বিশেষ প্রতিবেদক:

গরীব অসহায় পরিবারের সাড়ে দশ লাখ টাকা নিয়ে উধাও হয়ে গেছে কক্সবাজারের জসিম উদ্দিন নামে এক ব্যবসায়ী। টাকা নিয়ে উদাও হয়ে যাওয়ার ফলে পথে বসতে বসেছেন অসহায় রাশেদ ও তার পরিবারবর্গ। কক্সবাজার শহরের প্রাণকেন্দ্র বাহারছড়া এলাকায় চাঞ্চল্যকর এ ঘটনা ঘটে।

কক্সবাজার মডেল থানায় দেওয়া অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, কক্সবাজার পৌর এলাকার বাহারছড়ার আবু তাহের এর ছেলে মোহাম্মদ রাশেদ পরিবার পরিজন নিয়ে সুখে শান্তিতে বসবাস করে আসছেন। পাশ্ববর্তী পশ্চিম নতুন বাহারছড়া পৌর এলাকায় বসবাসকারী মৃত বজল আহমদ এর ছেলে জসিম উদ্দিন মুদির দোকান ও বিকাশ এজেন্ট হিসেবে মোবাইলের এর দোকান করে আসছিল। রাশেদ এর সরল বিশ্বাসে জসিম উদ্দিন (৪৫) ও তার স্ত্রী আসমা আকতার (৩৫) বিগত ১মার্চ ২০১৫ইং ও ১০সেপ্টেম্বর ২০১৫ইং তারিখে তিন, তিন করে ছয় লাখ টাকা নগদ হাওলাত নেন। এর বিশ্বাস সরূপ জসিম উদ্দিন তার মার্কেন্টাইল ব্যাংক কক্সবাজার শাখার হিসাব নং-০১২৪১১১০০০০৮৫২৮ এর অনুকূলে ০৯৭৭৯৮৬ ও ০৯৭৭৯৮৭ নং তিন লাখ টাকা করে দু’টি চেক প্রদান করেন। চেক দু’টি ব্যাংক কর্তৃপক্ষ রিজেক্ট করে দেয়।

শুধু তাই নয়, রাশেদের মায়ের পৈত্রিক জায়গা বিক্রির সাড়ে চার লাখ টাকা ইসলামী ব্যাংকের কক্সবাজার শাখায় তার নামে এফডি করার পরামর্শ দেন। এতে রাশেদ রাজী না হলে পরে রাশেদের নামেই ব্যাংকে এফডি করে সাড়ে চার লাখ টাকা। এসময় সুচতুর জসিম উদ্দিন ব্যাংক কর্তৃক রাশেদকে দেওয়া এফডি এর মূল কপি তার হাতে রেখে রাশেদকে ফটোকপি ধরিয়ে দেন। কিছুদিন যেতে না যেতেই রাশেদের মোবাইলে ফোন আসে ব্যাংকের লোনের টাকা পরিশোধের জন্য। এতে হতভম্ব হয়ে যান রাশেদ। তড়িগড়ি করে ব্যাংকে এসে দেখেন তার নামে এফডি আরের বিপরীতে পরদিনই চার লাখ টাকা লোন নেওয়া হয়েছে। লোনের কথা সে অস্বীকার করলে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ তার কাগজ পত্র দেখাতে বাধ্য হন। রাশেদ এফডি করার সময় ব্যাংক কর্তৃপক্ষ তার কাজ থেকে ৫/৬টি কাগজে স্বাক্ষরের নেওয়ার কথা জানিয়েছেন।

রাশেদ জানায়, জসিম যেখানে যেখানে আমাকে স্বাক্ষর করতে বলেছেন, আমি সেখানে সেখানে স্বাক্ষর করি। আমার নাম দিয়ে সে সুদাসলে এই সাড়ে চার লাখ টাকাও আত্মসাৎ করে গত ছয় মাস আগে লাপাত্তা হয়ে যায়। এ ঘটনা তার স্ত্রী আসমা আকতারসহ তার পরিবারবর্গ ও পাড়া-প্রতিবেশিরা জানেন। ঘটনার পর প্রতারক জসিম উদ্দিনের স্ত্রীর থেকে স্বাক্ষীগণের সাক্ষাতে পাওনা টাকা চাইতে গেলে সে কাল ক্ষেপন করতে শুরু করে। সর্বশেষ ১৫নভেম্বর টাকা চাইতে গেলে সে টাকা এবং সমস্ত লেনদেনের কথা অস্বীকার করে উল্টো হুমকী-দমকী দেয়।

রাশেদ কোন উপায়ন্তর না দেখে, থানায় অভিযোগ ও কক্সবাজার চীফ জুডিসিয়াল আদালতে

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •