সিবিএন ডেস্ক :

মানবাধিকার রক্ষায় সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। সারা বিশ্বে আজ মানবাধিকার লংঘিত হচ্ছে। রোহিঙ্গাদের দেশ ছাড়া করে অমানবিক জীবনের দিকে ঠেলে দিয়েছে তাদের মায়ানমার সরকার । যে জীবনের কোন নিশ্চয়তা নেই। মায়ানমার থেকে আসা রোহিঙ্গারা চরম মানবাধিকার পরিস্থিতির শিকার হয়ে বাঁচার আশায় এদেশে আসছে। এই সমস্যার উত্তোরনের জন্য জাতিসংঘসহ শক্তিধর রাষ্ট্রকে এগিয়ে আসতে হবে । এই সমস্যা আর্ন্তজাতিক সমস্যা । তাই রোহিঙ্গা সংকট নিরসনে জাতিসংঘকে দৃশ্যমান ভূমিকা পালন করতে হবে।বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশনের চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিটির উদ্যোগে গতকাল ২৮ অক্টোবর কক্সবাজার সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে রোহিঙ্গা বিষয়ে জাতীয় সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে কক্সবাজার জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান  মোস্তাক আহমেদ চৌধুরী একথা বলেন। চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিটির গভর্ণর সেতারা গফফারের সভাপতিত্বে এবারের সম্মেলনের প্রতিপাদ্য বিষয় ছিল কাঁদছে মানবতা, আর নয় পাশবিকতা। বেলুন পায়রা উডিয়ে সম্মেলনের উদ্ভোধক ছিলেন সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা মহাসচিব ড. সাইফুল ইসলাম দিলদার বিশেষ অতিথি ছিলেন কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগেরসহ সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম,বিএইচআরসি‘র কক্সবাজার জেলা সভাপতি কানিজ ফাতেমা আহমেদ,ঢাকা জেলার গর্ভনর আলহাজ্ব সিকান্দ আলী জাহেদ,সিলেটের ড.আর কে ধর।স্বাগত বক্তব্য রাখেন, বিভাগীয় কমিটির সেক্রেটারী এডভোকেট ফয়জুর রহমান চৌধুরী। বিএইচআরসি‘র কক্সবাজার জেলা সাধারণ সম্পাদক রফিক মাহামুদ ও যুগ্ন সা: সম্পাদক দেলোয়ার হোছাইন চৌধুরীর সঞ্চালনায় আরো বক্তব্য রাখেন আমিনুল হক বাবু,সোহেল আহমদ মৃধা,অজিত কুমার,আবুল কালাম ভুইয়া,নুরুন নবী বুলু,আলমগীর হোসেন,এম রাজিব,মাহামুদুল হাসান রোম্মান,শহিদুল ইসলাম,এম রাজিব,জাহাঙ্গীর আলম, গোলাম কিবিরিয়া, সৈয়দ আজমল ।দিনব্যাপী সম্মেলনে সারা দেশে থেকে আগত মানবতাবাদীদের এক মিলন মেলায় পরিনত হয়। সকাল ৯টায় হলিডে মোড় থেকে একটি র‌্যালী শুরু করে কক্সবাজার সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে এস শেষ হয়। সম্মেলনের পর রাতে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও ভোজ আয়োজন করা হয়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •