বিজয় ভাষণে এক ‘অন্য ট্রাম্প’

trump.jpg

বিজয় নিশ্চিতের পর দেখা মিলল এক অন্য ট্রাম্পের। প্রার্থিতা পাওয়ার পর থেকে নির্বাচনী প্রচারণা চালানোর সময় পর্যন্ত তিনি রচনা করেছেন বিদ্বেষের ব্যাকরণ। অভিবাসী আর মুসলমানদেরকে ঘৃণাবাদী দৃষ্টিতেই দেখেছেন তিনি। সেই ট্রাম্পই বিজয় ভাষণে এসে যেন অন্য মানুষে রূপান্তরিত হলেন।

নির্বাচন জয়ের মুহূর্তকে ঐতিহাসিক উল্লেখ করে, সবাইকে ধন্যবাদ জানান ট্রাম্প। যিনি এতোদিন বিভক্তির সূত্রগুলো সামনে এনেছেন, সেই তিনিই যুক্তরাষ্ট্রকে এক সুতোয় বাধার অঙ্গীকার করেন। বলেন, ‘এই ঐতিহাসিক মুহূর্ত আরও স্মরণীয় হয়ে উঠবে যদি সবাই মিলে একসঙ্গে দেশের জন্য কাজ করতে পারে। তবেই দেশ মহান হবে।’
প্রচারণাকালে অভিবাসীদের নিয়ে ভয়াবহ সব মন্তব্য ছিল ট্রাম্পের। বিজয় ভাষণে তিনি অভিবাসীদের মহান মানুষ বলে উল্লেখ করেন।
ট্রাম্প জানান, হিলারি তাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। অভিনন্দিত করেছেন বিজয়ী হওয়ার জন্য। নিজেও হিলারির প্রশংসা করেছেন ট্রাম্প। তিনি দেশের অগ্রগতিতে ইতিবাচক ভূমিকা রেখেছেন উল্লেখ করে ধন্যবাদ জানান ট্রাম্প।
ট্রাম্প আশ্বাস দেন তার সরকার জনগণের সেবা করবে। তিনি বলেন, ‘আমরা একসঙ্গে আমাদের দেশের পুনর্গঠনের কাজ শুরু করব। আমি আমাদের দেশকে ভালোভাবে জেনেছি। এখানে প্রচুর সম্ভাবনা আছে। প্রত্যেক আমেরিকানের সক্ষমতা রয়েছে তার সম্ভাবনাকে বোঝার।’
ট্রাম্প ‘জাতীয় নবায়ন প্রকল্প’ ঘোষণা করেন। তিনি যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনীতিকে দ্বিগুণ করার প্রতিশ্রুতি দেন। অন্য দেশগুলোর সঙ্গে একসঙ্গে কাজ করারও অঙ্গীকার করেন তিনি। ট্রাম্প বলেন, ‘আমি বিশ্ব সম্প্রদায়কে বলতে চাই, আমরা যুক্তরাষ্ট্রের স্বার্থকে প্রাধান্য দিলেও সবার সঙ্গে ভালোভাবে থাকব।’
মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ২৭৯টি ইলেক্টোরাল ভোট পেয়ে এরইমধ্যে জয় নিশ্চিত করেছেন ট্রাম্প। প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হতে হলে প্রার্থীদের কমপক্ষে ২৭০টি ইলেক্টোরাল ভোট পেতে হয়। সর্বশেষ উইসকনসিনে জয়ের আগে প্রাথমিক ফলাফল অনুযায়ী  গুরুত্বপূর্ণ দোদুল্যমান অঙ্গরাজ্য ফ্লোরিডা, ওহাইয়ো এবং নর্থ ক্যারোলিনাতে হেরে যাওয়ার পর হিলারি শিবিরে অস্বস্তি তৈরি হয়। হিলারি প্রতি প্রকাশ্যে সমর্থন ব্যক্ত করা প্রভাবশালী ব্রিটিশ দৈনিক দ্য গার্ডিয়ানের খবরে বলা হয়,  বিপাকে রয়েছেন ডেমোক্র্যাট প্রেসিডেন্ট প্রার্থী। পরে বলা হয়, জয়ের কাছাকাছি রয়েছেন ট্রাম্প। এরপর পেনসিলভ্যানিয়ায় জয় নিশ্চিত করে ট্রাম্প নিশ্চিত করে ফেলেছেন নিজের বিজয়। আর সবশেষে উইসকনসিনে জয়ের পর ২৭০ এর কোটা পার হতে সক্ষম হন ট্রাম্প।

Top