এডভোকেট আ.জ.ম মঈন উদ্দীনের পিতার জানাজায় শোকার্ত মানুষের ঢল

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি
কক্সবাজার জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট আ.জ.ম মঈন উদ্দীনের পিতা জেলা কালেক্টরেট এর অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, শহরের পানবাজার সড়কস্থ হাশেম টাওয়ারের মালিক আলহাজ্ব মোহাম্মদ হাশেমের নামাজে জানাজা সম্পন্ন হয়েছে।
২ ডিসেম্বর বাদে জোহর কেন্দ্রীয় ঈদগাঁও ময়দানে অনুষ্ঠিত জানাজায় ঈমামতি করেন উত্তর নুনিয়াছড়া জামে মসজিদের পেশ ইমাম মাওলানা মোহাম্মদ হোসেন।
জানাজাপূর্ব সংক্ষিপ্ত সবায় বক্তব্য রাখেন- কক্সবাজার রামু আসনের সংসদ সদস্য জনাব সাইমুম সরওয়ার কমল, সরহুমের সহকর্মী অবসরপ্রাপ্ত কালেক্টরেট কর্মকর্তা আবদুল খালেক, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এড. মোঃ ইসহাক, মোস্তফা মিয়া প্রমুখ।
জানাজায় জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এড. সিরজুল মোস্তফা, সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান চেয়ারম্যান, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি প্রবীণ আইনজীবি এড. এ.কে আহমদ.হোসেন, এড. মোঃ জাহাঙ্গীর, ইঞ্জিনিয়ার বদিউল আলম, জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক এড. জিয়া উদ্দিন আহমদসহ বিভিন্ন পেশার সর্বস্থরের মানুষ জানাযায় অংশ গ্রহণ করেন।
জানাযা শেষে বইল¬া পাড়া কবরস্থানে মাতা মরহুম আমিনা খাতুন ও পুত্র মরহুম ডাক্তার আ.ম.ম রফিক উদ্দিন এর কবরের পাশে তাঁকে সমাহিত করা হয়। বিভিন্ন রাজনৈতিক ব্যবাসায়ী ও পেশাজীবী সংগঠন সহ হামেশ টাওয়ার ব্যবসায়ী ও দোকান মালিক সমিতি তার মৃত্যুতে গভীর সমবেদনা প্রকাশ করেন।
আলহাজ্ব মোহাম্মদ হাশেম ১ ডিসেম্বর বেলা সোয়া ১টার দিকে শহরের একটি বেসরকারী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তাঁর স্ত্রী, ৩ মেয়ে ও ৭ ছেলে ছিল। আলহাজ্ব মোহাম্মদ আবুল হাশেম ১৯৮৫ সালে সরকারী চাকুরী থেকে অবসর গ্রহণ করেন। তিনি একজন সফল পিতা।
তার বড় মেয়ে কামরুন্নাহারের স্বামী খুটাখালীর সনামধন্য হোমিও চিকিৎসক প্রফেসর নাজের আহমদ, মেঝ মেয়ে লুৎফুন্নাহারের স্বামী ব্যাংক কর্মকর্তা, ছোট মেয়ে রোকেয়া সোলতানার স্বামী দেশের প্রসিদ্ধ একটি বাইং হাউজের কর্মকর্তা। মরহুমের তিন মেয়েই পাকিস্তান আমলের গ্রেজুয়েড এবং স্বস্ব অবস্থানে প্রতিষ্ঠিত।
বড় ছেলে আ.ন.ম কাশেম আজাদ চট্টগ্রাম কলেজের প্রফেসর, মেজ ছেলে আ.জ.ম মঈন উদ্দীন জেলা বারের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও মানবাধিকার নেতা, সেজ ছেলে প্রফেসর মুফিজুল হক রাঙ্গামাটি সরকারী কলেজের প্রফেসর। এর পরের ছেলেদের মধ্যে মরহুম ডা. রফিক উদ্দীন প্ররিচিত ও বিচক্ষণ চিকিৎসক ছিলেন। আজিম উদ্দীন বিআরডিবি অফিসার, লে.কর্ণেল শফিক উদ্দীন বাংলাদেশ নৌ-বাহিনীতে কর্মরত এবং সর্বকনিষ্ট ছেলে এডভোকেট মহিউদ্দীন জেলা বারের সনামধন্য আইনজীবী। রতœগর্ভা এই পিতার মৃত্যুতে পুরো পরিবারে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। মরহুমের পরিবার ও স্বজনদের পক্ষ থেকে সবার কাছে থেকে দোয়া কামনা করেছেন ছেলে এডভোকেট আ.জ.ম মঈন উদ্দীন।

সর্বশেষ সংবাদ

জিএম রহিমুল্লাহর মৃত্যুতে ছাত্রশিবিরের শোক 

এলাকাবাসীকে কাঁদিয়ে না ফেরার দেশে জননেতা জিএম রহিমুল্লাহ

চকরিয়ায় পিকনিকের বাস উল্টে খাদে পড়ে গার্মেন্টস কর্মী নিহত,আহত অর্ধশত

সাতকানিয়ায় নির্বাচনী প্রচার সামগ্রী অপসারণ

বাংলাদেশি স্বামী পেয়ে সুখী মালয়েশীয় নারীরা

টেকনাফে পুলিশের সাথে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুইজন নিহত

জিএম রহিমুল্লাহর প্রথম জানাযা সম্পন্ন, শোকাহত জনতার ঢল

সৌদিআরবে জিএম রহিমুল্লাহর গায়েবানা জানাজা

মহাজোটের মনোনয়নে ইলিয়াসসহ জাপার ৯ এমপি বাদ!

বৃহস্পতিবারের মধ্যে চূড়ান্ত হতে পারে মহাজোটের আসন বণ্টন

ভোটের আগে ওয়াজ মাহফিল বন্ধ

পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) আজ

নড়াইলে মাশরাফির প্রচারণা শুরু

৬৪ আসনে মনোনয়ন তুলেছে জামায়াত

বিএনপি নেতা রফিকুল ইসলাম মিয়া গ্রেফতার

তিন মাস পর কারামুক্ত শহিদুল আলম

কাবুলে ঈদে মিলাদুন্নবীর জমায়েতে বোমা হামলায় নিহত ৪০

হেফাজত কাউকে সমর্থন দেবে না : আল্লামা শফী

কক্সবাজার শহরে যানজট নিরসনে জেলা পুলিশের চেকপোস্ট স্থাপন

নির্বাচনী সমীকরণ : আসন কক্সবাজার-৪