নিজস্ব প্রতিবেদক:

কক্সবাজারে দুই সাংবাদিকের উপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় জড়িতদের দ্রুত গ্রেপ্তারের দাবীতে প্রতিবাদ সমাবেশ করেছেন কর্মরত সাংবাদিকেরা। সমাবেশ থেকে বক্তারা হামলায় জড়িতদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার পূর্বক লুণ্ঠিত মালামল উদ্ধারের দাবী জানান।

গতকাল সোমবার দুপুর ১২ টায় জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে এই প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এর আগে কক্সবাজার প্রেসক্লাব প্রাঙন থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করে সেখানে হাজির হন কক্সবাজারে কর্মরত সাংবাদিকেরা।

প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন স্থানীয় দৈনিক সকালের কক্সবাজার পত্রিকার সম্পাদক ও কক্সবাজার সাংবাদিক ইউনিয়নের নেতা ফরহাদ ইকবাল, সাংবাদিক রাশেদুল মজিদ, জেলা জাতীয় শ্রমিক লীগের সভাপতি জহিরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক শফিউল্লাহ আনসারী, কক্সবাজার সিটি প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আলীম নোবেল, সাংবাদিক কল্লোল দে চৌধুরী।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক শফিউল আলম, আনোয়ার হাসান, আরফাতুল মজিদ, শাহেদ মিজান, আজিম নিহাদ, রাশেদ রিপন, মুহাম্মদ হোসাইন, সাহেদ কায়সার, মুহিবুল্লাহ প্রমুখ। এতে সংহতি প্রকাশ করেন খালেদ হোসেন টাপু ও কামাল শিশিরের নেতৃত্বে রামু প্রেসক্লাব, কক্সবাজার জেলা জাতীয় শ্রমিক লীগ, সাংস্কৃতিক সংগঠন ছায়ানীড়সহ বিভিন্ন সংগঠন।

ফরহাদ ইকবাল বলেন, হামলাকারি ছৈয়দ কমির চিহ্নিত ইয়াবা গডফাদার। অপর হামলাকারির মধ্যে মো. হাশেম পুলিশ হত্যা মামলার আসামী। এছাড়া অন্যান্যরাও ইয়াবা ব্যবসায়ী ও সন্ত্রাসী। কিন্তু তারপরও তারা এখনও প্রকাশ্যে কিভাবে ঘুরাফেরা করে?

তিনি বলেন, এই হামলার সাথে জড়িতদের দ্রুত গ্রেপ্তার করতে হবে। অন্যথায় বৃহত্তর আন্দোলন কর্মসূচির ডাক দেওয়া হবে।

গত রোববার দুপুরে পাহাড় কাটার ছবি তুলতে গিয়ে কক্সবাজার সদর উপজেলার ঝিলংজা ইউনিয়নের বাসটার্মিনাল নোঙরের পাশে ইসলামাবাদ এলাকায় চিহ্নিত ইয়াবা ব্যবসায়ী ও সন্ত্রাসীদের হামলার শিকার হন কক্সবাজারের স্থানীয় দৈনিক সকালের কক্সবাজারের দুই সাংবাদিক রাশেদুল মজিদ ও সাদ্দাম হোসেন। এর মধ্যে সাদ্দাম হোসেন গুরুতর আহত হয়। তার বাম পাশের কান কেটে যায়। মাথায় লোহার রড়ের আঘাতে গুরুত জখম হয়। বর্তমানে তিনি কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এই ঘটনায় তাদের ব্যবহৃত ক্যামেরা ও মোবাইল ছিনিয়ে নেয় সন্ত্রাসীরা।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার ওসি রনজিত কুমার বলেন, সাংবাদিকদের উপর হামলার ঘটনায় দ্রুত বিচার আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। এরই মধ্যে জসিম উদ্দিন নামে একজনকে আটক করা হয়েছে। বাকিদেরও গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •