শহরে মটর সাইকেলের ধাক্কায় গুরুতর আহত কলেজ ছাত্র

motor-cycle-accident-coxsbazar_1.jpg

সংবাদদাতা : কক্সবাজারের তারাবনিয়ারছড়া এলাকায় ফজরের নামাজের শেষে মটর সাইকেলের বেপরোয়া চালকের ধাক্কায় গুরুতর আহত হয়েছেন কক্সবাজার সরকারি কলেজের একাদশ শ্রেণীর জেনারেল বিভাগ ২য় বর্ষের ছাত্র, রোল নং-৯১৫ মেধাবী ছাত্র মোঃ ওয়াহেদ (১৭)।

সূত্রে জানা যায় মোঃ ওয়াহেদ ভারুয়াখালীর সাবেক পাড়ার মনির আহাম্মদের ছেলে। প্রত্যক্ষ সূত্রে জানা গেছে মেধাবী ছাত্র মোঃ ওয়াহেদ ৪ নভেম্বর রোজ-শুক্রবার ভোর ৫:২০ মিনিটের সময় তারাবনিয়ারছড়া জামে মসজিদ হতে ফজরের নামাজ পড়ে বের হয়ে প্রধান সড়কের ব্রিজের উত্তর পার্শ্বে এক বন্ধুর জন্যে অপেক্ষা করার প্রাক্কালে হঠাৎ পূর্ব দিক থেকে আসা কালো রঙের একটি পালসার মটর সাইকেল যার নং-ল-১১-২৮৫৪ স্বজোরে ধাক্কা দিলে মোঃ ওয়াহেদ রাস্তায় ছিটকে পড়ে যায় এবং সাথে সাথে তার মুখের ৯টি দাঁতসহ মাথা ফেটে গুরুতর রক্তাক্ত জখম হয়ে অজ্ঞান হয়ে পড়ে যায়। উক্ত ঘটনার সাথে সাথে পথচারী আরিফ সহ কয়েকজন মিলে দ্রুত কক্সবাজার সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগের নিয়ে আসে। কক্সাবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক মোঃ ওয়াহেদের অবস্থা গুরুতর দেখে জরুরী ভিত্তিতে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করার নির্দেশ দেন। কক্সবাজার সরকারি কলেজের একাদশ শ্রেণীর মানবিক বিভাগ ২য় বর্ষের ছাত্র মোঃ ওয়াহেদ বর্তমানে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আই.সি.ওতে ভর্তি রয়েছেন।

এদিকে ঘটনার দিন বেপরোয়া মটর সাইকেল চালককে পথচারী ও দোকানদাররা আটকিয়ে রাখলে পরবর্তীতে মোঃ ওয়াহেদের পরিবারের অনুমতি ছাড়াই রহস্যজনক ভাবে মাঝের ঘাট এলাকার স্থায়ী বাসিন্দা নাগু মেম্বারের ছেলে ডালিম তার ভাড়াটিয়া মটর সাইকেল চালক রুবেলকে তাহার নিজ দায়িত্বে নিয়ে যায়। উক্ত ঘটনা শেষে ডালিম তার ভাড়াটিয়া মটর সাইকেল চালক রুবেলের গাড়িসহ নিয়ে যাওয়ার সময় আহত মোঃ ওয়াহেদের বড় ভাই নুরুল আলমকে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে অবগত করেন যে মটর সাইকেল চালক রুবেল ডালিমের নিজ ভাড়া বাসায় ভাড়া থাকেন এবং ঘটনার ব্যাপারে আহত মোঃ ওয়াহেদের চিকিৎসার সমস্ত ব্যয়ভার বহন করিতে কোন ধরণের অসুবিধা হবে না বলে আশ্বস্থ করেন। পরবর্তীতে আহত মোঃ ওয়াহেদকে কক্সবাজার সদর হাসপাতাল হইতে চট্টগ্রাম মেডিকেল হাসপাতালে রেফার করলে ভগ্নিপতি ছৈয়দ নূর ডালিমের সাথে যোগাযোগ করলে উক্ত ডালিম চিকিৎসার ব্যাপারে বিভিন্ন অজুহাতে গড়িমসি করিতেছে। এমতাবস্থায় উক্ত নাগু মেম্বারের ছেলে ডালিম ঘটনার দিন সম্পূর্ণ চিকিৎসার ব্যয়ভার বহন করিবে বলে দায়িত্ব নিয়ে এখনো পর্যন্ত কোনো ধরণের যোগাযোগ না করায় উক্ত ব্যাপারে ভগ্নিপতি সৈয়দ নূর বাদী হয়ে দুইজনকে আসামী করে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় একখানা অভিযোগ দায়ের করেন। এই দিকে মোঃ ওয়াহেদের পরিবার সূত্রে জানায় মোঃ ওয়াহেদের ঘটনায় তার মা-বাবা দুজনেই অসুস্থ হয়ে পড়ায় দুর্ঘটনার চার দিন অতিবাহিত হলেও কলেজ কর্তৃপক্ষকে অবহিত করতে পারেন নাই। তাই পত্রিকার মাধ্যমে কলেজ কর্তৃপক্ষকে উক্ত বিষয়টি অবহিত করেন।

Top