বুলু, শিমুল, পাপিয়াসহ ২২ জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা

bnp-.jpg

বরকতউল্লাহ বুলু, শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস, সৈয়দা আশরাফি পাপিয়া

পল্টন থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে দায়ের করা মামলায় বরকতউল্লাহ বুলু, শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস,  সৈয়দা আশরাফি পাপিয়াসহ ২২ জনকে গ্রেফতারের জন্য পরোয়ানা জারি করেছে আদালত।

রবিবার ঢাকার মহানগর জ্যেষ্ঠ বিশেষ ট্রাইব্যুনালের (১ নম্বর বিশেষ ট্রাইবুনাল) বিচারক মো. কামরুল হোসেন মোল্লা মামলাটির অভিযোগপত্র আমলে নিয়ে এ পরোয়ানা জারির আদেশ দেন।

পরোয়ানা জারির এ তথ্য বাংলা ট্রিবিউনকে জানান,  ট্রাইব্যুনালটির  রাষ্ট্রপক্ষের অতিরিক্ত কৌঁসুলি তাপস কুমার পাল।

তিনি জানান, আসামিদের গ্রেফতারের বিষয়ে অবহিত করতে পুলিশকে আগামী বছরের ২৭ জানুয়ারি প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক।

এ মামলায়  কারাগারে থাকা বিএনপি নেতা হাবিব-উন-নবী খান সোহেলের পক্ষে জামিন আবেদন করা হয়। শুনানি শেষে তা নাকচ করেন বিচারক।

এ মামলায় জামিনে থাকা সৈয়দা আশরাফি পাপিয়া, রাসেল আবেদীন এদিন আদালতে অনুপস্থিত থাকায় তাদের বিরুদ্ধেও গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়।

জামিনে থাকা আমানুল্লাহ আমান, রাজীব আহসান, জয়নুল আবেদীনসহ ৫ জন এ ট্রাইব্যুনাল থেকে আগের শর্তে আবারও জামিন নেন।

এ ছাড়া এম কে আনোয়ার ও শওকত মাহমুদ অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে সময় চাইলে সে আবেদন মঞ্জুর করা হয়।

মামলায় বলা হয় , গত বছরের ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০ দলীয় ঐক্যজোটের ডাকা হরতাল অবরোধ চলাকালে পল্টন মডেল থানা এলাকার শান্তিনগর চামেলীবাগ চৌরাস্তায় অবস্থিত টুইন টাওয়ারের সামনে একটি পিকআপ ভ্যানের চালক রফিকুল ইসলামকে হত্যাচেষ্টা এবং মারাত্মক অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে দাঙ্গার সৃষ্টি করে গাড়িটিতে আগুন ধরিয়ে দেন আসামিরা।

এ ঘটনায় পল্টন থানার এসআই মমিনুল ইসলাম বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন।

একই থানার এসআই রফিকুল ইসলাম গত বছরের ৩০ এপ্রিল ৩০ জনকে অভিযুক্ত করে অভিযোগ পত্র জমা দেন আদালতে।

Top