বান্দরবানে শান্তি চুক্তির ২০তম বর্ষপূর্তি উপলক্ষে আনন্দ র‌্যালী

নুরুল কবির বান্দরবান :

পার্বত্য শান্তির চুক্তির ২০ বছর পূর্তী উপলক্ষে বান্দরবানে প্রথমবারের মতো নানা কর্মসূচী শুরু হয়েছে। এসব কর্মসূচীর মধ্যে রয়েছে আনন্দ র‌্যালী, মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্জলন, কেক কাটা, আলোচনা সভা, বিনামূল্যে চিকিৎসা শিবির, শীত বস্ত্র বিতরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। বৃহস্পতিবার সকালে এ উপলক্ষে জেলা প্রশাসক কার্যালয় প্রাঙ্গণ থেকে একটি বর্নাঢ্য র‌্যালী বের করা হয়। র‌্যালীটি শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়কগুলো প্রদক্ষিণ করে। র‌্যালীটিতে বান্দরবানের ১১টি ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীসহ মোট ১২ সম্প্রদায়ের নারী পুরুষ নানা রঙ্গের পোষাক পরে অংশ গ্রহণ করেন। এছাড়া বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র ছাত্রী র‌্যালীতে অংশ নেয়। পরে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সম্প্রীতির মঞ্চে মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্জলন, কেক কাটা, আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। জেলা প্রশাসক দিলীপ কুমার বণিকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বান্দরবান জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্যশৈহ্লা। এসময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের যুগ্ন সচিব মো. শওকত আলী, ডিজিএফআই’র অধিনায়ক লে. কর্নেল আরিফুজ্জামান, পুলিশ সুপার সজ্ঞিত কুমার রায়, আঞ্চলিক পরিষদের সদস্য শফিকুর রহমান, পৌর মেয়র মো. ইসলাম বেবী, জেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক থানজামা লুসাই ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী এর পরিচালক মংনু চিং প্রমুখ। এদিকে, পাবত্য শান্তি চুক্তির বিশ বছরপূর্তী উপলক্ষে আগামী ২ ডিসেম্বর শহরের রাজার মাঠে সেনা রিজিয়নের উদ্যোগে দু দিন ব্যাপী বিভিন্ন কমসুচি পালন করা হবে। এ নিয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে সেনা রিজিয়নে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্টিত হয়। সেনা রিজিয়নের জিএসটু মেজর আবু সাইদ মো: মেহেদী হাসান জানান, ২ডিসেম্বর সকালে গরীব দুঃস্থদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ ও বিনামূল্যে চিকিৎসা শিবিরের ও পরের দিন রোববার বিকালে জেলা স্টেডিয়ামে প্রীতি ফুটবল ম্যাচ এবং সন্ধ্যায় রাজার মাঠে কনসেট অনুষ্টানের হবে।

উল্লেখ, ১৯৯৭ সালের ২ ডিসেম্বর তৎকালীন আওয়ামীলীগ সরকারের সাথে পাহাড়ের আঞ্চলিক রাজনৈতিক দল জন সংহতি সমিতির (জেএসএস) মধ্যে পার্বত্য চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। এর ফলে পাহাড়ে দীর্ঘ দুই দশক ধরে চলা শান্তি বাহিনীর সংঘর্ষ হানাহানি বন্ধ হয়। চুক্তি স্বাক্ষরের দীর্ঘ ১৯ বছর পেরিয়ে গেছে। জেএসএস নেতৃবৃন্দ বলছেন চুক্তিটি রাজনৈতিক হলেও বিভিন্ন সরকার চুক্তির বাস্তবায়ন নিয়ে গড়ি মসি করেছে। দীর্ঘ সময়েও চুক্তির মৌলিক ও গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো বান্তবায়িত হয়নি। ফলে পাহাড়ে ভূমি সমস্যাসহ নানা সমস্যাগুলো ক্রমেই বাড়ছে। বাড়ছে জটিলতা। তবে সরকারি দল আওয়ামী লীগের নেতারা বলছেন চুক্তির গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো এবং বেশির ভাগ বিষয়ই বান্তবায়িত হয়েছে। বরং জেএসএসের অসহযোগিতার কারনে চুক্তির অন্যান্য বিষয়গুলো বাস্তবান করা যাচ্ছে না।

কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

ক্যান্সার চিকিৎসায় কত লাগে?

সরকারের সেবায় সোনালী ব্যাংকের ক্ষতি হাজার কোটি টাকা

যেসব আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী চূড়ান্ত

ঈদগাঁওতে মাধ্যমিক শিক্ষকদের এমপি ও কউক চেয়ারম্যানের সহযোগিতার আশ্বাস

কাঁচা মরিচের অনেক ঔষধি গুণ রয়েছে। এবার কাঁচা মরিচের ৫ গুণ জেনে নিন

কোটি কোটি টাকার আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর এখন ধ্বংসস্তূপ!

মুখ ধোওয়ার সময় যে ভুল করবেন না

তুরস্কে মেঘ আর মসজিদের মিতালি!

মালয়েশিয়ায় ব্যাপক ধর-পাকড়, ৫৫ বাংলাদেশি আটক

কক্সবাজার থেকে ফটোশুট ফেরত মডেলের গাড়িতে পৌনে দুই লাখ ইয়াবা!

ওবায়দুল কাদের আসছেন আজ

ডুলাহাজারার আশরাফ উদ্দিন কাউখালী থানার ওসি

একান্ত সাক্ষাৎকারে অতি. পুলিশ সুপার ইকবাল হোসাইন : অপরাধীর সাথে আপোষ নয়

প্রসঙ্গ : প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চলতি দায়িত্ব

বৃহত্তর ঈদগাঁওয়ের প্রায় ১শ কি.মি সড়ক চলাচলের অনুপযোগী, সেতুমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ

টেকপাড়ায় মাঠে গড়াল বৃহত্তর গোল্ডকাপ ফুটবল টূর্ণামেন্টের ৫ম আসর

মাতারবাড়ী কয়লাবিদ্যুৎ প্রকল্প পরিদর্শনে গেলেন বিভাগীয় কমিশনার

নতুন বাহারছড়ার সেলিমের অকাল মৃত্যু: মেয়র মুজিবসহ পৌর পরিষদের শোক

জেলা আ’ লীগের জরুরী সভা

মাদক কারবারীদের বাসাবাড়ীতে সাঁড়াশি অভিযান, ইয়াবাসহ আটক ৩