সংবাদ বিজ্ঞপ্তি
১৫ নভেম্বর কক্সবাজারসহ দেশের বিভিন্ন দৈনিকে প্রকাশিত “কক্সবাজারে জামায়াত নেতার বাসা থেকে রোহিঙ্গা আটক” শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদের তীব্র নিন্দা এবং প্রতিবাদ জানিয়ে বিবৃতি প্রদান করেন, কক্সবাজার শহর জামায়াতের আমির আলহাজ্ব সাইদুল আলম, সেক্রেটারী আবদুল্লাহ আল ফারুক।

নেতৃবৃন্দ বলেন, বার্মিজ মার্কেট এলাকার একটি বাসা থেকে ১১জন রোহিঙ্গা নারী, পুরুষ ও শিশুকে গ্রেফতারের ঘটনায় কিছু ইলেকট্রনিক্স ও প্রিন্ট মিড়িয়ায় জামায়াত নেতা সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শহিদুল আলম বাহাদুরের নাম জড়িয়ে যে সংবাদ পরিবেশন করা হয়েছে, তা সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত। আমরা উক্ত সংবাদের তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

কক্সবাজার পৌরসভার বার্মিজ মার্কেট সংলগ্ন যে আজিজ সিটি সেন্টারের সপ্তম তলার থেকে রোহিঙ্গাদের গ্রেফতার করা হয়, ভাইস চেয়ারম্যান শহিদুল আলম বাহাদুর ওই ভবনের বাসিন্দাও নন। মূলত তিনি বসবাস করেন পুলিশের অভিযানকৃত ভবনের পাশের ভবনের একটি ফ্লাটে। উক্ত ভবনটি সাকুল্যে ৫ তলা।

জামায়াতের দাবী, যে ভবনটি থেকে রোহিঙ্গাদের আটক করা হয়, সে ভবনের মালিক বা কেয়ারটেকারের সাথে জায়ায়াত নেতৃবৃন্দের কোন সম্পর্ক নেই। উক্ত ভবনটিতে জামায়াত সংশ্লিষ্ট কোন ব্যাক্তি বসবাসও করেন না। কিন্তু একটি মহল ঘটনাটিকে সম্পুর্ণ ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার উদ্দেশ্যে ঘটনাটির সাথে জামায়াত ও জামায়াত নেতা শহিদুল আলম বাহাদুরের নাম জড়িয়ে বিষয়টিকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার চেষ্টা করছেন, যা সত্যিই দুঃখজনক। তাই অহেতুক জনমনে বিভ্রান্তি না ছড়িয়ে বস্তনিষ্ট সংবাদ পরিবেশনের জন্য উক্ত সংবাদ সংশ্লিষ্ট সাংবাদিক ভাইদের প্রতি বিনীত অনুরোধ জানাচ্ছি।

উল্লেখ্য, ১৪ নভেম্বর সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে শহরের টেকপাড়ার আজিজ সিটি সেন্টারে অভিযান চালায় জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমান আদালত। ওই সময় নারী-শিশুসহ ১১ রোহিঙ্গা আটক হয়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •