এম.এ আজিজ রাসেল:

কাল ১২ই রবিউল ২ ডিসেম্বর পবিত্র ঈদ-এ-মিলাদুন্নবী (সাঃ)। প্রায় এক হাজার ৪০০ বছর আগে এই দিনে আরবের মরু প্রান্তরে মা আমিনার কোল আলো করে জন্ম নিয়েছিলেন বিশ্বনবী হজরত মুহাম্মদ (সা.)। আবার এই দিনে তিনি পৃথিবী ছেড়ে চলে যান।

আইয়ামে জাহেলিয়াতের অন্ধকার দূর করে তৌহিদের মহান বাণী নিয়ে এসেছিলেন এই মহামানব। প্রচার করেছেন শান্তির ধর্ম ইসলাম। তাঁর আবির্ভাব এবং ইসলামের শান্তির ললিত বাণীর প্রচার সারা বিশ্বে আলোড়ন সৃষ্টি করে।

ইসলাম ধর্মমতে, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ মহামানব হজরত মুহাম্মদ (সা.) নবুয়তের সিলসিলায় শেষ নবী। তাঁর জন্ম ও ওফাত দিবস ১২ রবিউল আউয়াল মুসলমানদের কাছে এক পবিত্র দিন। মুসলমান সম্প্রদায় দিনটি পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) হিসেবে পালন করেন। বছর ঘুরে এল আবার সেই দিন।

সারা আরব বিশ্ব যখন পৌত্তলিকতার অন্ধকারে ডুবে গিয়েছিল, তখন মহান আল্লাহ পাক তাঁর পেয়ারা হাবিব বিশ্বনবী (সা.)-কে বিশ্বজগতের রহমতস্বরূপ পাঠিয়েছিলেন। তিনি ৪০ বছর বয়সে নবুয়ত লাভ করেন। এরপর বিশ্ববাসীকে মুক্তি ও শান্তির পথে আহ্বান জানান। সব ধরনের কুসংস্কার, গোঁড়ামি, অন্যায়, অবিচার ও দাসত্বের শৃঙ্খল ভেঙে মানবসত্তার চিরমুক্তির বার্তা বহন করে এনেছিলেন তিনি। এরপর মহানবী (সা.) দীর্ঘ ২৩ বছর এ বার্তা প্রচার করে ৬৩ বছর বয়সে ইহলোক ত্যাগ করেন। পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) উপলক্ষে সব হাসপাতাল, কারাগার, সরকারি শিশু পরিবার, বৃদ্ধ নিবাস, মাদকাসক্তি নিরাময়কেন্দ্রে উন্নত খাবার পরিবেশনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

যথাযথভাবে পবিত্র দিনটি পালনের লক্ষ্যে জেলায় বিভিন্ন ধর্মীয় ও সামাজিক সংগঠন নানা কর্মসূচী গ্রহণ করেছে। তার মধ্যে জেলা গাউছিয়া কমিটি ও জোহাদিয়া শরীফের যৌথ উদ্যোগে ‘বিশাল জশনে জুলুছে বের করা হবে। আগামী ২ ডিসেম্বর শনিবার সকাল ৯টায় কক্সবাজার শহরের ঐতিহ্যবাহী মাদ্রাসা-এ-তৈয়্যবিয়া তাহেরিয়া সুন্নিয়া মাদ্রাসা প্রাঙ্গন থেকে জশনে জুলুছে বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক পদক্ষিণ করে পুনরায় মাদ্রাসা প্রাঙ্গনে গিয়ে শেষ হবে। সেখানে আখেরী মোনাজাত ও তবরুক বিতরণে মধ্য দিয়ে কর্মসূচীর সমাপ্তি ঘটবে। এছাড়া আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাত নুনিয়াছড়া থেকে জশনে জুলুছে বের করা হবে। এদিকে জশনে জুলুছে সফল করতে ১ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় মাদ্রাসা-এ-তৈয়্যবিয়া তাহেরিয়া সুন্নিয়া মাদ্রাসা মিলনায়তনে সর্বশেষ প্রস্তুতি সভা জেলা গাউছিয়া কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব ওমর সুলতানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তব্য রাখেন জেলা গাউছিয়া কমিটির সাধারণ সম্পাদক জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা আলহাজ্ব শফিকুর রহমান কোম্পানী, সহ-সভাপতি আলহাজ্ব মুহাম্মদ আজিম, সহ-সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক মুহাম্মদ আলী আল কাদেরী, এড. মনির উদ্দিন মনির, আবদুল্লাহ মাসুদ আজাদ, জোহাদিয়া শরীফের পক্ষে সদস্য হাজী নুরুল হক ও আবুল মনজুর সওদাগর। সভা শেষে জশনে জুলুছে এর সফলতা কামনায় মোনাজাত করেন মাদ্রাসা-এ-তৈয়্যবিয়া তাহেরিয়া সুন্নিয়া মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা শাহাদাত হোছাইন আল কাদেরী। বক্তারা যথা সময়ে ধর্মপ্রাণ মুসলামানদের জশনে জুলুছে অংশ নেয়ার আহবান জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •