অনলাইন ডেস্ক: ভাত নির্ভরশীল খাদ্যাভ্যাসের কারণে বাঙালির চিরকালের পরিচয় হয়ে দাঁড়িয়েছে ‘ভেতো বাঙালি’! এদেশের অধিকাংশ পরিবারের প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় এ খাদ্যটি আবশ্যিক। অনেক সময় আমরা রান্না ভাত বেঁচে গেলে তা রেখে দিয়ে পরবর্তীতে আবার খাওয়ার জন্য পরিবেশন করি।

কিন্তু যুক্তরাজ্যের ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিসের স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, এরকম রেখে দেওয়া বা বাসি ভাত থেকে হতে পারে মারাত্মক বিষক্রিয়া। এমনকি রেখে দেওয়া ভাতের গন্ধ পরবর্তীতে যতোই টাটকা মনে হোক, তা খাওয়া খুবই ঝুঁকিপূর্ণ।

চালের মধ্যে অনেক সময় বেসিলাস কিয়েরিয়াস (Bacillus cereus) নামের একপ্রকার কোষ থাকে। এই দ্রুত পুনরুত্পাদনশীল কোষগুলো ভাত রান্নার পরও জীবিত থাকতে সক্ষম।

যদি ভাত রান্নার পর তা বাইরের স্বাভাবিক তাপমাত্রায় রেখে দেওয়া হয়, তবে কোষগুলো থেকে ব্যাকটেরিয়া জন্মাতে শুরু করে। এই ব্যাকটেরিয়া এক ধরনের বিষ উৎপাদন করে, যা মানুষের দেহে প্রবেশ করলে প্রচণ্ড বমি ও ডায়রিয়া সৃষ্টি করে।

ভাত যতক্ষণ স্বাভাবিক তাপমাত্রায় ফেলে রাখা হবে, এ ব্যাকটেরিয়া ততবেশি বংশবিস্তার করবে এবং খাবার অনিরাপদ হয়ে উঠবে। রেখে দেওয়া ভাত পরবর্তীতে গরম করলেও তা খাওয়ার জন্য নিরাপদ নয়।

বাসি ভাতের বিষক্রিয়া এড়ানোর জন্য যা করণীয়-
প্রথমত, ভাত রান্নার পর যতো তাড়াতাড়ি সম্ভব তা পরিবেশন করুন। খাওয়ার পর যদি ভাত বেঁচে যায়, তবে তা দ্রুত রেফ্রিজারেটরে সংরক্ষণ করুন।

বিশেষজ্ঞদের মতে, ভাত বেঁচে গেলে তা একঘণ্টার মধ্যে রেফ্রিজারেটরে রাখা দরকার। আর রেফ্রিজারেটরে ভাত একদিনের বেশি সংরক্ষণ করা উচিত নয়।

  • বাংলানিউজ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •