নাইক্ষ্যংছড়িতে অপহৃত দু জন এখনো উদ্ধার হয়নি

হাবিবুর রহমান সোহেল,নাইক্ষ্যংছড়ি :

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার দোছড়ি ইউনিয়নের বাঁকখালী মৌজার ছাগল খাইয়া গ্রামের বাসিন্দা মোঃ হোছন (৪২) ও নুরুল আজিম (৩২) গত ২১ নভেম্বর মঙ্গলবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে নিজ বাড়ী থেকে ৮/১০ জনের সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের একটি দল অপহরণ করে নিয়ে যায়। অপহরণের দুইদিন পর অপহৃতদের মোবাইল থেকে ফোন করে পরিবারের সদস্যদের নিকট ৭ লাখ টাকা মুক্তিপন দাবী করে আসছিল সন্ত্রাসীরা। টাকার পরিমাণ কম হলেও এবং যথাসময়ে টাকা পরিশোধ না করলে তাদের হত্যা করা হবে বলেও মোবাইল ফোনে হুমকি দিয়ে আসছিল সন্ত্রাসীরা।অপহৃত মোঃ হোছনের স্ত্রী রাশেদা বেগম জানান, অপহরণের দুইদিন পর মোবাইল ফোনে তার স্বামীর মুক্তিপনের জন্য ৪ লাখ টাকা দাবী করেছিল। গতকাল রবিবারও একইভাবে টাকা দাবী করে এবং না দিলে হত্যার হুমকি দেয়। বৃদ্ধ পিতা ফয়েজ আহাম্মদ কান্নারত অবস্থায় বলেন, তারা কৃষি কাজ করে কোন রকমে ঘর সংসার চালায়। এত টাকা কোথায় পাবে এবং ছেলেকে কিভাবে জিম্মি দশা থেকে মুক্তি করে আনবে ! এ কথা বলে তিনি বিলাপ করে কাঁদতে থাকেন। অপহৃত নুরুল আজিমের স্ত্রী ইছমত আরা বলেন, স্বামীর মুক্তির জন্য ৩ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবী করে সন্ত্রাসীরা। অন্যথায় তাকেও হত্যা করা হবে। অপহৃত নুরুল আজিমের বড় ভাই আমির হোছন জানান, তারা অত্যন্ত গরীব। এত টাকা কোথায় পাবে। কোন রকমে মানুষের জমি বর্গা চাষ করে তাদের সংসার চলে। গতকাল রবিবার এই প্রতিবেদক সরজমিনে গিয়ে দুর্গম দোছড়ি ইউনিয়নের বাঁকখালী মৌজার ছাগল খাইয়া গ্রামে অপহৃতদের আত্মীয় স্বজনের সাথে কথা বলে জানা যায়, অপহরণের পর দুর্গম পাহাড়ে পুলিশ-বিজিবির অভিযান অব্যাহত আছে। তারপরও ৬দিন যাবত তাদের উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। এ নিয়ে উভয় পরিবারের মাঝে উৎকন্ঠায় দিন কাটছে। স্ত্রী-পুত্র, মা-বাবার কান্নায় আকাশ, বাতাস ভারি হয়ে উঠছে। তারা শঙ্কায় রয়েছেন যদি তাদের হত্যা করে ফেলে। তাদের হাতে টাকাও নাই, কোন রকম অল্প কিছু টাকা দ্বার কর্জ্ব করে যোগাড় করেছেন বলে পরিবারের সদস্যরা জানান। আজ দীর্ঘ ৬দিন পার হলেও তাদের উদ্ধার সম্ভব হয় নাই। স্থানীয় ইউপি সদস্য রেহেনা আক্তার জানান, অপহৃত দুইজনের উদ্ধারে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী প্রাণপন চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। সন্ত্রাসীরা মাঝের মধ্যে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে দুইজনের জন্য ৭ লাখ টাকা মুক্তিপন দাবীর কথা তিনি তাদের পরিবারের নিকট শুনেছেন। এ বিষয়ে নাইক্ষ্যংছড়ি থানার নবাগত ইনচার্জ মোঃ আলমগীর শেখ এর নিকট মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি জানান, অপহৃতদের উদ্ধারে পুলিশ-বিজিবির অভিযান অব্যাহত রায়েছে এবং সম্ভাব্য স্থানগুলো ঘেরাও পূর্বক অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। অচিরেই অভিযানের মাধ্যমে উদ্ধার করা সম্ভব বলে তিনি আশা করছেন। উল্লেখ্য, বিগত দিনেও দোছড়ি ইউনিয়নের বাঁকখালী মৌজার ছাগল খাইয়া থেকে ৬জন তামাক চাষী অপহরণ করেছিল সন্ত্রাসীরা। তাদেরকেও মুক্তিপনের বিনিময়ে সন্ত্রাসীরা ছেড়ে দেয় বলে স্থানীয়রা জানান।

সর্বশেষ সংবাদ

এড: আমজাদ হোসেন’র মৃত্যুতে কক্সবাজার সিটি কলেজের শোক

ইয়াবাবাজীর দায়ে এক রোহিঙ্গার ৮ বছরের কারাদন্ড

প্রকাশিত সংবাদ প্রসঙ্গে হ্নীলার জালালের প্রতিবাদ

এড. আমজাদ হোসেনের প্রথম নামাজে জানাজা আদালত প্রাঙ্গনে সম্পন্ন

রামুর ঐতিহ্যবাহী মল্লনের বিলের প্রাচীনতম কবরস্থানটি রক্ষায় সরকারী পদক্ষেপ জরুরী

ভারতে জোর করে ‘জয় শ্রীরাম’ বলানোর পর মুসলিম যুবককে পিটিয়ে হত্যা

মাত্র ১০৩ টাকায় পুলিশের কনস্টেবল নিয়োগের প্রচার সর্বত্র সাড়া জাগিয়েছে

রামু চৌমুহনীতে উচ্ছেদ অভিযানে ইউএনওকে সর্বস্তরের মানুষের সাধুবাদ

এডঃ আমজাদ হোসেন এর মৃত্যুতে কক্সবাজার জেলা আইনজীবী সমিতির শোক প্রকাশ

মোবাইল ব্যবহারে বাধা দেওয়ায় বিষপানে কিশোরীর আত্মহত্যা

রামুর সমাজসেবক শিমুল বড়ুয়া পরলোকে

বেনাপোল সীমান্তে চোরাচালানী সিন্ডিকেট প্রধান জাহিদ আটক, ৬ নারী পুরুষ উদ্ধার

এডভোকেট আমজাদ হোসেনের জানাজা কখন কোথায়?

আওয়ামী লীগ নেতা এডভোকেট আমজাদ হোসেনের মৃত্যু

সাবেক ছাত্রদল নেতা এস.ডি. বাবুর মায়ের পরলোক গমনে জেলা ছাত্রদল এর শোক

ভাইরাস জ্বর সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য জেনে নিন

চারমাসেও উদ্ধার হয়নি চকরিয়ার মুক্তিযোদ্ধার ছেলে ইঞ্জিনিয়ার আরিফ

সুখী দাম্পত্যের জন্য মনে রাখা চাই যেসব বিষয়

রোহিঙ্গা প্রত্যর্পণে আন্তর্জাতিক তদারকি চান মাহাথির

ডিআইজি মিজানের বিরুদ্ধে দুদক দফতরেই মামলা