গুম হচ্ছে রোহিঙ্গা প্রতিবেদকরা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতনের চিত্র যারা তুলে ধরছেন সেসব প্রতিবেদক গুম হচ্ছেন। এসব ব্যক্তি দেশটির সেনাবাহিনীর লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত হয়েছে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান সোমবার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, ২০১২ সাল থেকে রোহিঙ্গাদের ওপর সেনাবাহিনীর নির্যাতন-নিপীড়নের চিত্র গোপনে ধারণ করতেন তরুণ রোহিঙ্গা স্বেচ্ছাসেবীরা। পরে স্মার্টফোনের মাধ্যমে এসব অডিও-ভিডিও ও স্থির ছবি দেশের বাইরে পাঠিয়ে দেওয়া হতো।

মানবাধিকার সংগঠনগুলোর দাবি, তথ্য সরবরাহের এই নেটওয়ার্ককে ধ্বংস করার জন্য মিয়ানমারের সেনাবাহিনী এইসব প্রতিবেদকদের অনেককে অপহরণ ও হত্যা করেছে। অবরুদ্ধ রাখাইন রাজ্যে কী ঘটছে সে সম্পর্কে জানার সুযোগ এখন তাই অনেক কমে গেছে।

রোহিঙ্গা সম্প্রদায়ের অনলাইন সংবাদমাধ্যম দ্য স্টেটলেস-এ সম্পাদনার কাজ করেন রোহিঙ্গা শরণার্থী মোহাম্মদ রফিক। তিনি জানিয়েছেন, গত বছর ক্র্যাকডাউন শুরুর পর রাখাইনের ৯৫ শতাংশেরও বেশি মোবাইল প্রতিবেদক নিখোঁজ হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘বার্মার সেনাবাহিনী ও রাখাইনের সন্ত্রাসীরা এখনো রোহিঙ্গা গ্রামগুলোতে ধর্ষণ, হত্যা ও অগ্নিসংযোগ অব্যাহত রেখেছে। তবে সেখানে রোহিঙ্গা মোবাইল প্রতিবেদকদের যে নেটওয়ার্ক ছিল তা এখন আর কাজ করছে না। বিশ্বাসযোগ্য সংবাদ পরিবেশনের জন্য সহিংসতার যে বিস্তারিত খবরগুলো আসা প্রয়োজন, তা আর আমাদের কাছে আসছে না।’

রফিক বলেন, ‘আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মীরাও রোহিঙ্গা মোবাইল নেটওার্কের মাধ্যমে সহিংসতা সংশ্লিষ্ট খবরগুলো পেতেন। তারাসহ আমাদের সম্প্রদায়ের সংবাদমাধ্যগুলোও এখন রাখাইনের খবর খুব কম পাচ্ছে।’

বাংলাদেশভিত্তিক রোহিঙ্গা সম্প্রদায়ের মুখপাত্র কো কো লিন জানিয়েছেন, ২০১৬ সালে দুই হাজার মোবাইল প্রতিবেদক রাখাইনে সক্রিয় ছিল। ‘গত বছর রাখাইনে সেনাবাহিনীর অভিযানের সময় মোবাইল প্রতিবেদকরা গ্রামগুলোতে সহিংসতার বিস্তারিত সংবাদ সংগ্রহ করতো। নিরাপত্তা অভিযানের নামে সেনাবাহিনী ও তাদের দোষর স্থানীয় সন্ত্রাসীরা যে সহিংসতা চালাতো তাদের প্রতিবেদনের মাধ্যমে বিশ্ববাসী তা জানতে পেরেছে।’

মোবাইল প্রতিবেদকরা কীভাবে সংবাদ সংগ্রহ করতেন তার বিবরণ দিয়েছেন বাংলাদেশে পালিয়ে আসা নুর হোসেন নামে এক মোবাইল প্রতিবেদক। তিনি বলেছেন, ‘নিরাপত্তা বাহিনী যখন আমাদের গ্রামে প্রবেশ করতো তখন আমরা লুকিয়ে পড়তাম। তারা যখন অভিযান শেষ করে ফিরে যেত তখন আমরা বের হয়ে ঘটনাস্থলের ছবি, নির্যাতনের চিত্র ও অন্যান্য সংশ্লিষ্ট তথ্য মোবাইল ফোনে ধারণ করতাম এবং ইন্টারনেটের মাধ্যমে তাৎক্ষনিকভাবে সেগুলো পাঠিয়ে দিতাম।’

cbn
কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ : হিউম্যান রাইটস ওয়াচ

ঐক্যফ্রন্টের জাতীয় সংলাপ ৬ ফেব্রুয়ারি, থাকছে না জামায়াত

হজযাত্রীদের বিমান ভাড়া কমল ১০ হাজার টাকা

থেমে নেই বাঁকখালী দখল

চকরিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সেবাগ্রহীতাদের তথ্য ও পরামর্শ সেবা

বাড়ছে বিবাহ বিচ্ছেদের ঘটনা

বাংলাদেশে বিতাড়নের প্রতিবাদে সৌদি আরবে অনশন ধর্মঘটে রোহিঙ্গারা

কর্ণফুলীতে সড়ক দুর্ঘটনায় পিডিবির কর্মচারী নিহত

পশ্চিম মেরংলোয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মা সমাবেশ অনুষ্ঠিত

উন্নয়ন কাজের গুণগতমান নিশ্চিতে কঠোর নির্দেশনা রয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার

বিশ্ব হাফেজ গড়ার কারিগর ক্বারী নাজমুলের সাথে দারুল আরক্বমের শিক্ষার্থীদের একদিন

বাংলাদেশের জনপদে ইসলামের আগমন

লামায় টেকনিক্যাল স্কুল প্রতিষ্ঠা করা হবে -জেলা প্রশাসক মো. দাউদুল ইসলাম

লামা মাহিন্দ্র চালক সমিতির সদস্যের মৃত্যুতে ১২ হাজার টাকা সহায়তা প্রদান

এসআইটিতে ‘আইটি ক্যারিয়ার হোক ভিশন ২০২১ পূরণের হাতিয়ার’ শীর্ষক সেমিনার

নুরুল বশর-জালাল-মোবারকসহ কুতুবদিয়া বিএনপি’র ১৪ নেতার জামিনে মুক্তিলাভ

ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হতে চায় মংলা মার্মা

ভাগ্যবান লোকদের আল্লাহ নেয়ামত হিসাবে উপহার দেন কন্যা সন্তান!

চমেকে অচল রেডিওথেরাপি মেশিন : চিকিৎসা না পেয়ে ফিরে যাচ্ছে রোগী

সংরক্ষিত আসনে আ’লীগের মনোনয়ন ফরম নিলেন মনোয়ারা বেগম মুন্নি