cbn  

বাংলাট্রিবিউন :
পাহাড় কাটলে পাহাড় আবার হবে বলে মন্তব্য করেছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া। তিনি বলেন, ‘কিন্তু মানুষ মরলে সেই মানুষ আর পাওয়া যাবে না।’
রবিবার (২৯ অক্টোবর) দুপুরে সচিবালয়ে খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে রোহিঙ্গা সংক্রান্ত এক আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা শেষে সাংবাদিকদের এক পশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন ত্রাণমন্ত্রী।
এ সময় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব শাহ্ কামাল ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মুন্সি শফিউল হক উপস্থিত ছিলেন।
সভায় মন্ত্রী জানান, ১৯৭৮ সাল থেকে আজ পর্যন্ত বাংলাদেশে আসা ১০ লাখ রোহিঙ্গা কক্সবাজারের বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে। যেকোনও ধরনের অঘটন ঠেকাতে তাদেরকে একত্রিত করে এক স্থানে রাখতে কুতুপালংয়ে অস্থায়ী ক্যাম্প করা হয়েছে। সেখানে তাদেরকে রাখতে ২ লাখ অস্থায়ী ঘর নির্মাণ করার পরিকল্পনাও করছে সরকার। একই সঙ্গে ৮ হাজার গভীর নলকূপ, ৫০ হাজার স্যানিটারি লেট্রিন নির্মাণ করা হবে। ২২ কিলোমিটার রাস্তা নির্মাণ করা হয়েছে। ১৮ কিলোমিটার রাস্তায় বৈদ্যুতিক খুঁটি স্থাপন করা হয়েছে।
মন্ত্রীর এই বক্তব্যের পর একজন সাংবাদিক মন্ত্রীর কাছে জানতে চান, এসব কারণে সেখানকার পাহাড় কাটা হচ্ছে। হাতির অভয়াশ্রম কেটে রোহিঙ্গাদের জন্য আবাসস্থল গড়ে তোলা হচ্ছে। গাছগাছালি কেটে ফেলা হচ্ছে। রোহিঙ্গারাও পাহাড় ও গাছ কেটে ফেলছে। এতে আগামী বৃষ্টি মৌসুমে পাহাড় ধসের আশঙ্কা করা হচ্ছে। এতে সেখানকার পরিবেশের ওপর কোনও নেতিবচাক প্রভাব পড়ছে কিনা?
সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বলেন, ‘পাহাড় কাটলে পাহাড় আবার হবে। পাহাড় পাওয়া যাবে। কিন্তু মানুষ চলে গেলে তো আর মানুষ পাওয়া যাবে না। এই মানুষগুলো কোথায় যাবে?’ মানবিক চোখ দিয়ে এসব বিষয়গুলো দেখতে হবে বলেও জানান তিনি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •