সংখ্যালঘু নির্যাতন বন্ধের দাবীতে স্লোগানে মুখরিত প্যারিসের রিপাবলিক চত্বর

france_1.jpg

সুনন্দন বড়ুয়া প্যারিস থেকে:
তুমি কে! আমি কে! বাঙ্গালি, বাঙ্গালি। সংখ্যালঘু নির্যাতন বন্ধ করো করতে হবে। হিন্দু, মুসলমান, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান আমরা সবাই বাঙ্গালি, বাঙ্গালি। ধর্ম যার যার, রাষ্ট্র সবার। ৭১ এর সংবিধান ফিরিয়ে আন, আনতে হবে। বঙ্গবন্ধুর বাংলায়, মৌলবাদীর ঠাই নাই, ঠাই নাই। তোমার দেশ, আমার দেশ, বাংলাদেশ বাংলাদেশ – এ সব স্লোগানে স্লোগানে মুখরিত হয়ে ওঠে ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসের রিপাবলিক চত্বর।
সেই সঙ্গে বাংলাদেশে সংখ্যালঘু নির্যাতনের বিচার বিভাগীয় তদন্ত এবং অপরাধীদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করার আহ্বান জানিয়েছে ফ্রান্স প্রবাসী বাংলাদেশিরা।
বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি পরিষদ রবিবার বিকাল ৩টা থেকে ৬টা পর্যন্ত প্লাস দোলা রিপাবলিক চত্বরে এ বিক্ষোভ ও মানববন্ধনের আয়োজন করে। ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও গাইবান্ধায় সাঁওতাল পল্লীসহ বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে ধর্মীয় সংখ্যালঘু এবং হিন্দু সম্প্রদায়ের ওপর সহিংসতা, নির্যাতন, নিপীড়ন, ঘর বাড়ি লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের প্রতিবাদে প্যারিসে বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি পরিষদের উদ্যোগে আয়োজিত মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশে উপরোক্ত স্লোগানে স্লোগানে মুখরিত ছিল রিপাবলিক চত্বর। বৈরী আবহাওয়া স্বত্বেও মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভায় জাতি, ধর্ম ও বর্ণ নির্বিশেষে ফ্রান্সে অবস্থানরত অসংখ্য বাংলাদেশি অংশগ্রহণ করেন। মানববন্ধনে বাংলাদেশের নাসিরনগর ও সাঁওতাল পল্লীসহ বিভিন্ন স্থানে ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের ওপর সংগঠিত নির্যাতনের সঙ্গে যারা জড়িত তাদের শনাক্ত করে আইনের আওতায় আনার আহ্বান জানান নেতৃবৃন্দরা। মানববন্ধনে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি পরিষদের নেতারা নাসিরনগরের ঘটনায় গৃহহীন ও সম্বলহীনদের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়ে বলেন, সে দিনের ঘটনায় নাসিরনগরের সূত্রধর পাড়ার হরিদাশ সূত্রধর ও দীপালী সূত্রধরের বাড়ি ঘরে অগ্নিসংযোগ করা হয়েছে। তাদের সম্পদ লুট করা হয়েছে। অসহায় এ পরিবারটির কলেজ পড়ুয়া মেয়ে প্রত্যাশা সূত্রধরের বিবাহ অনুষ্ঠান সম্পন্নের বিষয়ে ফ্রান্সের বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি পরিষদের সকল সদস্য ও শুভানুধ্যায়ীদের এগিয়ে আসার অনুরোধ জানানো হয়।
সম্প্রীতি পরিষদের এ আহ্বানে সাড়া দিয়ে উপস্থিত সকলে সহায় সম্বলহীন কন্যাদায়গ্রস্ত হরিদাশ সূত্রধরের কন্যার বিবাহের যাবতীয় দায়িত্ব নিতে সম্মত হন।

Top