সাবেক রাষ্ট্রপতি ও বিকল্প ধারার প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরীকে চেয়ারম্যান করে চারটি ছোট রাজনৈতিক দলের সমন্বয়ে গঠন করা হয়েছে ‘যুক্তফ্রন্ট’ নামে একটি রাজনৈতিক জোট। দলগুলো হলো—বিকল্প ধারা, জেএসডি, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ ও নাগরিক ঐক্য। সোমবার রাতে জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রবের বাসায় এই জোটের ঘোষণা দেওয়া হয়। তবে এই জোটে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন গণফোরাম নেই। জেএসডি সাধারণ সম্পাদক আবদুল মালেক রতন বাংলা ট্রিবিউনকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

জোট গঠনের বিষয়ে জানতে চাইলে অধ্যাপক বি চৌধুরী বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরেই চেষ্টা করছি। এই জোট চার দলীয় বা পাঁচ দলীয় কোনও জোট হবে না। যারা গণতন্ত্রে বিশ্বাস করেন, যারা জনগণের ভাগ্যে পরিবর্তনে বিশ্বাস করেন, তাদের সবাইকে আমরা আহ্বান করব।’
যুক্তফ্রন্টের নতুন চেয়ারম্যান আরও বলেন, ‘সবার জন্য এই জোটের দুয়ার খোলা। এটা কোনও লিমিটেড দলের জোট নয়। দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তনের স্বার্থে জোট করেছি। যেন গ্রামের মানুষের উন্নয়ন হয়, তারা যেন খেতে পায়, পরতে পারে, গণতন্ত্রকে গ্রাম পর্যন্ত বিস্মৃত হয় ও দেশে যেন সত্যিকার অর্থে একটি শান্তিপূর্ণ বাংলাদেশ হয়, এটাই আমাদের টার্গেট।’
এক প্রশ্নের উত্তরে বি চৌধুরী জানান, ‘ড. কামাল হোসেন বলেছেন, নিজস্ব কিছু পদ্ধতি তাদের আছে। তারা বলেছেন, এই মুহূর্তে আপনাদের সঙ্গে নেই। তবে তারা বলেছেন, আপনাদের সভা-সেমিনার হলে আমন্ত্রণ জানালে আমরা থাকব। সুতরাং, তাদের নিজস্ব পলিসির কারণে তারা নেই।’
জোটের পক্ষ থেকে ডিএনসিসি নির্বাচনে প্রার্থী দেওয়া হবে কিনা, এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, এসব এখন বইলেন না, লোকে খারাপ ভাববে।

জানতে চাইলে নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘‘ড. কামাল হোসেন বলেছেন, তিনি কোনও জোটে থাকবেন না। তাই গণফোরামকে এই জোটে রাখা হয়নি। তিনি বর্তমানে থাইল্যান্ডে রয়েছেন।’’

বিকল্প ধারা, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ, জেএসডি ও নাগরিক ঐক্য নিয়ে গঠিত হয়েছে যুক্তফ্রন্ট  বিকল্প ধারা, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ, জেএসডি ও নাগরিক ঐক্য নিয়ে গঠিত হয়েছে যুক্তফ্রন্ট

জেএসডি সাধারণ সম্পাদক আবদুল মালেক রতন জানান, ‘এর আগে জেএসডি সভাপতি আসম আবদুর রবের বাসায় বৈঠকে বসেন ছোট চারটি দলের শীর্ষ নেতারা। তৃতীয় একটি জোট গঠনের লক্ষ্যে এই ধারাবাহিক আলোচনার অংশ হিসেবেই এ বৈঠক হচ্ছে। সোমবার রাত সাড়ে আটটা থেকে বৈঠক শুরু হয় রবের উত্তরার বাসায়।’ তিনি আরও বলেন, ‘বৈঠকটি হচ্ছে জোট গঠনের ধারাবাহিক আলোচনার অংশ হিসেবে। বৈঠকে অংশ নিতে এরই মধ্যে রবের বাসায় পৌঁছেছেন বিকল্প ধারা সভাপতি বদরুদ্দোজা চৌধুরী, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না। এছাড়া আসম রব ও আবদুল মালেক রতন উপস্থিত আছেন বৈঠকে।’

এ বিষয়ে জানতে চেয়ে যোগাযোগ করা হলে গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি সুব্রত চৌধুরী বলেন,  ‘আমরা এই জোটে নেই। জোট গঠন করা হয়েছে, এটি খুব ভালো খবর। আশা করি ভবিষ্যতে আরও বড় জোট হবে।’

রাতে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের সামনে বি চৌধুরী বলেন, ‘দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা, নির্বাচন নিশ্চিতকরণ ও নানা সংকটের সমাধানের লক্ষ্যে নতুন জোট গঠিত হয়েছে।’
আবদুল মালেক রতন জানান, ‘এক বা দু সপ্তাহ পর সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে জোটের আত্মপ্রকাশ অনুষ্ঠান হবে। ’এই সময়ের মধ্যে জোটের কাঠামো, কর্মসূচি ঠিক করা হবে বলেও জানান তিনি।
এদিকে মাহমুদুর রহমান মান্না বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘নতুন জোট গঠন করায় বি চৌধুরী ও আমাকে ফোন করে অভিনন্দন জানিয়েছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।’

উল্লেখ্য, এর আগে গত ২৬ অক্টোবর বাংলা ট্রিবিউনে ঐক্যের ঘোষণা আসছে ছোট দলগুলোর শীর্ষক প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •