।এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন চকরিয়া পৌরসভার মেয়র মো.আলমগীর চৌধুরী,উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ফাঁসিয়াখালী ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম আজাদ,চকরিয়া থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা প্রতিনিধি হিসেবে উপ-পরিদর্শক (এস আই) তানবির আহমেদ,জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক ত্রাণ বিষয়ক সম্পাদক আলহাজ্ব নুরুল আবচার,জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য আমিনুর রশিদ দুলাল,চকরিয়া উপজেলা সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ফরিদুল আলম,উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মো.আতিক উল্লাহ,উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ছরওয়ার আলম,ছৈয়দ আলম কমিশনার,সাংগঠনিক সম্পাদক মিজবাহউল হক প্রমূখ।বুদ্ধিজীবি দিবসের আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন,মাতামুহুরী সাংগঠনিক থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও পশ্চিম বড় ভেওলা ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সিরাজুল ইসলাম বাবলা,চিরিংগা ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব জসিম উদ্দিন, কোনাখালী ইউপি চেয়ারম্যান দিদারুল হক সিকদার,কাকারা ইউপি চেয়ারম্যান শওকত ওসমানসহ ১৮ইউপি চেয়ারম্যানবৃন্দ সরকারি-বেসরকারি অফিসের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ,সাংবাদিক ও চকরিয়া সিটি কলেজের ছাত্র-ছাত্রীরা উপস্থিত ছিলেন।

শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি আলহাজ্ব জাফর আলম বলেন,এ দেশকে মেধা শূণ্য করতে ৭১ সালের ১৪ ডিসেম্বর বুদ্ধিজীবিদের হত্যা করা হয়। ১৯৭১ এর ডিসেম্বর মাসে স্বাধীনতা যুদ্ধের শেষ পর্যায়ে এসে পাকিস্তান বাহিনী যখন বুঝতে শুরু করে যে তাদের পক্ষে যুদ্ধে জেতা সম্ভব না, তখন তারা দেশকে সাংস্কৃতিক, সামাজিক ও শিক্ষাগত দিক থেকে দূর্বল এবং পঙ্গু করে দেয়ার পরিকল্পনা অংশ হিসেবে বুদ্ধিজিবীদের হত্যা করা হয়। দেশকে মেধাশূন্য করতেই পরিকল্পিতভাবে বুদ্ধিজীবীদের এ হত্যা করা হয়েছিল।তিনি আরো বলেন,বুদ্ধিজীবী ও পেশাজীবী হারানোর ক্ষতি আমরা আজও অনুভব করি, সে অভাব পুরন হবার নয়। আমাদের যে এতটা বছর লেগে যাচ্ছে উন্নতির সিঁড়িতে পা রাখতে, বুদ্ধিজীবী হত্যাকাণ্ড তার একটি অনুকরণ ও অনুসরণ।আজ এই স্বাধীনতার ৪৭ বছর পরও দেখতে হয়, সেই সব বুদ্ধিজীবীদের যারা হত্যা করেছে তারা অনেকেই স্বাধীন বাংলাদেশের সমাজে ও রাজনীতিতে পুনর্বাসিত হয়েছে।যারা এ দেশের নিরপরাধ মানূষদের নৃশংসভাবে হত্যা করে নগ্ন উল্লাস করেছিল সেই সব পাকিস্তানি প্রেতাত্মারা আজও স্বাধীন বাংলাদেশের মাটিতে সক্রিয়।এটা আমাদের জন্য সবচেয়ে বড় লজ্জার।

কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

এই জনপদটি ইয়াবা নামক বিষ বৃক্ষের আবক্ষে নিম্মজ্জিত : সকলের সহযোগিতা প্রয়োজন

যুগ্মসচিব হলেন কক্সবাজারের সন্তান শফিউল আজিম : অভিনন্দন

ধর্মীয় শিক্ষা মানুষের মাঝে মূলবোধের সৃষ্টি করে-এমপি কমল

কক্সবাজার সদর মডেল থানা পুলিশের অভিযানে ১৪জন আসামী গ্রেফতার

কক্সবাজার জেলা পুলিশকে আইসিআরসির ২৫০ বডি ব্যাগ হস্তান্তর

চকরিয়ায় পল্লীবিদ্যুতের ভুতুড়ে জরিমানা নিয়ে আতঙ্ক!

ঈদগাঁওয়ে পাহাড় কাটার দায়ে এক নারীকে ১ বছর কারাদন্ড

শুধু চালককে অভিযুক্ত করে লাভ নেই আমাদেরও সচেতন হতে হবে-ইলিয়াছ কাঞ্চন

মাওলানা সিরাজুল্লাহর মৃত্যুতে জেলা জামায়াতের শোক

কক্সবাজারের ৩দিন ব্যাপী ‘প্রাথমিক চক্ষু পরিচর্যা’ কর্মশালার উদ্বোধন

‘ঘরের ছেলে’র বিদায়ে ব্যথিত পেকুয়াবাসী

শিল্পী ফাহমিদা গ্রেফতার : জামিনে মুক্ত

‘মাশরুম একটি অসীম সম্ভাবনাময় ফসল’

তথ্য প্রযুক্তি’র সেবা সাধারণের দোরগোড়ায় পৌঁছাতে সরকার বদ্ধ পরিকর : শফিউল আলম

চট্টগ্রামে জলসা মার্কেটের ছাদে ২ কিশোরী ধর্ষণ, গ্রেপ্তার ৬

কোটালীপাড়ায় নিজ জমিতে অবরুদ্ধ ৬১ পরিবার : মই বেয়ে যাদের যাতায়াত

জামায়াত নেতা শামসুল ইসলামকে গ্রেফতারের প্রতিবাদ ও মুক্তি দাবী

দুর্ঘটনারোধে সচেতনতার বিকল্প নেই : ইলিয়াস কাঞ্চন

Google looking to future after 20 years of search

ইবাদত-বন্দেগিতে মানুষ যে ভুল করে