জহির খন্দকার, ঈদগড়:

ঈদগাও সড়কের পানের ছড়া ঢালায় আবারো ডাকাতদল হানাদিয়ে ১ যুবককে অপহরন করে গৃহীন পাহাড়ে নিয়ে আটকে রেখে ৫ লক্ষ টাকা মুক্তিপন দাবী করছে। পুলিশের শ্বাসরুদ্বকর অভিযানে অপহরনের ১০ ঘন্টা পর উদ্বার। ১৪ নভেম্বর রাত সাড়ে ৯ টায় সড়কের পানের ছড়া ঢালায় এই অপহরনের ঘটনাটি সংঘটিত হয়।অপহ্নত যুবকের নাম মো:রুবেল (২৫) সে ঈদগড় টুঠারবিল গ্রামের আবুল হোছনের পুত্র।

জানা যায়, অপহ্নত মো:রুবেল তার ছোট ভাই ভুট্রোর মোটর সাইকেলে করে ঈদগাও থেকে ঈদগড় যাওয়ার প্রতিমধ্যে সড়কের পানের ছড়া ঢালার ভাঙ্গনকৃত অংশে গেলে উৎপেতে থাকা ডাকাতদল তাদের গতিরোধ করে মো:রুবেল কে অপহরন করে গৃহীন পাহাড়ে নিয়ে যায়।খবর পেয়ে রামু থানার ওসি তদন্ত মিজানুর রহমান রাত ১২ টায় ঘটনাস্হল  পরিদর্শন করে।রামু থানা অফিসার ইনচার্জ মো:লিয়াকত আলীর নির্দেশ ওসি তদন্ত মিজানুর রহমানের নেতৃত্বে একটি দল এস আই ছানা উল্লার এস আই মুকিবুলের নেতৃত্বে একটি দল ও এ এস আই মোরশেদ আলমের নেতৃত্বে মোট ৩ টি পুলিশের সৌকস দল ৫ শতাধিক জনতা সহ গৃহীন পাহাড়ে আজ সকাল  ১১ টা পর্যন্ত এক শ্বাসরুদ্ধকর অভিযান চালানো হয়।পুলিশের তাড়া খেয়ে ডাকাত দল অপহ্নত যুবক মো:রুবেলকে বাদিতলা পাহাড়ে রেখে পালিয়ে যাই।সেখান থেকে পুলিশ ভিকটিম মো:রুবেল কে উদ্বার করে রামু থানায় নিয়ে যায়।

উদ্বারকৃত মো:রুবেল জানান রাতে পুলিশের অভিযানের দৃশ্য সে দেখলে ও মুখে কাপড় ও বুকে বন্দুক থাক করে রাখায় চিৎকার দিতে পারে নি।

তারা বাবা আবুল হোছন পুলিশ প্রসাশনসহ যারা অভিযানে সহযোগিতা করেছে সবাইকে তিনি ধন্যবাদ জানিয়েছে।

এলাকাবাসী জানান ইতিপুর্বে ও ঈদগড় সড়ক ও বসতবাড়ীতে ডাকাতি অপহরন বৃদ্বি হলে রামু থানার অফিসার ইনচার্জ মো:লিয়াকত আলীর নেতৃত্বে পুলিশ অভিযান চালিয়ে এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসীদের  গ্রেপ্তার করে জেল হাজতে প্রেরন করেছিল।ফলে দীর্ঘ দিন অপহরন ডাকাতি বন্দ ছিল।বর্তমানে সন্ত্রাসীরা জামিনে মুক্ত হয়ে আবারো সংঘটিত হয়ে ডাকাতি অপহরন শুরু করেছে।এলাকাবাসী চিহ্নিত সন্ত্রাসীদের গ্রেপ্তার করার জোর দাবী জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •