হারুনর রশিদ, মহেশখালী:
জাতীর পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ ইউনেস্কোর মেমোরী অব দ্য ওয়ার্ল্ড ইন্টারন্যাশনাল রেজিস্টারএ অর্ন্তভূক্তির মাধ্যমে বিশ^ প্রামাণ্য ঐতিহ্যের স্বীকৃতি লাভের অসামান্য অর্জন উপলক্ষ্যে মহেশখালী উপজেলাতে আনন্দ শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

২৫ নভেম্বর সকাল ১০টার সময় মহেশখালী উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে অনুষ্ঠিত আনন্দ শোভাযাত্রায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কক্সবাজার ২ আসনের সাংসদ আলহাজ¦ আশেক উল্লাহ রফিক। উক্ত আনন্দ শোভাযাত্রাটি উপজেলা চত্বর থেকে শুরু হয়ে উপজেলার প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে উপজেলা প্রাঙ্গণে এসে মিলিত হয়ে র‌্যালীত্তোর আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। মহেশখালী উপজেলার নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ আবুল কালাম এর সভাপতিত্বে ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) বিভীষণ কান্তি দাশ এর সঞ্চালনায় এবং হাফেজ শাহাদাত হোসেন এর কোরআন তেলাওয়াতের মধ্য দিয়ে মূল অনুষ্ঠান শুরু হয়। এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মহেশখালী উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ হোছাইন ইব্রাহীম, কক্সবাজার জেলা পরিষদের সদস্য ও মহেশখালী উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ¦ আনোয়ার পাশা চৌধুরী, জেলা আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা ডাঃ নুরুল আমিন, জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি এম আজিজুর রহমান বিএ, পৌর মেয়র আলহাজ¦ মকছুদ মিয়া, মহেশখালী থানার অফিসার্স (ওসি) প্রদিপ কুমার দাশ, মহেশখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের (ইউএইচএফপি) ডাঃ সাজ্জাদ হোসেন চৌধুরী, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা শফিউল আলম সাকিব, জেলা পরিষদের মহিলা সদস্য মশ্্রফা জান্নাত, এডভোকেট আবু তালেব, মহেশখালী প্রেস ক্লাবের সভাপতি হারুনর রশিদ, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সালেহ আহমদ, পুটিবিলা ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসর প্রভাষক মৌলানা আবু ছৈয়দ, বড় মহেশখালী বালিকা মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষক হুমায়ুন কবির আজাদ, বঙ্গবন্ধু মহিলা কলেজের অধ্যাপক সরওয়ার কামাল, বৃহত্তর গোরকঘাটা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান শামসুল আলম, মহেশখালী উপজেলা পূজা উদ্্যাপন কমিটির সভাপতি বাবু ব্রজ গোপাল, কুতবজোম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোশার্রফ হোসেন খোকন, হোয়ানক ইউনিয়ন পরিষদের মোস্তফা কামাল, কুতুবজোম ইউনিয়নের মাষ্টার লিয়াকত আলী, উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক ওয়াজেদ আলী মুরাদ। উপজেলা আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা র‌্যালী ও আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও উপজেলার বিভিন্ন কলেজ, মাধ্যমিক ও প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক এবং ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ স্বতস্ফূর্থভাবে র‌্যালী ও আলোচনা সভায় অংশ গ্রহণকরেন। প্রধান অতিথির বক্তব্য দানকালে আলহাজ¦ আশেক উল্লাহ রফিক এম.পি বলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ ইউনেস্কো মেমোরী অব দ্য ওয়ার্ল্ড ইন্টারন্যাশনাল রেজিস্টারে অন্তর্ভূক্তির মাধ্যমে বিশ^ প্রামণ্য ঐতিহ্যের স্বীকৃতি লাভের গৌরব অর্জন করেছে। ৭ই মার্চের ভাষণ বাঙ্গালীর মুক্তির ভাষণ, অধিকার আদায়ের ভাষণ। এই ৭ই মার্চের ভাষণের মধ্য দিয়ে স্বাধীনতা লাভ করেছি আমরা। ৭ই মার্চের ভাষণ বাংলাদেশ পেরিয়ে ইউনেস্কো কর্তৃক স্বীকৃতি লাভ করেছেন। অনুষ্ঠান শেষে বিভিন্ন বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে রচনা, কুইজ ও সাধারণ জ্ঞান এই তিন ইভেন্টের প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠিত হয়। পরে বিজয়ী ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে পুরষ্কার বিতরণ করেন অতিথিরা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •