এম.মনছুর আলম,চকরিয়া:

দক্ষিণ এশিয়ার দ্বিতীয় বৃহত্তম বদরখালী সমবায় কৃষি ও উপনিবেশ সমিতি ৪৬ তম জাতীয় সমবায় দিবসে সারা বাংলাদেশে পাচঁ হাজার সমবায় সমিতির মধ্যে থেকে ২০১৫সালে কৃষি ভিত্তিক/সার্বিক গ্রাম উন্নয়ন শ্রেণীতে কক্সবাজারের চকরিয়াস্থ বদরখালী সমবায় কৃষি ও উপনিবেশ সমিতিকে শ্রেষ্ট সমবায় সমিতি হিসেবে সম্মাননা পত্র ও স্বর্ণের পদক প্রদান করা হয়েছে।গতকাল ৪অক্টোবর শনিবার ঢাকাস্থ ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে এ সম্মাননা প্রদান করেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাছিনা। এসময় উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী খন্দকার মোশারফ হোসেন,সমবায় প্রতিমন্ত্রী মসিউর রহমান রাঙ্গা,সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালয়ের সচিব ও কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সমিতির পক্ষথেকে সম্মাননা পত্র ও স্বর্ণের পদক গ্রহন করেছেন বদরখালী সমবায় কৃষি ও উপনিবেশ সমিতির সভাপতি আলহাজ্ব নুরুল আলম সিকদার।উল্লেখ্য,সমিতির কর্ম এলাকায় অবকাঠামোগত অভূতপূর্ব উন্নয়ন সাধনের মাধ্যমে ১৯২৯সাল থেকে অদ্যবদি পর্যন্ত প্রায় ৫০হাজার জনগোষ্টীর বাস্তবধর্মী সেবা দিয়ে আসছে এ সমিতি।যেটি জেলায় নয়,পুরো বাংলাদেশকে ছাড়িয়ে দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে বৃহত্তম কৃষি উপনিবেশ সমবায় সমিতি হিসেবে নজির স্থাপন করেছে। বিশেষ করে এ সমিতি কৃষিবান্ধব হিসেবে এতদ্বাঞ্চলের ব্যাপক অবদান রাখায় বিগত ২০০৯সালে ৪০তম জাতীয় সমবায় দিবসে কৃষিভিত্তিক শ্রেষ্ঠ সমবায় প্রতিষ্টান হিসাবে স্বর্ণপদক ও সনদ প্রদান করেন বঙ্গবন্ধু কন্যা  প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা।সমিতির এ অর্জন সম্পর্কে সমিতির সভাপতি আলহাজ্ব নুরুল আলম সিকদারের কাছে জানতে চাইলে তিনি এ প্রতিবেদককে বলেন,এটি আমার একার কৃতিত্ব না এটি সমিতির সভ্য,পোষ্য অংশিদার ও বদরখালী ৫০হাজার জনগোষ্ঠীর কৃতিত্ব।সমবায় সমিতির উন্নয়ন ও কৃতিত্বের এ ধারা অব্যাহত রাখতে তিনি সকলের সার্বিকভাবে সহযোগীতা কামনা করেছেন।এদিকে দেশের শ্রেষ্ঠ সমবায় সমিতি হিসেবে দ্বিতীয় বারের মত বদরখালী সমবায় কৃষি ও উপনিবেশ সমিতি স্বর্ণের পদক ও সম্মাননা পত্র পাওয়া অভিনন্দন জানিয়েছেন চকরিয়া উপজেলা সমবায় কর্মকর্তা এম এ মন্নান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •