মাতৃছোঁয়া হোস্টেলের পানি বাথরুম বন্ধ ,ভবন মালিকের বিরুদ্ধে মামলা

girls-hostel-womens-hostel.jpg

বার্তা পরিবেশক :
কক্সবাজার শহরের রুমালিয়ারছড়া এলাকায় মাতৃছোঁয়া ছাত্রী নিবাসের ৭৫ ছাত্রীকে নানাভাবে হয়রানি ও নির্যাতনের অভিযোগে  নাছের কমপ্লেক্সের মালিক আবু নাছের মোহাম্মদ নাছের উদ্দিনের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা হয়েছে। মামলাটির বাদী মাতৃছোঁয়া ছাত্রী নিবাসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আকবর খাঁন। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে নাছের কমপ্লেক্সের মালিককে আদালতে হাজির হওয়ার জন্য সমন জারির নির্দেশ দিয়েছেন।
মামলার এজাহার সূত্রমতে, দুর্গম এলাকার ছাত্রীদের আবাসন সমস্যা নিরসনের জন্য ২০১৩ সালের অক্টোবরে মাসিক ৭২ হাজার টাকায় শহরের রুমালিয়ারছড়ায় ‘নাছের কমপ্লেক্স ভবন’টি ভাড়া নিয়ে ‘মাতৃছোঁয়া’ ছাত্রীনিবাস গড়ে তোলেন আকবর খাঁন। ভবনের দ্বিতীয়, তৃতীয়, চতুর্থ ও পঞ্চম তলায় কক্ষ বরাদ্দ নিয়ে শতাধিক ছাত্রীর আবাসনের ব্যবস্থা করা হয়। চুক্তিনামা অনুযায়ী ভাড়ার মেয়াদকাল শেষ হবে ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরে। ওই হোস্টেলে বর্তমানে রয়েছেন ৭৫ ছাত্রী। যারা বিভিন্ন কলেজ ও মাদ্রাসায় এইচএসসি, স্নাতক (পাস), আলিমে অধ্যয়নরত। কিন্তু এরইমধ্যে কুচক্রী মহলের ইন্ধনে চড়া মূল্যে ফ্ল্যাট গুলো অন্যের কাছে ভাড়া দেওয়ার জন্য গত ১৮ আগষ্ট হোস্টেলের খাবার পানি সরবরাহ, বাথরুম ও টয়লেট বন্ধ করে দেন। একই সাথে প্রতিষ্ঠানের সাইনবোর্ডও ছিঁড়ে ফেলেন। পরে ২২ আগষ্ট সদর মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন হোস্টেলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক। এরই ধারাবাহিকতায় ভবন মালিক আবু নাছের মোহাম্মদ নাছের উদ্দিন ভাড়াটে সন্ত্রাসীদের নিয়ে গত ১২ নভেম্বর রাত ১০ টায় হাতুড়ি দিয়ে গেইটের তালা ভেঙে হোস্টেলে ঢুকে কলেজে অধ্যয়নরত ছাত্রী ও হোস্টেল সুপারসহ হোস্টেলে কর্মরত মাহিলাদের যৌনহয়রানি ও শ্লীলতাহানির চেষ্টা করে। একই সাথে অফিসের মূল্যবান ফাইল ও দলিল দস্তাবেজ তছনছ করেন। এছাড়াও অফিসের ফার্ণিচার, জেনারেটর সহ মূল্যবান জিনিসপত্র ভাংচুর করে হোস্টেলের দুই লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি করে। এসময় পানি ও বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন। একপর্যায়ে হোস্টেলের তত্তাবধায়ক ও ছাত্রীদের অশ্লীল ভাষায় গালমন্দ করে দুই দিনের মধ্যে হোস্টেল ছেড়ে না গেলে হত্যা করে লাশ গুম করার হুমকি দেয়। পরে হোস্টেলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ভবন মালিকের সাথে কথা বলতে গেলে তাকেও লাঞ্চিত করেন। দ্রুত হোস্টেল ত্যাগ করার হুমকি দেন। এঘটনায় হোস্টেলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আকবর খাঁন বাদী হয়ে  মঙ্গলবার সিনিয়র জুড়িশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট অরুন পালের আদালতে হাজির হয়ে ভবন মালিকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন।
বাদী পক্ষের আইনজীবী অ্যাড. আহসান উদ্দিন বলেন, মামলাটি আমলে নিয়ে আদালতের বিচারক আসামীদের আদালতে হাজির হওয়ার জন্য সমন জারির নির্দেশ দিয়েছেন।

এদিকে ভবন মালিক আবু নাছের জানান , হোস্টেল কর্তৃপক্ষ বিগত ৮ মাসের ভাড়া বাকি রেখেছে । ভবনে লাকড়ির চুলা বসিয়ে ভবনের যথেষ্ট ক্ষতি সাধন করেছে । বিনা অনুমতিতে দেয়াল ভেঙ্গে ঘরের অবকাটামোর ক্ষতি করেছে । মহিলাদের হোস্টেল হলেও সেখানে নিয়মশৃংখলা বলতে কিছু নাই । স্থানীয় নেতা ও কাউন্সিলর বসে এ সমস্যার সমাধান করেছে । তারা অক্টোবরে বাসা ছেড়ে দেয়ার কথা ।   ভবনের সংস্কার কাজ করতে গেলে তারা দা ছুরি মরিচের গুড়া নিয়ে আমাদের মারতে আসে। তারা যেহেতু বিষয়টা আদালতে তুলেছে আদালতেই ফায়সালা হবে।

Top