cbn  

বিএনপি অঙ্গনে উল্লাস

শাহেদ মিজান, সিবিএন:
রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শনের জন্য আজ রোববার কক্সবাজার পৌঁছেবেন বিএনপির চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া। তিনি গতকালই সফরের উদ্দেশ্যে সড়ক পথে ঢাকা ত্যাগ করেছেন। ঢাকা থেকে তিনি চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজে রাত্রী যাপন করেছেন। আজ বেলা ২টা নাগাদ তিনি সড়ক বহর নিয়ে সড়ক পথে কক্সবাজার পৌঁছেবেন। আগামী সোমবার তিনি উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শণ ও ত্রাণ বিতরণ করবেন। কক্সবাজার অভিমুখী খালেদা জিয়ার যাত্রাপথে ব্যাপক শো-ডাউনের প্রস্তুতি নিয়েছে কক্সবাজার জেলা বিএনপি ও অঙ্গসংগঠন। পাঁচ বছর পর কক্সবাজারে বিএনপি প্রধানের এ সফরকে কেন্দ্র করে নেতা-কর্মীদের মধ্যে ব্যাপক প্রাণচাঞ্চল্য চলছে।

কক্সবাজার জেলা বিএনপির দপ্তর সম্পাদক ইউসুফ বদরী জানান, বেগম খালেদা জিয়া সকাল ১০টায় গুলশানের বাসভবন থেকে বের হয়ে দুপুরে ফেনী সার্কিট হাউজে যাত্রা বিরতি করেন। চট্টগ্রামে রাত্রিযাপন করেন আজ বেলা ২টায় টায় তিনি কক্সবাজার পৌঁছেবেন। আগামীকাল সোমবার সকাল ১১টায় উখিয়ায় বালুখালি পানবাজার রোহিঙ্গা ক্যাম্প, বালুখালি-২, হাকিমপাড়া ও শফি উল্লাহকাটা ঢালা ক্যাম্প পরিদর্শন ও ত্রাণ বিতরণ করবেন তিনি। ওই দিন বিকেলে কক্সবাজার হয়ে চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজে রাত্রি যাপন করবেন। মঙ্গলবার সকাল ১০টায় তিনি ঢাকার উদ্দেশে রওয়ানা হবেন। পথিমধ্যে ফেনী সার্কিট হাউজে যাত্রাবিরতি করবেন।

তিনি আরো জানান, খালেদা জিয়ার সফরসূচী সফল ও তদারকী করতে কক্সবাজারে অবস্থান করছেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, নজরুল ইসলাম খানঁ ও জাতীয় মহিলাদলের সভাপতি আফরোজা আব্বাস।

আপোষহীন নেত্রী খালেদা জিয়ার সাথে একডজন কেন্দ্রীয় নেতাও আসছেন কক্সবাজারে। মির্জা আব্বাস ও নজরুল ইসলাম খাঁন কক্সবাজারে এসে জেলা বিএনপির শীর্ষ নেতৃবৃন্দদের সাথে দফায় দফায় মিটিংয়ে বসে সবকিছু তদারকী করছেন। জেলা বিএনপি ১৪ টি সাংগঠনিক ইউনিট গঠন করে খালেদা জিয়াকে বরণ করবে। এ সভায় বেগম জিয়ার সফর উপলক্ষে ৬টি উপ-কমিটি গঠন করা হয়।

কমিটিগুলো হলো- অভ্যর্থনা উপ-কমিটি, শৃঙ্খলা উপ-কমিটি, আপ্যায়ন উপ-কমিটি, অর্থ উপ-কমিটি, মিডিয়া উপ-কমিটি এবং ত্রাণ উপ-কমিটি। জেলা বিএনপির শীর্ষস্থানীয় নেতারা কমিটিগুলোর তত্ত্বাবধান করবেন। সভায় চকরিয়ার উত্তর হারবাং থেকে শুরু করে জেলা প্রতিটি এলাকায় ও কক্সবাজার সার্কিট হাউজ এলাকা পর্যন্ত বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে ব্যাপক সংবর্ধিত করার প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। নির্দেশনা দেয়া হয়েছে জেলার ১৪টি সাংগঠনিক ইউনিটকে।

কেন্দ্রীয় বিএনপির মৎস্যবিষয়ক সম্পাদক সাবেক এমপি লুৎফুর রহমান কাজল বলেন, খালেদা জিয়া উখিয়া-টেকনাফের প্রায় ১০ হাজার রোহিঙ্গাকে ত্রাণ বিতরণ করবেন। দলীয় চেয়ারপারসনকে জেলায় অভ্যর্থনা জানাতে বিএনপি ও বিভিন্ন সহযোগী সংগঠনের পক্ষ থেকে প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে। ম্যাডামের কক্সবাজার আগমন উপলক্ষে দলের পক্ষ থেকে ব্যাপক প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। চেয়ারপারসনের আগমন উপলক্ষে দলীয় নেতাকর্মীদের মাঝে উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে। অভ্যর্থনা জানাতে বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের সব ইউনিটের নেতাকর্মীরা রাস্তায় ফেস্টুন ও প্লে-কার্ড নিয়ে চেয়ারপারসকে অভ্যর্থনা জানাবো।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •