`আমরাও তো দাবি করতে পারি রাখাইন আমাদের’

বাংলানিউজ :রোহিঙ্গাদের এদেশে পাঠিয়ে দেওয়ার পর এখন শোনা যাচ্ছে মিয়ানমার দাবি করছে বাংলাদেশের কক্সবাজারও নাকি তাদের। কিন্তু আমরা বলতে চাই- তারা যদি এপার দাবি করে, তাহলে আমরাও দাবি করতে পারি রাখাইন রাজ্যও আমাদের। আমি কোনো কথার কথা বলছি না। ঐতিহাসিকভাবেই বলছি। দ্বি-জাতি তত্ত্বের ভিত্তিতে তো সেই দাবি করতেই পারি।

দেশের শীর্ষস্থানীয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল বাংলানিউজ আয়োজিত ‘রোহিঙ্গা সংকট, বাস্তবতা ও পরিকল্পনা’ শীর্ষক গোলটেবিল আলোচনায় কক্সবাজার সদর আসনের সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল এ কথা বলেন।

সোমবার (২৩ অক্টোবর) বিকেলে কক্সবাজারের সায়মন বিচ রিসোর্টের সম্মেলন কক্ষে এ গোলটেবিল আলোচনার আয়োজন করা হয়।

বাংলানিউজের এডিটর ইন চিফ আলমগীর হোসেনের সভাপতিত্বে ও চট্টগ্রাম ব্যুরো এডিটর তপন চক্রবর্তীর সঞ্চালনায় এ আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়।

তিনি বলেন, এতো রোহিঙ্গা বাংলাদেশে এলো কিন্তু একটা মানুষও খাদ্যের অভাবে মারা যায়নি। চিকিৎসার অভাবে মারা যায়নি। সেটা সফলতা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রোহিঙ্গাদের দেখতে গিয়েই বলেছেন, ১৬ কোটি মানুষকে যদি খাওয়াতে পারি, তাহলে আরও ৫-৬ লাখ লোককেও আমরা খাওয়াতে পারবো। এটা অনেক বড় কথা। অনেক সাহসের কথা।

কমল বলেন, বিশ্ব দরবার রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে আমাদের পাশে আছে। শুধু কয়েকটি দেশ এখনও মিয়ানমারের পক্ষে কথা বলছে। কথা বলছে কারণ আছে- কারণ মিয়ানমারের সঙ্গে তাদের স্বার্থ জড়িত।

তিনি বাংলাদেশের উদাহরণ দিয়ে বলেন, জঙ্গিবাদ আমাদের দেশে উত্থান হয়েছিল। আমরা সেটি দক্ষতার সঙ্গে মোকাবেলা করেছি। কিন্তু মিয়ানমার বলেছে জঙ্গি থামাতে এটা তাদের উদ্যোগ। আমার কথা হলো জঙ্গিবাদের নামে কি লাখ লাখ লোককে নিপীড়ন করা যায়, হত্যা করা যায়।

‘রোহিঙ্গাদের ফেরাতে কূটনৈতিক তৎপরতার পাশাপাশি এই গণহত্যার বিপক্ষে দাঁড়াতে হবে। শুধু জাতিসংঘে গিয়ে তাদের ফেরাতে দাবি তুলবো তা হয় না। আমাদের কাজ আমাদের চালিয়ে যেতে হবে।’ -বলেন সাইমুম সরওয়ার কমল।সোহেল সরওয়ার

মিয়ানমার রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশি দাবির পেছনে ভাষার মিল অজুহাত দেখাচ্ছে জানিয়ে এই সংসদ সদস্য বলেন, তারা বলছে রোহিঙ্গাদের ভাষা বাংলা। তারা তাই বাংলাদেশি। কিন্তু আমি বলতে চাচ্ছি রোহিঙ্গাদের ভাষার সঙ্গে বাংলার মিল মাত্র ৩০ শতাংশ।

তিনি বলেন, রোহিঙ্গারা আসায় অনেক সমস্যা হচ্ছে জানি। কিন্তু মানুষ বড় না পরিবেশ বড়, মানুষ বড় না পর্যটন বড়, মানুষ বড় না রাজনীতি বড়। এই মানুষের কথা ভেবেছেন বলেই তো প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনেক সমস্যা হবে জেনেও রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়েছেন।

‘মিয়ানমার আমাদের ওপর ১০ লাখ লোকের বোঝা তুলে দিলো। তাই তাদের সঙ্গে বন্ধুত্ব নয়। প্রয়োজনে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।’

সর্বশেষ সংবাদ

প্রখ্যাত সঙ্গীতশিল্পী শাহনাজ রহমতুল্লাহ  আর নেই

কক্সবাজারের ৫ উপজেলায় ভোটযুদ্ধ আজ

এমপি জাফর আলমের সাথে সৌজন্য সাক্ষাত করতে গেলেন সাঈদী

ইসরায়েল লুটেরা রাষ্ট্র : মাহাথির মোহাম্মদ

 বাবার মত আমিও আপনাদের সেবা করে মরতে চাই- নৌকার প্রার্থী জুয়েল

ইস্তাম্বুলে ওআইসির পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ে জরুরী বৈঠক

টেকনাফের নির্বাচনে বিশৃঙ্খলা করলেই অ্যাকশন যাবো : এসপি মাসুদ হোসেন

২৭ মার্চ উমিদিয়া জামেয়া ইসলামিয়ার বার্ষিক মাহফিল

ঝুঁকিতে ‘গোমাতলী বেইলী’ ব্রীজ

সেই রাফিয়ার পরিবারের দায়িত্ব নিলেন ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী কাজী রাসেল

রামু পশ্চিম মনিরঝিল দরগাহ পাড়ায় তাফসীরুল কোরআন মাহফিল সম্পন্ন

 “আল মাহমুদ চেতনার কবি, প্রেরণার বাতিঘর” শীর্ষক আলোচনা সভা

জেলা আইনজীবী সহকারী সমিতির নির্বাচনে নুরুল আমিন-তুহিন প্যানেলের নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা 

কক্সবাজার সদর থানা পুলিশের অভিযানে গ্রেফতার-৬

এতিম শিশুদের জন্য বনভোজনের আয়োজন করলেন ছাত্রলীগ নেতা আসফি

আল্লামা তকী উসমানীর উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে কক্সবাজারে হেফাজতে ইসলামের বিক্ষোভ

সাঈদী ফুল নিয়ে শুভেচ্ছা জানাতে গেলেন গিয়াসউদ্দিন চৌধুরী’র কাছে

অবৈধভাবে ব্যালট পেপারে হাত দিলেই গুলি- মহেশখালীর ওসি

ইউএনও বীনার ঘর আলোকিত করল নতুন অতিথি

কক্সবাজার সদর ও কুতুবদিয়া উপজেলায় রোববারের সাধারণ ছুটি কি এখনো বহাল!