নিজস্ব প্রতিবেদক
টেকনাফ উপজেলার সাবরাং কচুবনিয়া থেকে সাগরে নিখোঁজ বোটের শ্রমিক নুরুল আমিনের (২৫) লাশ ২৫ নভেম্বর শনিবার বিকেলে উদ্ধার করা হয়েছে। সে সাবরাং ইউনিয়নের হারিয়াখালীর মোকতার আহমদের পুত্র। ২৪ নভেম্বর রাতে রোহিঙ্গা বোঝাই করে ফেরার পথে বিজিবির ধাওয়া খেয়ে সাগরে ঝাঁপ দেয় নুরুল আমিন ও জমির হোসেন নামে দুই বোট শ্রমিক।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ২৪ নভেম্বর রাতে হারিয়াখালীর সোনামিয়ার মালিকানাধীন বোটটি মিয়ানমারের ধাওনখালী থেকে ২১ জন রোহিঙ্গা বোঝাই করে টেকনাফে ফিরছিল। বিজিবির ধাওয়া খেয়ে বোটটি কচুবনিয়া চরে আটকা পড়ে। এসময় বোটের শ্রমিক নুরুল আমিন ও জমির হোছেন সাগরে ঝাঁপ দেয়। এর মধ্যে জমির হোসেন সাঁতরিয়ে কুলে উঠতে পারলেও পরদিন নুরুল আমিনের লাশ উদ্ধার করা হয়।
অপরদিকে হারিয়াখালীর আলী আকবরের পুত্র নুরুল হক ও হামিদের পুত্র সলিমকে বিজিবি আটক করে। পরে কৌশলে নুরুল হক পলায়ন করলেও সলিমকে আটক করা হয়েছে। এদিকে নুরুল আমিনের লাশ গতকাল ২৬ নভেম্বর ভোরে টেকনাফ থানা পুলিশ কক্সবাজার সদরে নিয়ে আসে। ময়নাতদন্ত শেষে গতকাল রাতে তার দাফন সম্পন্ন হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •