মাহবুবুর রহমান :

দু দফা রেফারীর উপর সমর্থকদের হামলা, দুই ইউনিয়নের সমর্থকদের মধ্যে হট্টগোলের কারনে ঝিলংজা ইউনিয়ন ও চৌফলদন্ডি ইউনিয়নের মধ্যকার আজকের খেলা ১-১ গোলে ড্র হয়েছে। কক্সবাজার সদর উপজেলা ক্রীড়া সংস্থা কতৃক আয়োজিত আন্তঃইউনিয়ন ফুটবল খেলার প্রথমার্ধের শেষ ম্যাচে মুখোমুখি হয় ঝিলংজা ইউনিয়ন এবং চৌফলদন্ডি ইউনিয়ন। এবারের টুর্নামেন্টের সব চেয়ে দর্শক হওয়া খুরুশকুল ডেইল পাড়া মাঠে খেলার শুরুতেই দুই দলই আক্রমন পাল্টা আক্রমন করে খেলে। তীব্র উত্তেজনাপূর্ন খেলায় প্রথমার্ধের ৮ মিনিটে ডি বক্সের ভেতর থেকে ৮ নং জার্সিধারী খেলোয়াড় একটি চমৎকার সটে গোল করে ঝিলংজা দলকে এগিয়ে নেয়। এতে অফসাইটের আবেদন করে চৌফলদন্ডির খেলোয়াড়রা। তবে গোল মেনে নিয়ে খেলতে থাকে। রেফারী আবুল কাশেম বিরতির বাশি দিলে চৌফলদন্ডির সমর্থক এবং খেলোয়াড়রা রেফারীকে মারতে উদ্দত হয়ে আসে। এ সময় অনেক চেস্টায় কিছুটা নিয়ন্ত্রন করা গেলেও । বিরতি থেকে ফিরে চৌফলদন্ডির খেলোয়াড়রা চমৎকার বোঝাপড়ার মধ্য দিয়ে আক্রমনে নাস্তানাবুদ করে ফেলে ঝিলংজার খেলোয়াড়দের। এতে খেলা দ্বিতীয়ার্ধের ২৫ মিনিটে চৌফলদন্ডির ১২ নং জার্সি ধারী খেলোয়াড় গোল করলে খেলায় সমতা আনে। এ সময় ঝিলংজা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান টিপু সুলতান নিজে মাঠে নেমে রেফারী আবুল কাশেমকে মারতে তেড়ে আসে। এতে ঝিলংজা ইউনিয়নের অসংখ্য সমর্থক মাঠে নেমে এলোপাতাড়ি মারামারি করতে থাকে। এ সময় চৌফলদন্ডি ও ঝিলংজা ইউনিয়নের সমর্থকদের মধ্যে কয়েক দফা হামলা পাল্টা হামলা হয়। আধাঘন্টা সময় পরে পরিস্থিতি কিছুটা নিয়ন্ত্রনে আসে। এতে চরম বিশৃংখলার মধ্যে দিয়ে খেলা শেষ হয়।

এ ব্যাপারে ভেন্যু কমিটির সভাপতি ও খুরুশকুল ইউপি চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন বলেন এটা খুবই দুঃখ জনক ঘটনা। খেলায় হারজিত আছে সেটা মেনে নেওয়া সবার উচিত। এক প্রতিক্রিয়ায় ঝিলংজা ইউপি চেয়ারম্যান টিপু সুলতান বলেন রেফারী ইচ্ছা করে খেলাকে দীর্ঘ করেছে অনেক আগেই খেলার নির্ধারিত সময় শেষ হয়েছে। তবে রেফারী আবুল কাশেম বলেন আমার কাছে নিধারিত সময়ের ঘড়ি আছে। খেলার নির্ধারিত সময় ছিল আরো ৪ মিনিট । এর পরে অতিরিক্ত সময় মিলিয়ে আরো ৭/৮ মিনিটের মত খেলা আছে। এর মধ্যে রেফারীকে আক্রমন করতে আসা এটা খুবই দুঃখ জনক।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •