চবিতে কাফনের কাপড় পরে আমরণ অনশনে দিয়াজের মা

ডেস্ক নিউজ:

ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতা ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র দিয়াজ ইরফান চৌধুরী হত্যাকারীদের গ্রেফতারের দাবিতে আমরণ অনশন শুরু করেছেন তার মা জাহেদা আমিন চৌধুরী ।

সোমবার (২৭ নভেম্বর) সকাল ৯ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু চত্বরে অবস্থান নিয়ে আসামিদের গ্রেফতারের দাবি জানান তিনি।

এ সময় সেখানে অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে চবি মেডিকেল সেন্টারে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে সেখান থেকে শহীদ মিনারে চলে আসেন তিনি। বেলা ১২টা থেকে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ‘দিয়াজ হত্যার বিচার চাই’ শিরোনামে একটি ব্যানার ও কাফনের কাপড় পড়ে অনশন শুরু করেন দিয়াজের মা।

এ সময় তিনি সাংবাদিকের মাধ্যমে রাষ্ট্রপতির কাছে বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান উপাচার্যের অপসারণের দাবি জানান।

তিনি বলেন, ‘দিয়াজের হত্যা মামলার অন্যতম আসামি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক সহকারী প্রক্টর আনোয়ার চৌধুরী। অথচ খুনি শিক্ষককে প্রমোশন দেয়ার চেষ্টা চলছে। পিএইচডি ডিগ্রী দেয়ার চেষ্টা চালাচ্ছে। খুনের আসামিরা শিক্ষক হতে পারে না।’

জাহেদা আমিন চৌধুরী বলেন, ‘মাটি নিয়ে শপথ করে আসছি। এখান থেকে আমার মরা লাশ নিতে হবে। কাফনের কাপড়ে নিতে হবে। যতক্ষণ পর্যন্ত আসামিরা গ্রেফতার না হয় এখান থেকে সরবো না আমি। যদি এখান থেকে আমাকে টেনে হিঁচড়ে নিয়ে যাওয়া হয়। শহরে প্রেস ক্লাবের সামনে চলে যাব। রাজপথে হাঁটবো। আমাকে নির্যাতন করে মেরে ফেলুক, না হয় আমার ছেলের আসামিদের গ্রেফতার করা হোক।’

২০১৬ সালের ২০ নভেম্বর রাতে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ২ নম্বর গেট এলাকায় একটি ভাড়া বাসা থেকে ওই ছাত্রলীগ নেতার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে ২৪ নভেম্বর আদালতে অভিযোগ (সি আর মামলা) দেন দিয়াজের মা জাহেদা আমিন চৌধুরী।

তবে এক বছর পেরুলেও গ্রেফতার হয়নি কোনও আসামি। দিয়াজের মায়ের করা মামলায় বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের বর্তমান ও সাবেক ১০ নেতা-কর্মীকে আসামি করা হয়। আসামি করা হয় বিশ্ববিদ্যালয়ের তৎকালীন সহকারী প্রক্টর আনোয়ার চৌধুরীকেও। বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের স্থগিত কমিটির সভাপতি আলমগীর টিপু, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আবুল মনসুর জামশেদ, প্রচার সম্পাদক রাশেদুল আলম জিশান, যুগ্ম সম্পাদক আবু তোরাব পরশ, সিনিয়র সহ-সভাপতি মনসুর আলম, সহ-সভাপতি আবদুল মালেক,সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ আরমান,আপ্যায়ন বিষয়ক সম্পাদক মিজানুর রহমান, সহ-সম্পাদক আরেফুল হক অপুও হন আসামি। আসামিরা সবাই চট্টগ্রামের মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দিনের অনুসারী হিসেবে পরিচিত। দিয়াজও ছিলেন নাছিরেরই অনুসারী।

সর্বশেষ সংবাদ

২০২২ সালের মধ্যে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা বোর্ড গঠন

এমপিদের শপথের বৈধতা নিয়ে রিট খারিজ

রাখাইনের মংডুতে তিন আদিবাসীর মৃতদেহ উদ্ধার

রোহিঙ্গাদের চাপে পানের দাম চড়া

পুলওয়ামায় ফের জঙ্গি হামলায় ৪ সেনা নিহত

প্রধানমন্ত্রীর কাছে মহেশখালীর ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের ৮ দাবি

বাংলাদেশ-আমিরাত চারটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর

কক্সবাজার সদরে এসিল্যান্ড শূন্যতায় ভোগান্তি

পুনর্বাসন চায় মহেশখালীর মানুষ

‘নিয়ম ছিল না বলেই বদি আমন্ত্রণ পাননি’

দায়িত্বশীল ছাড়া কারও ডাকে সাড়া নয়

দেশের কোন গোয়েন্দা সংস্থার কী কাজ

কাশ্মিরে নিরাপত্তা বাহিনীর ওপর আবারও হামলা, সেনা কর্মকর্তাসহ নিহত ৬

ই-ফাইলিং এ কক্সবাজার জেলা প্রশাসন সারাদেশে দ্বিতীয়

নাফে মাছ ধরার অনুমতি ও ইয়াবা বন্ধে সীমান্তে কাঁটাতারের বেড়া দিন : এমপি শাহীন আক্তার

সিবিএন এর প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে সৌদি প্রবাসী বিএনপি নেতা ফরিদের শুভেচ্ছা

এমপি বদি’র সাথে ইউএই টেকনাফ সমিতি’র সৌজন্য সাক্ষাৎ

চাকরিচ্যুতির ভয় দেখিয়ে উপজাতি এনজিও কর্মীকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ 

বন্ধ হলো অনলাইনে জুয়া খেলার ১৭৬ সাইট

শাজাহান খানকে সংসদে বেশি কথা বলতে দেয়ায় প্রতিবাদ