নুসরাত পাইরিন :  কক্সবাজারে অনুষ্ঠিত হয়েছে জেলা শিল্পকলা একাডেমীর সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠান। বৃহস্পতিবার এ উপলক্ষে সাংষ্কৃতিক কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক মো: আলী হোসেন। সভাপতির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক মহোদয় বলেন, মানুষকে বাঁচতে হলে সুস্থ মানসিক বিকাশের প্রয়োজন। তাই এই মানসিক বিকাশকে বিকশিত করতে হলে শিল্পকলা-সাহিত্য ও সংস্কৃতি চর্চ্চা করা প্রয়োজন। এর মাধ্যমে সুস্থ সমাজ, সুস্থ জাতি সর্বোপরি সুস্থ দেশ গঠন করা সম্ভব। তিনি বলেন, কক্সবাজারে প্রাকৃতিক বৈশিষ্ট্যতায় ভরপুর তাই এখানে অনেক প্রতিভাসম্পন্ন সাহিত্যিক,কবি, শিল্পী ও সংস্কৃতিমনা মানুষের সৃষ্টি হতে পারে। এ ছাড়া জেলায় অনেক প্রতিভা সুপ্ত অবস্থায় আছে, শুধুমাত্র চর্চ্চার মাধ্যমে তা বিকশিত করা সম্ভব। পরে তিনি সম্মাননা প্রাপ্তকারীদের ভবিষ্যত চলার পথ আরও সুগম হোক এই কামনা করেন।

অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন জেলা কালচারাল অফিসার সৈয়দ আয়াজ মাবুদ। এ সময় স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক মো: আনায়ারুল নাসের, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ( শিক্ষা ও আইসিটি ) মুহম্মদ আশরাফ হোসেন,সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের পরিচালক পিন্টু আরেং,সম্মিসলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি সত্যপ্রিয় চৌধুরী দোলন,সাংবাদিক,সাংস্কৃতিক কর্মী,সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দসহ সংশ্লিস্টরা উপস্থিত ছিলেন। সাংস্কৃতিক ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানে ৫টি ক্যাটাগরিতে সম্মাননা প্রদান করা হয়। যাত্রাশিল্পে সুশীল ব্রহ্মচারী,কন্ঠসংগীতে রাহগীর মাহমুদ, লোক-সংস্কৃতিতে মাস্টার শাহ আলম,নাট্যকলায় তাপস রক্ষিত ও আবৃত্তিতে মানসী বড়ুয়াকে এ সম্মাননা প্রদান করা হয়। এরপর অনুষ্ঠিত হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এতে সংগীত ও নৃত্য পরিবেশন করে জেলা শিল্পকলা একাডেমি ও স্থানীয় শিল্পীরা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •