হত্যা মামলার আসামীরা ধরাছোঁয়ার বাইরে, পালিয়ে বেড়াচ্ছে বাদী

আমান উল্লাহ আমান, টেকনাফ:
টেকনাফে হত্যা মামলার আসামীরা নিঃসংকোচ ও বীরদর্পে এলাকায় বিচরণ করে মামলার বাদীকে প্রাণনাশের হুমকী এবং ধমকীর অভিযোগ উঠেছে। অন্যদিকে তাদের হুমকী-ধমকীতে প্রাণ ভয়ে এবং আতংকে পালিয়ে বেড়াচ্ছে মামলার বাদী। হ্নীলা ইউনিয়নের পূর্ব লেদায় ঘটছে এ ঘটনা।

মামলার বাদী মোঃ আলম জানান, আমার ভাই ছিদ্দিককে যারা হত্যা করেছে তাদের বিরুদ্ধে ২৪ অক্টোবর টেকনাফ মডেল থানায় মামলা করেছি। কিন্তু ওই মামলার আসামীরা নিঃসংকোচ ও বীরদর্পে এলাকায় বিচরণ করছে। প্রতিনিয়ত মামলা তুলে নিতে আমাকে হুমকী দিয়ে যাচ্ছে। আসামীরা প্রভাবশালী ও সন্ত্রাসী হওয়ায় প্রতিনিয়ত নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। এ অবস্থায় ওই আসামী সন্ত্রাসীদের ভয়ে নিহত ছিদ্দিকের বিধবা স্ত্রী, বৃদ্ধ মাসহ পরিবারের সবাই নির্ঘুম রাত যাপন করছি।

এছাড়া আসামীরা ইয়াবা দিয়ে মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়ে হয়রানী করবে বলে এলাকায় হাঁকাবকাসহ বিভিন্ন গালমন্দ করে বেড়াচ্ছে।

এদিকে মামলার এজাহার সুত্রে জানা গেছে, গত ১৯ অক্টোবর বৃহস্পতিবার বিকালে অস্ত্রে স্বস্ত্রে সজ্জিত পুর্ব লেদার মৃত কালা চানের পুত্র আবু ছিদ্দিককে রিফুজি বাজার হইতে বাড়ী আসার পথে লেদা মৌলভীপাড়াস্থ ধলাইয়ার বাড়ীর সামনে হতে জরুরী কাজ আছে বলে নিয়া যায়। এসময় পূর্ব থেকে উঁৎপেতে থাকা ধলা মিয়া, কালু মিয়া, মোঃ হানিফ, রহমত উল্লাহ, নুর কবির, আনোয়ার হোছাইন, আবদুল মালেক ও সোনা মিয়া অতর্কিতভাবে তাকে ঘিরে লোহার রড দিয়ে আবু ছিদ্দিকের পায়ে আঘাত করে উঠানে ফেলে দেয় এবং ছুরি দিয়া হত্যা করার উদ্দেশ্যে আবু ছিদ্দিকে আঘাত করে। এসময় সে মরণপন চিৎকার দিয়ে মাটিতে পড়ে যায় ও তাহার পেটের নাড়িভুড়ি বাহির হয়ে যায়। চিৎকার শুনিয়া ভাই মোহাম্মদ আলম ও স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে সন্ত্রাসীরা ঘটনাস্থল হতে বীরদর্পে চলে যায়। পরে স্থানীয়রা প্রায় মৃত আবু ছিদ্দিককে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে টেকনাফ হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত ডাক্তার উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার সরকারি হাসপাতালে রেফার করে। কক্সবাজার সদর হাসপাতালের চিকিৎসক জখমীর অবস্থা আশংকাজনক দেখে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। সেখানে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২১ অক্টোবর ভোরে আবু ছিদ্দিকের মৃত্যু হয়।

পরে নিহতের ভাই মোঃ আলম বাদী হয়ে গত ২৪ অক্টোবর ৮ জনকে আসামী করে খুন করার অপরাধে টেকনাফ মডেল থানায় (৩৫ নং) মামলা দায়ের করেন।

এরপর থেকে আসামীরা মামলার বাদী মোঃ আলমকে মামলা তুলে নিতে চাপ দিতে থাকে। নয়তো তাকেও প্রাণে মেরে ফেলবে বলে প্রতিনিয়ত হুমকী ও ধমকী দিয়ে বীরদর্পে এলাকায় বিচরণ করছে বলে অভিযোগ করেছে বাদী মোঃ আলম।

তাদের হুমকী ধমকী থেকে রেহাই পেতে শিগগিরই আসামীদের আটক করতে কক্সবাজার পুলিশ সুপারের সূদৃষ্টি ও সংশ্লিষ্টদের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন মামলার বাদী।

cbn
কক্সবাজার নিউজ সিবিএন’এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

সর্বশেষ সংবাদ

সারাদেশে ১০১৬ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন

জামায়াতের ২৫ প্রার্থীর প্রার্থিতা বাতিলের আবেদন তিনদিনের মধ্যে নিষ্পত্তির নির্দেশ

রিট খারিজ, নির্বাচনে অংশ নিতে পারছেন না খালেদা জিয়া

বিজয়ের ছুটিতে পর্যটকদের উপচেপড়া ভিড় কক্সবাজারে

যা আছে বিএনপির ইশতেহারে

নিরাপত্তাহীনতায় তিনদিন ধরে নির্বাচনী প্রচারণায় যেতে পারছেন না হাসিনা আহমদ

পার্বত্য চট্টগ্রামের প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে সেনা মোতায়েন করা হবে-সিইসি

সরল নির্বাচনের কঠিন সমীকরণ

ধানের শীষের পোস্টার টাঙ্গানোর সময় অতর্কিত হামলার অভিযোগ

আওয়ামীলীগের পূর্নাঙ্গ নির্বাচনী ইশতেহার

নির্বাচনী ইশতেহারে আ’লীগের ২১ অঙ্গীকার

নির্বাচনী ঘটনায় ভূট্টো ও মাবুদ চেয়ারম্যান সহ ৮০ জনকে আসামী করে দু’টি মামলা

ঈদগাঁও থেকে ২ ব্যক্তি অপহরণ

আলমগীর ফরিদের প্রার্থীতা ও ধানের শীষ পেতে আর কোন বাঁধা নেই

চকরিয়া-পেকুয়ার জনগণ মৌসুমী প্রার্থীকে গ্রহণ করেনি-জাফর আলম

সীতাকুণ্ড থেকে পালিয়ে আসা প্রেমিক যুগল ঈদগাঁওতে ধৃত

আইন-শৃঙ্খলা সঠিক রাখতে আইজিপিকে সিইসির নির্দেশ

সাবেক চেয়ারম্যান দীপক বড়ুয়ার মাতার পরলোকগমন ॥ বিভিন্ন মহলের শোক

কক্সবাজার প্রেসক্লাবের ৪৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী বুধবার

রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে শাহজাহান চৌধুরীর অভিযোগ