এম.মনছুর আলম, চকরিয়া:

চকরিয়ায় স্থানীয় সরকার বিভাগ ও বাংলাদেশ লিগ্যাল এইড এন্ড সার্ভিসেস ট্রাস্ট (ব্লাস্ট) সার্বিক সহযোগীতায় গ্রাম আদালত সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধি, গ্রহণযোগ্য ও সক্রিয় করতে জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে ব্যাপক ভাবে ভুমিকা রাখতে এক কর্মশালায় অনুষ্টিত হয়েছে।২৩নভেম্বর বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা দিকে চকরিয়া উপজেলা পরিষদের হলরুম মোহনায় এ কর্মশালা অনুষ্টিত হয়।উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নুরুদ্দীন মুহাম্মদ শিবলী নোমানের সভাপতিত্বে উক্ত কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,চকরিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব জাফর আলম বিএ(অনার্স)এম এ।কর্মশালা অনুষ্টানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিথ ছিলেন চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ফাঁসিয়াখালী ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী,চকরিয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক(তদন্ত )মো.মিজানুর রহমান,

চিরিংগা ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি আলহাজ্ব জসিম উদ্দিন,কোনাখালী ইউপি চেয়ারম্যান দিদারুল হক সিকদার,চকরিয়া উপজেলা এনজিও সমন্বয়ক ও দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি মুহাম্মদ নোমান,ইউএনডিপি’র সিনিয়র কর্মকর্তা, ব্লাস্টের কর্মকর্তা মো.সায়েম,ইউনিয়ন পরিষদের বিভিন্ন স্তরের জনপ্রতিনিধি,সাংবাদিকসহ সরকারী-বেসরকারী দপ্তরের কর্মকর্তাবৃন্দরা কর্মশালায় উপস্থিত ছিলেন।

কর্মশালা অনুষ্টানে প্রধান অতিথি আলহাজ্ব জাফর আলম বলেন,

গ্রাম আদালতকে গ্রহণযোগ্য ও সক্রিয় করে তুলতে জনপ্রতিনিধিদের আরো ব্যাপক ধরণের ভুমিকা রাখতে হবে।গ্রামের সাধারণ মানুষকে নানা ধরণের দিকনির্দেশনা দিয়ে সচেতনার মাধ্যমে ইউনিয়নে গ্রাম আদালতমুখী করতে পারলেই সমাজের বিভিন্ন ধরণের অপরাধ প্রবণতা রোধ করতে সম্ভব হবে।দেশের অধিকাংশ গ্রামের সহজ-সরল মানুষকে এক শ্রেণীর লোক ভিন্ন মনোভাব দেখিয়ে গ্রাম আদালত থেকে বিমুখ করে সুস্থ বিচার ব্যবস্থার আশার আলো দেখিয়ে উচ্চ পর্যায়ে আদালতে পাঠানো হয়।তিনি আরো বলেন,গ্রাম আদালতের বিচার ব্যবস্থায় সাধারণ মানুষ সন্তুষ্ট হলেই কোন সময় আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণের বাহিরে যায় না।মানুষ সুষ্ট ভাবে বিচার পেলে সমাজ এবং দেশ পরিবর্তন করতে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের গ্রাম আদালত সম্পর্কে আরো সচেতনতা সৃষ্টি করতে হবে বলে তিনি জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •