বড় মহেশখালী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক পদে জনপ্রিয়তার শীর্ষে আহসান উল্লাহ

বিশেষ প্রতিবেদক:

বড় মহেশখালী ইউনিয়ন যুবলীগের সম্মেলন ও কাউন্সিলকে কেন্দ্র করে পুরো উপজেলা জুড়ে চাঙ্গাভাব সৃষ্টি হয়েছে। প্রতিদিন সকাল থেকে রাত পর্যন্ত নেতাকর্মীদের মাঝে নানা উৎসাহ উদ্দীপনা বিরাজ করছে। সম্প্রতি অনেকেই সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী হিসেবে মাঠে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে। পাশাপাশি অনেকেই নিজেকে প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা দিয়ে সমাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও প্রচারণা চালাচ্ছে। তবে আগামী ২৬ অক্টোবর বড় মহেশখালী ইউনিয়ন যুবলীগের প্রার্থী হিসেবে সমাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যারা ঘোষণা দিয়েছেন তাদের মধ্যে জনপ্রিয়তার শীর্ষে রয়েছেন ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী আহসান উল্লাহ আহসান। তার প্রার্থীতা নিয়ে ফেইসবুক স্ট্যাটাসে শত শত আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের সমর্থন লক্ষ্য করা গেছে।

এদিকে মহেশখালী উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক আহবায়ক আবদুল মান্নান বলেন, উপজেলার সব চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ইউনিয়ন হিসেবে বড় মহেশখালী অন্যতম। তাই এই ইউনিয়নের নেতৃত্বে যারা আসবে তাদের পারিবারিক, সামাজিক ও শিক্ষার বিষয় বিবেচনা করে নেতা নির্বাচন করতে হবে। আর সেই ক্ষেত্রে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আহসানকে সবার চেয়ে যোগ্য মনে করি আমি। জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি মোহাম্মদ জাকারিয়া বলেন, ত্যাগি ও পরিশ্রমী এবং জনপ্রিয় সাবেক ছাত্রনেতা হিসেবে আহসান যদি ইউনিয়ন যুবলীগের দায়িত্বে আসে তাহলে দল ও নেতাকর্মীদের ভাবমূর্তি আরো উজ্জ্বল হবে।

বড় মহেশখালীর সাবেক ছাত্রনেতা মাহামুদুল করিম বলেন, বড় মহেশখালী হচ্ছে মহেশখালী উপজেলার একটি গুরুত্বপূর্ণ ইউনিয়ন। এই ইউনিয়নে সভাপতি-সম্পাদক পদে ন¤্র, ভদ্র ও সকলের গ্রহণযোগ্য যুবক দরকার। তাই ইতিমধ্যে যারা সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে চাই তাদের মধ্যে সাবেক ছাত্রনেতা বর্তমান উপজেলা যুবলীগ নেতা আহসান অন্যতম। তিনি আরো বলেন, আমি আহসানের সাংগঠনিক কর্মকান্ড যতটুকু দেখেছি সে আসলেই একজন দক্ষ সংগঠক।

উপজেলা যুবলীগের সদস্য জমির উদ্দিন বলেন, ত্যাগী নেতা হিসেবে বড় মহেশখালীর সাধারণ সম্পাদক পদে যুবলীগ নেতা আহসানের বিকল্প নেই। এদিকে বড় মহেশখালী ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী হিসেবে নিজের অবস্থান সম্পর্কে জানতে চাইলে আহসান বলেন, আমি বড় মহেশখালী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সিনিয়র যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক ছিলাম। উপজেলা ছাত্রলীগের সদস্য ছিলাম। বর্তমানে উপজেলা যুবলীগের সদস্য। তার চেয়ে আমার বড় পরিচয় আমি বঙ্গবন্ধুর আর্দশের একজন সৈনিক। এই দেশের ১৬ কোটি মানুষের আস্থা ও বিশ^াসের ঠিকানা জননেত্রী শেখ হাসিনার রাজনীতির প্রতীক। তাই একটা কথাই বলল, বর্তমান মহেশখালী-কুতুবদিয়ার সংসদ সদস্য দুই দ্বীপবাসির আস্থা ও বিশ^াসের ঠিকানা জননেতা আশেক উল্লাহ রফিক ভাইকে আগামী সংসদ নির্বাচনে বিপুল ভোটে নির্বাচিত করার জন্য এবং দলকে আরো শক্তিশালী করার জন্য আমি ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী হয়েছি।

আহসান আরো বলেন, মহেশখালী উপজেলা যুবলীগের আমার প্রিয় অভিভাবক উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক প্রিয়নেতা সাজেদুল করিম ভাই ও যুগ্ন-আহবায়ক যথাক্রমে শেখ কামাল ভাই ও সেলিম ভাই এর অক্লান্ত পরিশ্রমের মাধ্যমে মহেশখালী যুবলীগ আজ এই পর্যায়ে এসেছে। সুতারাং আমি মনে করি উল্লেখিত প্রিয় নেতাদের সিদ্ধান্ত কখনো ভুল হবেনা।

সর্বশেষ সংবাদ

লংগদুতে বন্যহাতির আক্রমনে ৬ বছর বয়সী শিশুর মৃত্যু

তারকারা কে কার আত্মীয়?

উপজেলা নির্বাচনের তৃতীয় ধাপ থেকে ইভিএম

জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনায় কক্সবাজার মহিলা কলেজের জেলায় শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন

ওভাই (OBHAI) যাত্রা শুরু করলো কক্সবাজারে

ভারত থেকে হাই কমিশনারকে ডেকে পাঠাল পাকিস্তান

স্বাধীনতার বিরোধিতা করে কোনো দল টেকেনি

২০২২ সালের মধ্যে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা বোর্ড গঠন

এমপিদের শপথের বৈধতা নিয়ে রিট খারিজ

রাখাইনের মংডুতে তিন আদিবাসীর মৃতদেহ উদ্ধার

রোহিঙ্গাদের চাপে পানের দাম চড়া

পুলওয়ামায় ফের জঙ্গি হামলায় ৪ সেনা নিহত

প্রধানমন্ত্রীর কাছে মহেশখালীর ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের ৮ দাবি

বাংলাদেশ-আমিরাত চারটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর

কক্সবাজার সদরে এসিল্যান্ড শূন্যতায় ভোগান্তি

পুনর্বাসন চায় মহেশখালীর মানুষ

‘নিয়ম ছিল না বলেই বদি আমন্ত্রণ পাননি’

দায়িত্বশীল ছাড়া কারও ডাকে সাড়া নয়

দেশের কোন গোয়েন্দা সংস্থার কী কাজ

কাশ্মিরে নিরাপত্তা বাহিনীর ওপর আবারও হামলা, সেনা কর্মকর্তাসহ নিহত ৬