মহেশখালীতে পান ব্যবসায়ীকে অপহরণ চেষ্টা, সর্বস্ব ছিনিয়ে নিল দুর্বৃত্তরা

opohoron.jpg

মহেশখালী সংবাদদাতা:
মহেশখালীতে আমান উল্লাহ নামে পান ব্যবসায়ীকে অপরণের চেষ্টা চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এ সময় তাকে ব্যাপক মারধর করে পান বিক্রির ১৫ হাজার টাকা ও একটি মোবাইল ছিনিয়ে নেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।
মঙ্গলবার (৮ নভেম্বর) সকালে গোরগঘাটা-জনতা বাজার সড়কে এ ঘটনা ঘটে।
আহত পান ব্যবসায়ী হোয়ানক পূর্ব নয়াপাড়া এলাকার মেহের আলীর ছেলে। চিহ্নিত দুর্বৃত্তরা ঘটনাটি ঘটিয়েছে বলে দাবী পরিবারের।
তবে, মহেশখালী থানার ওসি বাবুল চন্দ্র বণিক জানান, আমান উল্লাহর বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগে মামলা রয়েছে। তাকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
এদিকে আমান উল্লাহকে মারধর ও অপরণ চেষ্টার অভিযোগে তার স্ত্রী আঞ্জুমান আরা বাদী হয়ে মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে বলে সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা গেছে।
আঞ্জুমান আরা জানান, তার স্বামী একজন ক্ষুদ্র পান ব্যবসায়ী। ঘটনার দিন একটি মামলায় জামিন নিতে মহেশখালী সিনিয়র জুডিশিয়াল মেজিস্ট্রেট আদালতে যাচ্ছিলেন। এ সময় তাকে বহনকারী সিএনজি’র গতিরোধ করে গাড়ী থেকে নামিয়ে ব্যপক মারধর করা হয়। এরপর তাকে টেনে হেঁছড়ে অপহরণের উদ্দেশ্যে মোহরাকাটা বাজারের পূর্ব দিকে নিয়ে যাওয়া হয়।
ঘটনার শিকার আমান উল্লাহ জানান, তাকে ঘটনাস্থল থেকে ২০০/৩০০ ফুট দূরে অবস্থিত অজ্ঞাতনামা ব্যক্তির উঠানে নিয়ে হাতুড়ি, লাঠি, বন্দুকের বাট দিয়ে আঘাত করা হয়। এ সময় তার কাছে রক্ষিত পান বিক্রি বাবদ ১৫ হাজার টাকা এবং তার ব্যবহৃত মোবাইল সেট ছিনিয়ে নেয় দুর্বৃত্তরা। খবর পেয়ে থানা পুলিশ তাকে ঘটনাস্থল থেকে তাকে উদ্ধার করে।
এ ঘটনায় হোয়ানক মোহরাকাটা এলাকার আব্দুল মালেক, আহসানুল্লাহ, মো. ফিরোজ, জাগির হোসেন, আজিজুল হক আলম, মো. জসিম, আখতার হোসেন নুনু, মো. একরাম, মো. রশিদ, সাহাব উদ্দিন, মনিরুজ্জামাল, কেরুনতলী এলাকার মো. ফেরদৌস, মো. সুলতান, পানিরছরা এলাকার আব্দুল খালেক নামের কয়েকজন জড়িত বলে তিনি দাবী করেছেন।
তবে এলাকাবাসীর দাবী, চিংড়িঘের সংক্রান্ত বিষয়ে এ ঘটনা ঘটতে পারে। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে এর আগেও
হত্যা, অস্ত্র, ধর্ষণ, ডাকাতি, ছিনতাই, হত্যা প্রচেষ্টা ও দ্রুত আইনসহ বিভিন্ন অভিযোগে মামলা রয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সুত্র জানিয়েছে।

Top