শহরে সন্ত্রাসী হামলায় আনসার সদস্যা আহত

Cox-Pic-2.jpg

সংবাদদাতা:
শহরে জমি জবর দখলকে কেন্দ্র করে এক আনসার সদস্যাকে গুরুতর আহত করেছে ভূমিদস্যুরা। এ সময় উকিল পরিচয়ী ভূমিদস্যু মোবারকের নেতৃত্বে ৮/১০ স্বশ^ত্র সন্ত্রাসী আহত আনসার সদস্যার উপর হামলা চালায়। আহতের আত্মচিৎকারে আশ-পাশের লোকজন এগিয়ে আসলে সন্তাসীরা পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থল থেকে আহতকে উদ্ধার করে জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করান স্থানীয়রা।

২০ নভেম্বর সকাল ১১ টার দিকে শহরের বাদশা ঘোনাস্থ ওমর ফারুক জামে মসজিদের সামনে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনায় আহত আনসার সদস্যা একই এলাকার মৃত জাগির হোসেনের স্ত্রী ও ২ সন্তানের জননী জেসমিন আক্তার (২৮) বলে জানা গেছে।

স্থানীয় ও প্রতক্ষ্যদর্শীরা জানান, মোবারক একজন মুখোশধারী উকিল। তার নেতৃত্বে চলছে জমি-জবর দখল, সন্ত্রাসী, মাদক ব্যবসা, চুরি-ছিনতাইসহ বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ড। এ সব অপর্মের জন্য মোবারকের নেতৃত্বে রয়েছে একটি শক্তিশালী সন্ত্রাসী বাহিনী। তারই অংশ বিশেষ ২০ নভেম্বর সকাল ১১ টার দিকে বিধবা জেসমিনের জমি জবর দখলের উদ্দেশ্য তার স্বশ^ত্র সন্ত্রাসি বাহিনী নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়ে। এ সময় বিধবা জেসমিনের উপর উপর্যোপরি হামলা ও যৌনচারের চেষ্টা চালায় উক্ত সন্ত্রাসীরা। শুধু তাই নয় আহত জেসমিনের শরীর ও গোপনাঙ্গে গুরুতর জখম করে উক্ত সন্ত্রাসীরা। আহত জেসমিন বর্তমানে জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এদিকে তার ২ শিশুর আহাজারীতে ভারী হয়ে উঠেছে হাসপাতালসহ আশ-পাশের পরিবেশ।

এ ব্যাপারে কক্সবাজার সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক জানান, আহত মহিলার অবস্থা খুবই আশংঙ্কা জনক। তাকে চট্রগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হলে আহতের অর্থিক সমস্যার কারণে ফের জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। তবে আহত জেসমিন শঙ্কা মুক্ত নয় বলে জানান বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক।

এ দিকে আহতের বোন জানায়, জেসমিনের অবস্থা খুবই খারাপ। আমরা অসহায় বলে এক মাত্র আল্লাহ ছাড়া আমাদের পাশে কেউ নেই। তবে শেষ বিন্দু দিয়ে হলেও সন্ত্রাসীদের প্রহিত করব। তবে সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

এ ব্যাপারে কক্সবাজার সদর মডেল থানার অপারেশন অফিসার আব্দুর রহিম জানান, ঘটনার বিষয়ে আমি আবগত নয়। তবে মহিলার উপর হামলার ঘটনা খুবই দুঃখ জনক। সন্ত্রাসী যেই হোক অভিযোগ পেলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Top